কুমিল্লায় জামায়াতের কাউন্সিলরকে হত্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ১ নম্বর ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত কাউন্সিলর কাজী গোলাম কিবরিয়াকে নির্বাচনী বিরোধে পরিকল্পিতভাবে হত্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে বলে দাবি করেছে পরিবার।

কুমিল্লা প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 July 2022, 05:07 AM
Updated : 6 July 2022, 05:17 AM

মঙ্গলবার বিষ্ণপুর মুন্সেফ কোয়ার্টার এলাকায় ওই কাউন্সিলরের বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য দেন তার স্ত্রী আমেনা খাতুন। এ সময় কাউন্সিলর কিবরিয়ার মা সেতারা বেগম, মেয়ে নাফিসা কিবরিয়া আফরা উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাচন চলাকালে অটোরিকশা চালক ইয়াছিন হোসেন রবির মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় হত্যা মামলা করেন তার মা। সেখানে কাউন্সিলরকে দুই নম্বর আসামি করা হয়েছে।

জামায়াতের কুমিল্লা মহানগর কমিটির সদস্য কিবরিয়া বর্তমানে পূজামণ্ডপ ও মন্দিরে সহিংসতার মামলায় কারাগারে আছেন। প্যারোলে মুক্তি নিয়ে মঙ্গলবার তিনি তৃতীয়বারের মতো কাউন্সিলর পদে শপথ নিয়েছেন।   

একই দিন করা সংবাদ সম্মেলনে কাউন্সিলরের স্ত্রী বলেন, গত দুইবারের মতো এবারও শত চেষ্টা করে কিবরিয়াকে নির্বাচনে পরাজিত করতে না পেরে নতুন ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। ইয়াছিন হোসেন রবি যেদিন অপমৃত্যুর শিকার হন, তখন কিবরিয়া নির্বাচনে ব্যস্ত ছিলেন। তার সঙ্গে প্রতিনিয়ত ৩০-৪০ জন কর্মী থাকতেন।

“ইয়াছিন হোসেন রবিকে আমার স্বামী কোনোদিন চোখে দেখেননি। তার পরিবার, আত্মীয়ের সঙ্গে আমার স্বামীর কোনো শত্রুতা ছিল না। রবি কাউন্সিরর কিবরিয়ার এলাকার বাসিন্দাও না। তার বাড়ি আমাদের বাসা থেকে চার-পাঁচ কিলোমিটার দূরে। প্রতিপক্ষ সিটি নির্বাচনে পরাজিত হয়ে সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে মিথ্যা, বানোয়াট ও ষড়যন্ত্রমূলক হত্যা মামলায় তাকে ফাঁসিয়েছে।”

কাউন্সিলর কাজী গোলাম কিবরিয়া। ফাইল ছবি

গত ৮ জুন নগরীর কাছের টিক্কারচর এলাকার গোমতি নদীর ব্রিজের নিচ থেকে পুলিশ ইয়াছিন হোসেন রবির মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় ওইদিনই থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়।

পরে ২১ জুন আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন রবির মা নগরীর ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের বজ্রপুর কাশারিপট্টি এলাকার বাসিন্দা শিরিন আক্তার। মামলায় পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও চার থেকে পাঁচজনকে আসামি করা হয়।

রোববার সন্তান হত্যার বিচার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন শিরিন আক্তার। তিনি অভিযোগ করেন, কাউন্সিলর গোলাম কিবরিয়ার নেতৃত্বে তার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে। তিনি ছেলের হত্যাকারীদের ফাঁসি চান।

আরও পড়ুন:

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক