আয়ানাকে পেছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ন চেরুইয়ত

অবশেষে অলিম্পিকের সোনার পদক হাতে নিতে পারলেন ভিভিয়ান চেরুইয়ত। মেয়েদের ৫ হাজার মিটার দৌড়ে ‘হট ফেভারিট’ ইথিওপিয়ার আলমাজ আয়ানাকে পেছনে ফেলেছেন কেনিয়ার অন্যতম সেরা এই অ্যাথলেট।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 August 2016, 04:07 AM
Updated : 16 Oct 2016, 10:52 AM

শেষ তিনটা অলিম্পিক ফাইনালে একটুর জন্য সোনা জিততে পারেননি চেরুইয়ত। লন্ডনে গতবার ১০ হাজার মিটারে ব্রোঞ্জ আর পাঁচ হাজার মিটারে রুপা জিতেছিলেন। এবার রিওতে আয়ানার পেছনে থেকে ১০ হাজার মিটারে জিততে হয়েছে রুপা। অবশেষে ৫ হাজার মিটারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আয়ানাকেই পেছনে ফেলে অলিম্পিকে প্রথম সোনা জেতার স্বাদ পেলেন ৩২ বছর বয়সী এই দৌড়বিদ।

কেনিয়ার কোনো নারী অ্যাথলেট এই ইভেন্টে এর আগে সোনা জিততে পারেনি।

অলিম্পিক সোনার পদক ছাড়া আর সবাই ছিল চেরুইয়তের। ৫ হাজার ও ১০ হাজার মিটারে জিতেছেন দুটি করে মোট চারটি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা, যার শেষটি গত বছর বেইজিংয়ে ১০ হাজার মিটারে।

এবার রিওতে ১০ হাজার মিটারে সোনা হাতছাড়া হওয়ার প্রতিশোধ ঠিকই নিলেন ৫ হাজার মিটারে, যেখানে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আয়ানা।

রিওতে তাই পাল্টে গেল হিসেব। ১০ হাজারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জিতলেন পাঁচ হাজারে; পাঁচ হাজারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জিতলেন ১০ হাজারে।

গেমসের চতুর্দশ দিনে বাংলাদেশ সময় শনিবার সকালে চেরুইয়ত ১৪ মিনিট ২৬.১৭ সেকেন্ড সময় নিয়ে অলিম্পিক রেকর্ডও গড়েন।

সাংবাদিকদের তিনি বলেন, “এটা আমার চতুর্থ অলিম্পিক অথচ এর আগে আমার সোনার পদক ছিল না। আমি আমার জন্য, আমার স্বামী, সন্তান, অভিভাবকের জন্য খুবই খুশি। এটা হয়তো আমার জন্য শেষ অলিম্পিক, এ জন্য হয়তো সৃষ্টিকর্তা আমাকে সোনার পদক দিয়েছে।”

সবার চোখ ছিল গত সপ্তাহে বিশ্বরেকর্ড গুঁড়িয়ে ১০ হাজার মিটারের সোনা জেতা আয়ানার উপর। ইথিওপিয়ার এই তারকা এক সময় বিশাল ব্যবধানে এগিয়েও ছিলেন। কিন্তু শেষ দিকে চেরুইয়তকে ধরে ফেলেন তাকে। শেষে কেনিয়ার হেলেন অনসান্দো অবিরিরও পেছনে পড়ে ব্রোঞ্জ জিততে হয় আয়ানাকে।

সোনা জিততে পারলে অলিম্পিক ইতিহাসে একই গেমসে ৫ ও ১০ হাজার মিটারে জেতা দ্বিতীয় নারী অ্যাথলেট হতে পারতেন আয়ানা। এই কীর্তি তার স্বদেশি তিরুনেশ দিবাবার একারই থাকল।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক