জুনিয়র অ্যাথলেটিক্সের ১০০ মিটারে দিশা-হাসান-রুপা-সুলতান সেরা

জাতীয় জুনিয়র অ্যাথলেটিক্সে ১০০ মিটার স্প্রিন্টের চারটি ইভেন্টের মধ্যে তিনটিতে সেরা হয়েছেন বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) তিন অ্যাথলেট দিশা সুলতানা, হাসান মিয়া ও রুপা খাতুন, অন্যজন নাটোর জেলা ক্রীড়া সংস্থার সুলতান আহমেদ।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 Nov 2017, 05:18 PM
Updated : 6 Nov 2017, 05:18 PM

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের ট্র্যাকে সোমবার কিশোরীদের ১০০ মিটার স্প্রিন্টে ১২ দশমিক ৮০ সেকেন্ড সময় নিয়ে সেরা হন দিশা। আগের দিন ২০০ মিটারেও প্রথম হয়েছিলেন বিকেএসপির এই অ্যাথলেট। দুই ইভেন্টে সেরা হওয়া দিশার দৃষ্টি ২০১৮ সালের এসএ গেমসের দিকে।

দিশা সুলতানা

হাসান মিয়া

“গতবার দ্বিতীয় হয়েছিলাম। এবার প্রথম হয়ে অনেক ভালো লাগছে। আশা করি, সামনে সিনিয়রদের যে জাতীয় প্রতিযোগিতা আছে, সেখানে অনেক ভালো করব। টাইমিং নিয়ে সন্তুষ্ট না। অনুশীলনেও এরকমই টাইমিং করেছি। আরও ভালো টাইমিং আশা করেছিলাম।”

“আমি মনে করি না, আমার এই টাইমিং শিরিন আপুকে (জাতীয় চ্যাম্পিয়ন) হারানোর মতো। অলিম্পিকের স্বপ্ন দেখি না, যদি সিনিয়রে ভালো করতে পারি, তাহলে এসএ গেমসে ভালো করতে পারব। ফেডারেশন যদি আমাদের দীর্ঘমেয়াদী ক্যাম্প করায়, তাহলে আমরা আরও ভালো করতে পারব।”

কিশোর বিভাগে হাসান ১০ দশমিক ৬০ সেকেন্ডে দৌড়ে শেষ করেন। ২০১৫ সালে বিকেএসপির আশরাফুজ্জামানের গড়া (১০ দশমিক ৭০ সেকেন্ড) রেকর্ড নিজের করে নেওয়া এই অ্যাথলেট দাবি তুললেন ইলেক্ট্রনিক টাইমিংয়ের।

সুলতান আহমেদ

রুপা খাতুন

“লক্ষ্য ছিল আরও ভালো টাইমিংয়ের। সামনে আমার টার্গেট সিনিয়রে ভালো করা। ইলেক্ট্রনিক টাইমিং হলে আমি খুশি হব। কেননা, সবার হ্যান্ড টাইমিং সমান নয়। আমরা এখানে হ্যান্ড টাইমিংয়ে অংশ নিয়ে যখন দেশের বাইরে কোনো ইভেন্টে যাই, আমরা মেলাতে পারি না। ঘাবড়ে যাই।”

বালক বিভাগের ১০০ মিটার স্প্রিন্টে ১১ দশমিক ৪০ সেকেন্ড সময় নিয়ে সেরা সুলতান। বালিকাদের বিভাগে ১২.৬০ সেকেন্ড সময় নিয়ে প্রথম হয়েছেন রুপা; তবে রেকর্ড না হওয়ায় হতাশ বিকেএসপির এই অ্যাথলেট।

“রেকর্ড গড়ার আশা নিয়ে এসেছিলাম, সেটা হলে খুশি হতাম। তারপরও ১০০ মিটারে জিততে পেরে ভালো লাগছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক