সোনা দিয়েই শেষ ফেলপসের

আরেকটি সোনা জিতে রিও অলিম্পিক থেকে বিদায় নিলেন মাইকেল ফেলপস। ছেলেদের ৪*১০০ মিটার মেডলি রিলেতে সোনা জিতেছে ফেলপসের যুক্তরাষ্ট্র দল।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 August 2016, 02:32 AM
Updated : 14 August 2016, 01:25 PM

সর্বকালের সেরা এই সাঁতারুর সোনার সংখ্যা দাঁড়ালো ২৩টিতে! আগের দিনই দিয়েছিলেন চূড়ান্ত অবসরের ঘোষণা। ক্যারিয়ারে শেষ রেসও জীবন্ত এই কিংবদন্তি সোনা জিতলেন।

রিও অলিম্পিকের অষ্টম দিনে বাংলাদেশ সময় রোববার সকালে হওয়া সাঁতারের শেষ ইভেন্টে সবাই অপেক্ষায় ছিল ফেলপসের আরেকটি সোনা জেতার অপেক্ষায়। রায়ান মারফি ব্যাকস্ট্রোকে ১০০ মিটারের বিশ্ব রেকর্ড ভেঙে যুক্তরাষ্ট্রকে দুর্দান্ত সূচনাও এনে দিয়েছিলেন। কিন্তু দ্বিতীয় লেগে ব্রেস্টস্ট্রোকে যুক্তরাজ্যের অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন অ্যাডাম পিটি দলকে ষষ্ঠ থেকে প্রথম স্থানে নিয়ে আসেন।

তৃতীয় লেগে পানিতে ঝাঁপিয়ে বাটারফ্লাইয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে লিড এনে দেন ফেলপস। শেষ লেগ ফ্রিস্টাইলে তা ধরে রাখেন ন্যাথান অ্যাড্রিয়ান। নতুন অলিম্পিক রেকর্ড গড়তে সময় লাগে তিন মিনিট ২৭.৯৫ সেকেন্ড।

১৯৬০ সাল থেকে কেবল ১৯৮০ সালের মস্কো অলিম্পিক ছাড়া যুক্তরাষ্ট্র দল এই ইভেন্টে সোনা জিতল। মস্কোর আসর বয়কট করেছিল যুক্তরাষ্ট্র।

রেস শেষে ফেলপস দুই হাত তুলে দর্শকদের অভিবাদনের জবাব দেন। তার ছেলে বুমারকে কোলে নিয়ে থাকা প্রেমিকা নিকোলের চোখে তখন জল।

৩১ বছর বয়সী ফেলপসের রিও অলিম্পিকে দুটি ব্যক্তিগত ও তিনটি দলীয় সোনা জেতা হয়েছে। লন্ডনে গত অলিম্পিকে চারটি সোনার পদক গলায় ঝুলিয়েছিলেন তিনি। এর আগে ২০০৪ সালে এথেন্সে ৬টি আর বেইজিংয়ে আটটি সোনা জেতেন সর্বকালের সেরা এই অলিম্পিয়ান।

রিও অলিম্পিকে নিজের প্রথম সোনা ফেলপস পেয়েছিলেন গেমসের দ্বিতীয় দিনে সতীর্থদের সঙ্গে ৪*১০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলেতে। এতে প্রথম সাঁতারু হিসেবে অলিম্পিকের চারটি আসরে সোনা জেতা হয়ে যায় তার।

চতুর্থ দিন প্রিয় ইভেন্ট ২০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ের সোনার পদকটা গলায় ঝুলিয়েই আবার সুইমিংপুলে নেমে জেতেন ৪*২০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলের সোনা। টানা চার অলিম্পিকে এই ইভেন্টে সোনাজয়ী যুক্তরাষ্ট্র দলের সদস্য হিসেবে থেকে আরেকটি রেকর্ড গড়েন ফেলপস ও তার সতীর্থ রায়ান লোকটি। আর কোনো সাঁতারু অলিম্পিকে এক ইভেন্টে চারটি সোনা জেতেননি।

তবে ওই রেকর্ডটি ছিল দলীয়। রিওর ষষ্ঠ দিন ২০০ মিটার ব্যক্তিগত মেডলিতে সোনা জিতে টানা চার আসরে কোনো ব্যক্তিগত ইভেন্টে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার অনন্য নজির গড়েন ফেলপস। অলিম্পিক ইতিহাসে আর কোনো সাঁতারু কোনো ব্যক্তিগত ইভেন্টে টানা চারটি সোনা জিততে পারেনি।

অলিম্পিকের সব ক্রীড়া মিলিয়ে ব্যক্তিগত কোনো ইভেন্টে টানা চারটি সোনা আছে আর দুই জনের। দুইজনই ফেলপসের স্বদেশি। লং জাম্পে কার্ল লুইস আর ডিসকাস থ্রোতে অ্যাল অর্টার।

সপ্তম দিন ১০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে দ্বিতীয়বার এই দৃষ্টান্ত দেখাতে পারেননি। পেছনে পড়েন সিঙ্গাপুরের জোসেফ স্কুলিংয়ের। তবে সাঁতারের শেষ দিন ৪*১০০ মিটার মেডলি রিলেতে জেতায় সোনার পদক নিয়েই ক্যারিয়ার শেষ করলেন ফেলপস।

অবসর ভেঙে পঞ্চম অলিম্পিকে এসেছিলেন এই জলদানব। ক্যারিয়ারের শেষপ্রান্তে এসে ৩১ বছর বয়সী ফেলপসের ঝুলিতে এখন অলিম্পিকের ২৩টি সোনা, ৩টি রুপা ও ২টি ব্রোঞ্জ নিয়ে মোট ২৮টি পদক!

মোট ১৮টি পদক নিয়ে ফেলপসের অনেক পরে আছেন সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের জিমন্যাস্ট লারিসা লাতিনিনা। আর সোনার পদকের হিসেবে তো তার ধারেকাছেই কেউ নেই। ৯টি করে সোনা লাতিনিনা, ফিনল্যান্ডের দূরপাল্লার দৌড়বিদ পাভো নুরমি, যুক্তরাষ্ট্রের সাঁতারু মার্ক স্পিত্স ও স্প্রিন্টার কার্ল লুইসের।

যুক্তরাষ্ট্রের হাজারতম সোনা

পুরুষ দলের আগেই ৪*১০০ মিটার মেডলি রিলেতেও সেরা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মেয়েরা। এর মধ্য দিয়ে অলিম্পিকের সব আসর মিলিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সোনার পদক হলো ১ হাজার।

এই হাজার সোনার পদকের অর্ধেকের বেশি এসেছে ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ড (৩২৩) ও সাঁতার (২৪৬) থেকে।

মাইলফলকে পৌঁছার সম্মানটা ক্যাথলিন বেকার, লিলি কিং, ডানা ভলমান ও সিমোনে মানুয়েলের। তাদের সময় লাগে ৩ মিনিট ৫৩.১৩ সেকেন্ড।

অস্ট্রেলিয়া রুপা ও ডেনমার্ক ব্রোঞ্জ পেয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক