সিদ্ধিরগঞ্জে বোমা উদ্ধার: মামলায় আসামি ‘জঙ্গিগোষ্ঠী’

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় ট্রাফিক পুলিশ বক্সের সামনে বোমা উদ্ধারের ঘটনায় মামলা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 May 2021, 10:00 AM
Updated : 19 May 2021, 10:00 AM

মঙ্গলবার রাতে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এসআই ফয়সাল আলম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি ও ‘জঙ্গিগোষ্ঠীর’ বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন।

সোমবার বিকেল ৪টার দিকে সাইনবোর্ড এলাকায় ট্রাফিক পুলিশ বক্সের সামনে একটি ব্যাগে একটি বোমা পাওয়া যায়। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বোমাটির বিস্ফোরণ ঘটিয়ে নিষ্ক্রিয় করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মশিউর রহমান বলেন, “পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি ও জঙ্গিগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেছে।”

এই ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত ও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

মামলায় বাদীর অভিযোগ, বাংলাদেশের অখণ্ডতা, সংহতি, জননিরাপত্তা ও সার্বভৌমত্ব বিনাশ, জনসাধারণের মধ্যে আতংক সৃষ্টির মাধ্যমে প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী ও সম্পত্তির ক্ষতি সাধনের উদ্দেশ্যে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি/ব্যক্তিরা ও জঙ্গিগোষ্ঠী এ বোমা ইমপ্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি) ট্রাফিক পুলিশ বক্সের সামনে রাখে।

সোমবার বিকাল ৪টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাইনবোর্ড এলাকায় ট্রাফিক পুলিশ বক্সের সামনে প্লাস্টিক ব্যাগের ভেতর বোমা সদৃশ্য বস্তু দেখতে পান ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট আসিফ হোসেন। পরে তিনি বিষয়টি জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানান।

খবর পেয়ে র‌্যাব ও পুলিশের সদস্যরা সাইনবোর্ডের ট্রাফিক পুলিশ বক্স ঘেরাও করে রাখে। জনসাধারণকে ঘটনাস্থল এড়িয়ে চলাচলের নির্দেশ দেওয়া হয়। খবর দেওয়া হয় ডিএমপির বম্ব ডিস্পোজাল ইউনিটকে। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বম্ব ডিসপোজাল ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পরে পরীক্ষা করে তারা বস্তুটিকে বোমা বলে নিশ্চিত করেন। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বোমাটি বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ধ্বংস করা হয়।

বোমাটি বিস্ফোরিত হলে ৩০ মিটারের ভেতরে কোনো স্থাপনা বা মানুষ থাকলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানি ঘটতে পারত বলে পুলিশ জানিয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক