পদ্মা সেতু: ঢাকা থেকে সাড়ে ৫ ঘণ্টায় পটুয়াখালী

পদ্মা সেতু দিয়ে বাসে করে ঢাকা থেকে পটুয়াখালী পৌঁছেছেন পাঁচ থেকে সাড়ে পাঁচ ঘণ্টায়; অথচ আগে এই পথ পাড়ি দিতে ফেরি ঘাটেই পাঁচ থেকে ছয় ঘণ্টা বসে থাকতে হতো। 

পটুয়াখালী প্রতিনিধিসঞ্জয় কুমার দাস, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 June 2022, 03:52 PM
Updated : 26 June 2022, 03:52 PM

রোববার সকাল ৮টায় ঢাকার সায়দাবাদ থেকে সাকুরা পরিবহনের একটি বাস দুপুর দেড়টার দিকে পটুয়াখালী চৌরাস্তায় এসে পৌঁছায়। একই সময় রাজধানীর আরামবাগ থেকে গ্রিন লাইন পরিবহনের একটি এসি বাস দুপুর ২টায় পটুয়াখালী চৌরাস্তায় এসে পৌঁছায়।

গ্রিন লাইন পরিবহনের চালক মো. ইয়াসিন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় আমাদের গ্রিন লাইন পরিবহন কুয়াকাটায় যাচ্ছে। ঢাকা-কুয়াকাটা মহাসড়কের যেসব স্থানে রাস্তা সরু আছে সেগুলো প্রশস্ত করতে হবে। না হলে গ্রিন লাইনের মতো পরিবহন চলাতে ঝুঁকিতে পড়তে হবে এবং দুর্ঘটনা বেড়ে যাবে।”

শনিবার মহাধুমধামে দেশের সবচেয়ে বড় পদ্মা সেতুর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে যানবাহনের জন্য খুলে দেওয়া হয় রোববার সকাল থেকে। সেতু চালুর আগে যাত্রীদের পদ্মা সেতু পার হয়ে রাজধানীতে পৌঁছাতে হতো। দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটের ফেরির জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টায় অপেক্ষায় থাকতে হতো তাদের।

পদ্মা সেতু হওয়ায় খুব খুশি পটুয়াখালীর মানুষ। এই পথে তাদের সময় অনেক কম লাগবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এর ফলে ‘সমুদ্রকন্যা’ কুয়াকাটায় পর্যটন অনেক বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে। অবশ্য পটুয়াখালীর অনেক যাত্রী নৌপথে লঞ্চে করেও ঢাকায় আসেন। সেক্ষেত্রে তাদের অনেক সময় লেগে যায়।

সকালে ঢাকার সায়দাবাদ থেকে বরিশালের নথুল্লাহবাদ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে বাসগুলো পৌঁছেছে প্রায় চার ঘণ্টায়। ঢাকা থেকে বরিশালের দূরত্ব ১৬০ কিলোমিটার। ঢাকা থেকে পটুয়াখালীর দূরত্ব প্রায় ২০০ কিলোমিটার এবং কুয়াকাটা পর্যন্ত দূরত্ব প্রায় পৌনে ৩০০ কিলোমিটার।   

ঢাকা থেকে কুয়াকাটা পর্যন্ত বাসগুলোতে আটটি সেতুতে টোল দিতে হচ্ছে আর বরিশাল পর্যন্ত টোল দিতে হবে পাঁচ জায়গায়। 

সাকুরা পরিবহনের সুপারভাইজার সোহেল খান জানান, পদ্মা সেতুর টোল দুই হাজার টাকা, দোয়ারিকা-শিকারপুর ২০০ টাকা, দপদপিয়া সেতু ১৪০ টাকা, লেবুখালীর পায়রা সেতু ৩৪০ টাকা, পটুয়াখালী সেতু ১৩০ টাকা, কলাপাড়া শেখ কামাল সেতু ১২০ টাকা, হাজীপুর শেখ জামাল সেতু ১২০ টাকা, কুয়াকাটার সর্বশেষ আলীপুর শেখ রাসেল সেতুতে ১২০ টাকা হারে টোল দিতে হয়।

সোহেল খান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “সায়েদাবাদ থেকে সকাল ৮টায় যাত্রা শুরু করে দুপুর দেড়টায় পটুয়াখালীতে পৌঁছলাম। পথে ৪০ মিনিট কাউন্টার টাইম, পদ্মা সেতুতে ২০ মিনিটের জ্যাম, তারপরও আজকে পদ্মা সেতু পার হয়ে পটুয়াখালীতে এসে পাঁচ ঘণ্টায় পৌঁছলাম। এ যাত্রা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না।”

“আগে ফেরি ঘাটের যে ভোগান্তি, যাত্রীদের ডাকাডাকি সব মিলিয়ে পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রী পরিবহনের দুর্ভোগ লাঘব হয়েছে।”

সাকুরা পরিবহনের চালক মো. মনির হোসেন বলেন, “আগে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ফেরি পার হয়ে ঢাকায় যেতে ১২ থেকে ১৪ ঘণ্টা লাগত। সেতু হওয়ায় অসহনীয় ভোগান্তি দূর হলো। মাওয়া ঘাটে দুই হাজার টাকা ফেরি ভাড়া দিতে হতো। এখনও টোল দুই হাজার টাকা। কিন্তু পাঁচ ঘণ্টায় আসতে পারছি।

“তবে এখন মহাসড়ক চার লেন করার দাবি আমাদের। আর একটি বিষয় হলো মহাসড়কের তিন চাকার ধীরগতির যান চলাচলের বিকল্প চিন্তা করতে হবে। না হলে সড়কে দুর্ঘটনা বেড়ে যাবে।”

সাকুরা পরিবহনের পটুয়াখালী কাউন্টার ইনচার্জ মো. বদরুল আলম জানান, আগে পটুয়াখালী থেকে সায়েদাবাদের ভাড়া ছিল ৬৫০ টাকা। পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় বর্তমানে ভাড়া ৫৫০ টাকা। এখন যাত্রীদের চাপ বাড়বে।

গ্রিন লাইন পরিবহনের সুপারভাইজার মো. কাওছার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, গ্রিন লাইন এই পথে প্রথম এসেছে। পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় আমাদের কোম্পানির বাস এই প্রথম কুয়াকাটায় আসতে পেরেছে।

ভাড়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমাদের সার্ভিস এই প্রথম। আমরা ঢাকার আরামবাগ থেকে ছেড়ে বরিশাল-পটুয়াখালী হয়ে কুয়াকাটা পর্যন্ত এক হাজার ৪০০ টাকা ভাড়া নেই। পটুয়াখালীর ভাড়া এক হাজার ২০০ টাকা।

গ্রিন লাইন পরিবহনের যাত্রী ইসরাত জাহান বলেন, “পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর প্রথম সেতু পার হলাম। সব মিলিয়ে আজকে জার্নিটাও স্বপ্নের মতো লাগল।”

সাকুরা পরিবহনের যাত্রী পটুয়াখালীর বাসিন্দা নাদিরা জামান বলেন, “একদিন ছিল যখন ঝড়-বন্যায় পটুয়াখালী থেকে ঢাকায় লঞ্চে যেতে ভয় করত। সড়ক পথে ঢাকা যেতে তখন সময় লাগত কমপক্ষে ১০ থেকে ১২ ঘণ্টা।

“কিন্তু পদ্মা সেতু দিয়ে ঢাকায় যেতে সময় লাগবে পাঁচ ঘণ্টা। তাই এখন পটুয়াখালী থেকে সকাল ৮টায় পরিবহনে রওনা দিয়ে পদ্মা সেতু পার হয়ে বনানীর বাসায় গিয়ে লাঞ্চ করতে পারব”, যোগ করেন নাদিরা জামান।

পটুয়াখালী শহরের আবৃত্তি সরকার সাকুরা পরিবহনে ঢাকা থেকে কম সময়ে পৌঁছে আনন্দিত।

তিনি বলেন, “আজ মনে হয় ঢাকা খুব কাছে চলে এসেছে। সকালে রওনা দিয়েছি, এখন দেড়টা বাজে। বাসায় যাব, ফ্রেশ হব, দুপুরের খাবার খাব। খুব আনন্দ লাগছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক