গাড়ির অভাবে চলেনি শিমুলিয়া-মাঝিরকান্দি ফেরি: বিআইডব্লিউটিএ

পদ্মা সেতু চালুর দিনে ঘাটে গাড়ি না আসায় শিমুলিয়া ও মাঝিরকান্দি রুটে ফেরি চলাচল করেনি বলে বিআইডব্লিউটিএ জানিয়েছে। তবে স্পেডবোট ও লঞ্চ চলাচল করেছে।

শরীয়তপুর প্রতিনিধিমুন্সীগঞ্জ ও বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 June 2022, 02:50 PM
Updated : 26 June 2022, 02:51 PM

রোববার মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া থেকে কোনো ফেরি শরীয়তপুরের মাঝিরকান্দি যায়নি এবং মাঝিরকান্দি থেকে কোনো ফেরি শিমুলিয়া যায়নি।  

শিমুলিয়া ঘাটের সহ-মহাব্যবস্থাপক শফিকুল ইসলাম জানান, দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১টি জেলার প্রবেশদ্বার মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট ছিল অনেকটা ফাঁকা। এতদিন এই ঘাট দিয়েই ওই অঞ্চলের যাত্রীরা লঞ্চ, স্পিডবোট বা ফেরি করে পাড়ি দেয় উত্তাল পদ্মা। ঘাট ছিল সরগরম।

“কিন্তু আজকে চিত্র পুরোটাই উল্টো। শিমুলিয়া মাঝিরকান্দি রুটে সকাল থেকে কোনো ফেরি ছেড়ে যায়নি বা মাঝিরকান্দি থেকেও শিমুলিয়া ঘাটে কোনো ফেরি আসেনি।”

শফিকুল ইসলাম বলেন, সকাল থেকে এই ঘাটে কোনো ধরনের যান আসেনি; এমনকি কোনো পণ্যবাহী পিকাপ, ট্রাকও আসেনি। এই ঘাটের ইতিহাসে এটা বিরল ঘটনা। তাই কোনো ঘাট থেকে ফেরি ছেড়ে যায়নি।

শনিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর রোববার ভোর ৬টা থেকে যান চলাচলের জন্য তা খুলে দেওয়া হয়। এর প্রভাব পড়েছে ফেরি, লঞ্চ ও স্পিডবোট ঘাটে।

ঘাট এলাকা অনেকটাই যানবাহন শূন্য ও কোলাহলমুক্ত দেখা গেছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) শিমুলিয়া বন্দর কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন বলেন, রোববার সকাল থেকেই ঘাট থেকে লঞ্চ-স্পিডবোট যথানিয়মে চলাচল করছে, তবে যাত্রীর সংখ্যা অনেকটাই কম। সকাল থেকে সীমিত আকারে স্পিডবোট ও লঞ্চ চলছে।

“যেখানে ১৫৫টি স্পিডবোট দিয়ে যাত্রী পার করে কুলানো যেত না সেখানে ১২টি স্পিডবোট, আর ৮৭টি লঞ্চের মধ্যে ৮টি লঞ্চ শিমুলিয়া থেকে মাঝিরকান্দি ও বাংলাবাজারের উদ্দেশে ঘাট ছেড়েছে। এতেও কম যাত্রী নিয়েই পদ্মা পাড়ি দিয়েছে।”

শরীয়তপুরের মঙ্গলমাঝি ঘাটের ইজারাদার মোকলেছ মাদবর বলেন, গাড়ি না থাকায় রোববার কোনো ফেরি ঘাট ছেড়ে যায়নি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক