পিছলে গিয়ে সোনা হারালেন বাইলস, ভেভার্সের ইতিহাস

রিও গেমসে ব্যালেন্স বিমে সেরা হয়ে প্রথম ডাচ নারী হিসেবে অলিম্পিক জিমন্যাস্টিক্সে সোনা জিতেছেন সানে ভেভার্স। পিছলে পড়ে এই ইভেন্টে সোনার পদক হারিয়েছেন ফেভারিট সিমোনে বাইলস।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 August 2016, 02:11 AM
Updated : 16 August 2016, 02:23 AM
গেমসের দশম দিনে নিজের রুটিনে হঠাৎ পিছলে যান যুক্তরাষ্ট্রের জিমন্যাস্ট বাইলস, পতন ঠেকাতে বিমে হাত দিয়ে বসেন। এই ভুলের পর শেষ পর্যন্ত ব্রোঞ্জ পদক নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় রিওতে এখন পর্যন্ত তিনটি সোনা জেতা এই জিমন্যাস্টকে। 

নেদারল্যান্ডসের ভেভার্স ১৫.৪৬৬ স্কোর করে সেরা হন।

বাইলসের স্বদেশি ১৬ বছর বয়সী লরি হার্নান্দেজ ১৫.৩৩৩ স্কোর করে রুপা জেতেন। বাইলসের স্কোর ১৪.৭৩৩।

ভল্টে সে-গোয়াংয়ের ইতিহাস

উত্তর কোরিয়ার প্রথম জিমন্যাস্ট হিসেবে অলিম্পিক জিমন্যাস্টিক্সের ভল্টে সোনা জিতেছেন রি সে-গোয়াং। ১৫.৬৯১ স্কোর করে চ্যাম্পিয়ন হন তিনি।

দুবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন সে-গোয়াং দেশের দ্বিতীয় পুরুষ হিসেবে অলিম্পিক জিমন্যাস্টিক্সে সোনা জিতলেন। এর আগে ১৯৯২ সালে বার্সেলোনা অলিম্পিকে পমেল হর্সে সেরা হয়েছিলেন পায়ে গিল-সু।

সে-গোয়াংয়ের চেয়ে ০.১৭৫ পয়েন্ট কম স্কোর করে রুপা জেতেন রাশিয়ার দেনিস আবলিয়াজিন।

নিজের প্রিয় ইভেন্ট ফ্লোর এক্সারসাইজে পদক জিততে না পারা জাপানের কেনজো শিরাই এখানে ১৫.৪৪৯ স্কোর করে ব্রোঞ্জ জেতেন।

রিংয়ে সেরা গ্রিক পেত্রোউনিয়াস

জিমন্যাস্টিক্সের রিংয়ে সোনা জিতেছেন গ্রিসের এলেফথেরিওস পেত্রোউনিয়াস।

২৫ বছর বয়সী এই বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন তার রুটিনে ১৬ স্কোর করেন।

২০১২ সালের লন্ডন অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলের আর্থার জানেত্তি ১৫.৭৬৬ স্কোর করে রুপা জেতেন।     

দেনিস আবলিয়াজিন ১৫.৭ স্কোর করে ব্রোঞ্জ জেতেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক