সুরভী লঞ্চে ‘ধোঁয়ার দৃশ্য ধারণ করায়’ যাত্রীদের মারধর

বরিশালে একটি লঞ্চের ইঞ্জিন রুম থেকে বের হওয়া ‘ধোঁয়ার দৃশ্য ধারণ করায়’ যাত্রীদের মারধর করেছে লঞ্চটির কর্মচারীরা; এ ছাড়া খবর সংগ্রহে যাওয়া গণমাধ্যমকর্মীরাও হামলার শিকার হন।

বরিশাল প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 Jan 2022, 02:28 PM
Updated : 9 Jan 2022, 02:28 PM

রোববার বেলা ১১টার দিকে বরিশাল নদী বন্দরে এমভি সুরভী-৯ লঞ্চে এ ঘটনা ঘটে বলে যাত্রীদের ভাষ্য।  

লঞ্চ কর্তৃপক্ষ সাংবাদিকদের উপর হামলার জন্য ক্ষমা চেয়েছে; এছাড়া এই ঘটনায় লঞ্চটির ব্যবস্থাপককে বরখাস্তের কথা জানানো হয়।  

লঞ্চটির যাত্রীদের অভিযোগ, শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সদরঘাট থেকে লঞ্চটি বরিশালের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। রাত সাড়ে ১২টার দিকে চাঁদপুরের মেঘনা নদীতে লঞ্চের ইঞ্জিন রুমে ধোঁয়া দেখা দেয়। এতে যাত্রীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। কেউ মোবাইলে ধোঁয়ার দৃশ্য ধারণ করে, কেউ ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দেয়, কেউ-বা জরুরি ৯৯৯ নম্বরে ফোন দেয়। তবে শেষ পর্যন্ত লঞ্চে আগুন লাগেনি বা কোনো ক্ষয়ক্ষতিও হয়নি। 

পরে লঞ্চটি চাঁদপুরের মোহনপুর এলাকায় নোঙর করতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। পরীক্ষা-নীরিক্ষার পর ভোরে সেটি আবার বরিশালের পথে রওনা দেয়।

ভোর ৫টায় লঞ্চটি বরিশালের উদ্দেশে ছাড়ার পর থেকেই স্টাফরা মোবাইলে ভিডিও ধারণ করা যাত্রীদের খুঁজতে থাকে বলে অভিযোগ করেন সুরভী-৯ লঞ্চের যাত্রী স্বপন দাস; যিনি নিজেও লঞ্চের স্টাফদের মারধরের শিকার বলে অভিযোগ করেন।

স্বপন বলেন, “সকাল সাড়ে ১০টার দিকে লঞ্চটি ঘাটে ভিড়লে আমরা নামতে যাই। তখন আমাকেসহ কয়েকজন যাত্রীকে মারধর করে স্টাফরা। খবরের সন্ধানে আসা টেলিভিশনের দুই ক্যামেরাম্যানকেও মারধর করা হয়।”

চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের বরিশাল ব্যুরোর ক্যামেরাপারসন রুহুল আমীন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আগুনে লঞ্চের ইঞ্জিন রুমে কী ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তার ফুটেজ আনতে সকালে ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের ক্যামেরাপারসন দেওয়ান মোহন ও আমি লঞ্চঘাটে যাই। এ সময় যাত্রীদের মারধরের দৃশ্য দেখে তা ক্যামেরায় ধারণ করতে গেলে স্টাফরা আমাদের ওপর হামলা চালায়। আমাকে ঘুষি মারে, মোহনকে লাঠি দিয়ে পেটায় লঞ্চের ব্যবস্থাপক মিজান।”

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) বরিশালের যুগ্ম পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, “আমার সামনেই যাত্রী ও সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। তারা যে সিদ্ধান্ত দেবে, সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে বলে জানিয়েছেন বরিশাল মহানগর পুলিশের সহকারী কমিশনার শারমিন সুলতানা রাখি।

তিনি জানান, লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে সুরভী লঞ্চের পরিচালক রেজিন উল কবীর বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ভাড়া বা অন্যান্য বিষয় নিয়ে যাত্রীদের সঙ্গে টুকটাক এমন ঘটনা ঘটেই থাকে। কিন্তু সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনা দুঃখজনক। আমি এজন্য ক্ষমা চাচ্ছি। এরই মধ্যে ম্যানেজার মিজানকেও বরখাস্ত করা হয়েছে।”

তবে লঞ্চের ব্যবস্থাপক মিজানের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক