সোনারগাঁয়ে বিয়ের দাবিতে অবস্থান, নারীকে ‘পিটিয়ে হত্যা’

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে বিয়ের দাবিতে এক ব্যক্তির বাড়িতে অবস্থান নেওয়া স্বামী পরিত্যক্তা এক নারীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 July 2022, 05:16 PM
Updated : 18 July 2022, 05:16 PM

সোমবার দুপুরে সাদিপুর ইউনিয়নের হিনানপুর দেওয়ান বাড়ি গ্রামে ৩৮ বছর বয়সী ওই নারীকে পেটানোর অভিযোগ করা হয়।

পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

এ নারীর লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেখে তার ‘পরকীয়া প্রেমিক’ মনির হোসেন, মনিরের স্ত্রী ও ছেলে পালিয়ে যান বলেও অভিযোগ করা হয়।

ওই নারীর লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে বলে জানান হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া।

পুলিশ জানিয়েছে, এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এর আগে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় ওই নারীর মা বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছিলেন।  

তালতলা ফাঁড়ি পুলিশের এসআই মো. রাজু আহম্মেদ জানান, উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের  হিনানপুর দেওয়ান বাড়ি গ্রামের মৃত রাজু মিয়ার ছেলে মনির হোসেনের সঙ্গে বাইশটেকি গ্রামের স্বামী পরিত্যক্তা এই নারীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্কও হয়।

এ বিষয়টি উভয়ের পরিবারসহ এলাকার লোকজন অবগত রয়েছেন বলে অভিযোগে বলা হয়। 

এসআই রাজু বলেন, সোমবার ভোরে মনিরের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অবস্থান নেন এই নারী। এ সময় মনিরের বাড়ির লোকজন তাকে একাধিকবার বাড়ির বাইরে টেনে-হিঁচড়ে বের করে দেয়। কিন্তু তিনি অনড় থাকায় দুপুরে মনির হোসেনসহ ৭-৮ জনের একটি দল এসএস পাইপ, লোহার রড দিয়ে তাকে পিটিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করেন।

“মুমূর্ষু অবস্থায় মনির হোসেন, তার ছেলে ও স্ত্রী মেয়েটিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালে নেওয়ার পর জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।”

এ খবর পেয়ে মনির হোসেন ও তার পরিবারের লোকজন লাশ রেখেই মোবাইল বন্ধ করে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যান বলে রাজু জানান। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দক্ষিণ বাইশটেকি গ্রামের একাধিক নারী পুরুষ জানিয়েছেন, মনির হোসেনের বাড়ির লোকজনের একাধিক বিয়ের রেওয়াজ রয়েছে। সকাল থেকে অবস্থান নেওয়া ওই নারীকে মনির হোসেন ও তার বাড়ির লোকজন একাধিকবার পিটিয়েছে। মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকা নিয়ে গেছে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফাঁড়ি ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া জানান, ওই নারীর লাশ মর্গে রাখা হয়েছে। যারা এ নারীকে হাসাপাতালে নিয়ে এসেছে তারা মৃত্যুর সংবাদ পাওয়ার পর হাসপাতাল থেকে পালিয়ে গেছে।

সোনারগাঁ থানার ওসি মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান বলেন, এক নারীকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় একটি অভিযোগ গ্রহণ করা হয়েছে। ওই নারীর মৃত্যু হওয়ার কারণে মামলাটি হত্যা মামলায় রূপান্তর হবে। 

ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান। 

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক