রিওর পরে অবসরের সিদ্ধান্তে অটল ফেলপস

না মানে না-ই। সতীর্থ আর বিশ্বজোড়া ভক্তদের অনেক অনুনয়ের পরও অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসছেন না মাইকেল ফেলপস।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 13 August 2016, 07:01 PM
Updated : 16 Oct 2016, 11:17 AM

আগেই জানিয়ে রেখেছিলেন, রিও দে জেনেইরো অলিম্পিক শেষে অবসর নেবেন। ৩১ বছর মার্কিন সাঁতারু তার সিদ্ধান্তে অটল থাকার কথা জানিয়ে দেন। অবসরের সিদ্ধান্ত বদলাবেন কিনা, সংবাদিকদের এই প্রশ্নে এক শব্দে উত্তর দেন তিনি, ‘না’।

লন্ডন অলিম্পিকের পর একবার অবসর নিয়েছিলেন ফেলপস। রিও অলিম্পিকে অংশ নিতে অবসর ভেঙে আবার পুলে নেমেছিলেন তিনি। কিন্তু এবার আর এই কাজ করবেন না বলে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ এই জলদানব।

“আর নয়। এই শেষ। এটা আমি আগে অনেকবার বলেছি। কিন্তু আমি এটা করছি না। আর নয়। লন্ডনে হলফ করে বলেছিলাম, আর ফিরব না এবং এটা চূড়ান্ত। এখানে কাগজ থাকলে, আগামীকাল আমি সই করে দিতাম।”

রিওতে এখন পর্যন্ত দুটি ব্যক্তিগত ও দুটি দলীয় সোনা নিয়ে মোট ৫টি পদক জেতেন ফেলপস। লন্ডনে গত অলিম্পিকেও চারটি সোনার পদক গলায় ঝুলিয়েছিলেন তিনি। এর আগে ২০০৪ সালে এথেন্সে ৬টি আর বেইজিংয়ে আটটি সোনা জেতেন সর্বকালের সেরা এই অলিম্পিয়ান।

অলিম্পিকে সব মিলিয়ে রেকর্ড ২৭টি পদক জিতেছেন ফেলপস। ১৮টি পদক নিয়ে ফেলপসের পরে আছেন সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের জিমন্যাস্ট লারিসা লাতিনিনা। আর সোনার পদকের হিসেবে তো তার ধারেকাছেই কেউ নেই। ৯টি করে সোনা লাতিনিনা, ফিনল্যান্ডের দূরপাল্লার দৌড়বিদ পাভো নুরমি, যুক্তরাষ্ট্রের সাঁতারু মার্ক স্পিত্স ও স্প্রিন্টার কার্ল লুইসের।

ক্যারিয়ারে যা করতে চেয়েছেন তার সবকিছু ঠিকভাবে করতে পারায় দারুণ সন্তুষ্ট ফেলপস। 

“যেভাবে চেয়েছি সেভাবে এই খেলায় দ্বার বন্ধ করতে পেরে আমি এখন খুশি। অবসর নিতে তৈরি আমি। আমি এটা নিয়ে খুশি। চার বছর আগের তুলনায় এবার আমার মানসিক অবস্থা ভালো। আমি (ছেলে) বুমার আর (প্রেমিকা) নিকোলের সঙ্গে কিছু সময় কাটাতে চাই।”

টোকিওতে ২০২০ সালের অলিম্পক গেমসে অংশ না নিলেও উপভোগ করতে যাবেন বলে জানান ফেলপস।  

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক