সিরাজগঞ্জে বজ্রপাতে নিহত বেড়ে ৩

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলায় বজ্রপাতে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে; তাছাড়া জেলায় আরও বজ্রপাতে আহত হয়েছেন চারজন।

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 June 2022, 10:33 AM
Updated : 17 June 2022, 02:37 PM

নিহতরা হলেন সদর উপজেলার কাওয়াকোলা ইউনিয়নের বর্নিরচর এলাকার দরবেশ আলীর ছেলে আব্দুর রাজ্জাক (৫০), সয়দাবাদ ইউনিয়নের জগতলার জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে নাসির উদ্দিন (২৩) এবং তাড়াশ সদর ইউনিয়নের বোয়ালিয়া গ্রামের প্রয়াত নারায়ণ চন্দ্রের ছেলে দুর্গাচরণ চন্দ্র (৫২)।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত বৃষ্টির সময় এসব বজ্রপাত হয় বলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশ জানিয়েছে।

কাওয়াকোলা ইউনিয় পরিষদ চেয়ারম্যান জিয়াউল হক জিয়া মুন্সী জানান, বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আব্দুর রাজ্জাকসহ কয়েকজন শ্রমিক নির্মাণকাজের জন্য নৌকায় করে ইট নিয়ে কাওয়াকোলার চরে যাচ্ছিলেন। পথে প্রচণ্ড বৃষ্টির সঙ্গে বজ্রপাত শুরু হয়। ব্যবসায়ী আব্দুর রাজ্জাক বজ্রাঘাতে আহত হয়ে নৌকার ওপর থেকে নদীতে পড়ে নিখোঁজ হন। ঘণ্টা খানেক পর স্থানীয়রা তার লাশ উদ্ধার করেন।

এ সময় আহত হন সাইফুল ও শামিম নামে দুই নির্মাণ শ্রমিক।   

তাছাড়া সদর উপজেলায় যমুনা নদীর ওপরে নির্মাণাধীন রেল সেতু এলাকায় বজ্রপাত হলে নাসির মারা যান।

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম থানার ওসি মোসাদ্দেক হোসেন জানান, বেলা সোয়া ১২টার দিকে নির্মাণাধীন রেল সেতুর পশ্চিম অংশে শিল্পপার্ক এলাকায় কাজ করছিলেন শ্রমিকরা। বৃষ্টির সময় অন্যরা নিরাপদে চলে গেলেও নিরাপত্তাকর্মী নাসির উদ্দিন একটি গাছের নিচে দাঁড়িয়ে ছিলেন। ওই সময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এছাড়াও বৃষ্টির সময় বাড়ির উঠানে বজ্রপাতে সদর উপজেলার সয়দাবাদ ইউনিয়নের ক্ষিদির বটতলা এলাকার শাহিনুর খাতুন ও কামারখন্দ উপজেলার চর বড়ধুল গ্রামের সাহিদা খাতুন আহত হন।

আহত সবাইকে সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে পুলিশ, জনপ্রতিনিধি ও স্বজনরা জানিয়েছেন।

দুর্গাচরণের স্বজনরা জানান, কৃষক দুর্গাচরণ বৃষ্টির আগে গ্রামের মাঠে কৃষিকাজ করতে গিয়েছিলেন। বৃষ্টির পরও বাড়ি ফিরে না আসায় খুঁজতে বের হন তারা। বজ্রপাতে আহত হয়ে মাঠের মধ্যে পড়েছিলেন তিনি। উদ্ধারের পর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আবু সায়েম জানান, হাসপাতালে পৌছার আগেই ওই কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। 

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক