কনফেডারেশন্স কাপের জন্য তৈরি ‘তরুণ’ রোনালদো

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের চতুর্থ শিরোপা জয়ের পর ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর নিজেকে তরুণের মতোই মনে হচ্ছে। আগামী চ্যালেঞ্জ কনফেডারেশন্স কাপে জাতীয় দলের হয়ে খেলতে মুখিয়ে আছেন পর্তুগিজ এই ফরোয়ার্ড।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 June 2017, 10:08 AM
Updated : 4 June 2017, 04:58 PM

গত শনিবার কার্ডিফের ফাইনালে ইউভেন্তুসকে ৪-১ ব্যবধানে হারিয়ে আধুনিক যুগের প্রথম দল হিসেবে টানা দুটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের ইতিহাস গড়ে রিয়াল। দলের জয়ে জোড়া গোল করেন রোনালদো। অপর দুই গোলদাতা কাসেমিরো ও মার্কো আসেনসিও।

বার্সেলোনার লিওনেল মেসিকে টপকে আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার সঙ্গে ক্যারিয়ারে ৬০০ গোলের মাইলফলকও স্পর্শ করেন রোনালদো। এ নিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রেকর্ড টানা পঞ্চমবার এবং সব মিলিয়ে ষষ্ঠবার সর্বোচ্চ গোলদাতা হলেন পর্তুগিজ এই ফরোয়ার্ড। ৩২ বছর বয়সী রোনালদো স্বাভাবিকভাবে এবারও ব্যালন ডি’অর জয়ের দৌড়ে অনেক এগিয়ে গেলেন।

মৌসুম শেষ হওয়ায় অধিকাংশ খেলোয়াড়ই এখন ছুটি কাটাবেন। রোনালদোর সে সুযোগ নেই। পর্তুগালের হয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপের বাছাইয়ে লড়তে হবে এবার। রিয়াল তারকাও জানালেন মৌসুম যতই লম্বা হোক, তার অনুপ্রেরণার কমতি নেই।

“দুই বা তিন দিনের বিশ্রাম নেওয়ার সময় আছে আমার এবং এরপর পর্তুগালের হয়ে বিশ্বকাপ বাছাই ও কনফেডারেশন্স কাপের ম্যাচ রয়েছে। এটা লম্বা মৌসুম কিন্তু আমি অনুপ্রাণিত। আমি খুশি এবং আমার বয়স স্রেফ একটা সংখ্যা। আমার নিজেকে একজন তরুণের মতো লাগছে।”

রিয়াল সমর্থকদের দুয়ো দেওয়া নিয়ে কদিন আগেও অনেক ক্ষোভ-হতাশা জানিয়েছেন রোনালদো। কার্ডিফের জয়ের আনন্দে সমর্থকদেরকে সমালোচনার পথে হাঁটেননি। পর্তুগিজ তারকার বিশ্বাস তার অর্জনের সংখ্যাই তার হয়ে কথা বলবে।

“সমর্থকদের নিয়ে কথা বলার মুহূর্ত এটা নয়। আমি এরই মধ্যে কথাগুলো বলেছি। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো আমরা এটা (চ্যাম্পিয়ন্স লিগ) আবারও জিতেছি। ডাবল জেতায় এটা আমার এবং আমার সতীর্থদের জন্য দারুণ একটা মৌসুম।”

“আমি মনে করি, আমাকে সমালোচনা করার মতো শব্দ লোকেদের নেই, কেননা সংখ্যা মিথ্যা বলে না। নিজেকে নিয়ে আমারও কথা বলার দরকার নেই; কেননা সংখ্যা মিথ্যা বলে না।”

কার্ডিফের ফাইনালে জেতাটা ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা মুহূর্ত বলেও জানান রোনালদো।

“আমি খুব খুশি; আমরা ট্রফিগুলো জিতেছি এবং অবশ্যই এটা আমার ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা মুহূর্ত। আমি প্রতিবছরই এটি বলি কিন্তু এটাই সত্য!”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক