কুমিল্লা পাসপোর্ট অফিসে সেবা গ্রহীতাকে ‘পিটুনি’: তদন্তের নির্দেশ

কুমিল্লা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে চেয়ারে বসায় তিন সেবা গ্রহীতাকে চেয়ার দিয়ে পিটুনি এবং দুই সাংবাদিককে লাঞ্ছিতের ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

কুমিল্লা প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 April 2022, 06:27 PM
Updated : 26 April 2022, 06:27 PM

মঙ্গলবার বিকালে কুমিল্লা ১ নম্বর আমলি আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মো. আব্বাস উদ্দিন স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এই আদেশ দেন।

আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ কুমিল্লার কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেনকে তদন্ত করে প্রতিবেদন আদালতে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

গত ১৮ এপ্রিল দুপুরে কুমিল্লা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের উপ-পরিচালক (ডিডি) তিন সেবা গ্রহীতাকে চেয়ার দিয়ে পিটিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

আর এ ঘটনার ভিডিও ধারণ করতে গেলে দুই সংবাদকর্মীর সঙ্গে অসদাচরণ করে তিনি একজনের মোবাইলফোন কেড়ে নেন বলেও অভিযোগ ওঠে।

এই দুই সংবাদিক হলেন ‘সাপ্তাহিক দুর্নীতির সন্ধানে’ পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি রকিবুল ইসলাম ওরফে ম্যাক রানা ও ‘দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার’ পত্রিকার প্রতিনিধি মো. সাফি।

এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়লে ঘটনাটি আদালতের নজরে আসে। এ ঘটনায় গণমাধ্যম সংবাদও প্রকাশ হয়।

কুমিল্লা ১ নম্বর আমলি আদালতের পেশকার খোরশেদ আলম আদালতের আদেশের বরাতে বলেন, পাসপোর্ট অফিসে কর্মকর্তার চেয়ারে বসায় তিন সেবা গ্রহীতাকে মারধর করেছেন কার্যালয়ের উপপরিচালক (ডিডি) মো. নুরুল হুদা। গণমাধ্যমে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত সংবাদটি আদালতের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। এই সংবাদ সত্য হয়ে থাকলে কার্যালয়ের উপপরিচালক নুরুল হুদা ফৌজদারি অপরাধ করেছেন। ওই সময়ে সংবাদকর্মী রাকিবুল ইসলাম ও সাফিকে দায়িত্ব পালনে বাধা দিয়েছেন তিনি। তাদের মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেওয়া আইনবিরোধী মর্মে আদালতের কাছে প্রতীয়মান হয়।

পেশকার খোরশেদ আলম বলেন, “জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মো. আব্বাস উদ্দিন স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এ আদেশ দিয়েছেন। আদেশের কপি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। তদন্তের সময় ওই সংবাদকর্মীদের সার্বিক সহযোগিতার করার জন্য বলা হয়েছে।”

র‌্যাব-১১ সিপিসি-২ কুমিল্লার কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ সাকিব বলেন, “আদালতের আদেশের কপি আমাদের কাছে এখনও আসেনি। কপি আসলে আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী তদন্ত কার্যক্রম শুরু করা হবে। আমরা আদালতে অবশ্যই সঠিক প্রতিবেদন দাখিল করব।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক