নরসিংদীতে পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতি, গ্রেপ্তার ৫

নরসিংদীর রায়পুরা ‍উপজেলায় পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতির অভিযোগে পাঁচজন গ্রেপ্তার হয়েছেন।

নরসিংদী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 24 June 2022, 04:16 PM
Updated : 24 June 2022, 04:16 PM

গ্রেপ্তারকৃতরা পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতি ছাড়াও বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড চালাচ্ছিলেন বলে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পশ্চিম মেড্ডা এলাকার ইসমাইল মিয়ার ছেলে জয়নাল আবেদীন (৪৮), মধ্যমেড্ডা এলাকার ঝারু মুন্সীর ছেলে মো. রাজিব মিয়া (৩৩), একই এলাকার মজিবুর রহমানের ছেলে মো. শাহাজাহান মিয়া (৬০), নবীনগরের জালাল মিয়ার ছেলে মো. জাহাঙ্গীর আলম (৫০) ও কুমিল্লার হোমনা উপজেলার দৌলতপুর গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে মো. নাজির আহম্মেদ (৫৮)।

পুলিশ কর্মকর্তা সাহেব আলী শুক্রবার দুপুরে সাংবাদিকদের বলেন, ভৈরবের ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেনের ছোট ভাই মো. আক্তার হোসেন (৩৪) গত ১৬ জুন বিকাল ৫টায় ভৈরব বাজার থেকে ব্যবসার কাজ শেষ করে বাড়ির উদ্দেশে মোটরসাইকেলে রওনা হন। তার কাছে দুই লাখ ১৭ হাজার ৫০০ টাকা, ১৮ লাখ ৫২ হাজার ৫০০ টাকার সৌদি রিয়াল ও পাঁচ হাজার ডলার ছিল। পথে রায়পুরার বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান নগর উত্তরপাড়া সেতুর কাছে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে ছয়-সাতজন পুলিশের পোশাক পরা লোক তার গতিরোধ করে। তারা তার সব মুদ্রা ছিনিয়ে নেয়। তাছাড়া তার দুটি মোবাইল ফোনও ছিনিয়ে নেয় তারা। পরে তার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে গেলে ডাকাতরা সাদা মাইক্রোবাসে করে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ব্যবসায়ী দেলোয়ার রোববার রায়পুরা থানায় মামলা করলে গোয়েন্দা পুলিশ তদন্তে নামে।

সাহেব আলী বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে দুই সেট পুলিশের পোশাক, একজোড়া হাতকড়া, একটি বেল্ট, ২০০ ডলার, ২০০০ সৌদি রিয়াল, ১১ হাজার টাকা ও ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত একটি গাড়ি উদ্ধার করা হয়।

“গ্রেপ্তাররা পুলিশ পরিচয়ে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড চালাচ্ছিল। জিজ্ঞাসাবাদে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় ১৬টি মামলা রয়েছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক