নীলফামারীতে কারিগরী প্রশিক্ষণ কেন্দ্র উদ্বোধনে দুই মন্ত্রী

নীলফামারী শহরে নবনির্মিত একটি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র উদ্বোধন করেছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি।

নীলফামারী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Jan 2016, 03:31 PM
Updated : 22 Jan 2016, 03:31 PM

শুক্রবার সকালে শহরের কুখাপাড়ায় এ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উদ্বোধনের সময় নীলফামারীর স্থানীয় সংসদ সদস্য সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর কর্মসংস্থানমন্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনের পর এক আলোচনা সভায় বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নীলফামারী জেলাবাসীর জন্য চিন্তা করেন। তাই তিনি এই জেলার মানুষের জন্য ২০০১ সালে উত্তরা ইপিজেড স্থাপন করে দিয়ে জেলার হাজার হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন।"

"এখানে আজ কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন করালেন প্রধানমন্ত্রী, যাতে এই জেলার নারী-পুরুষ সবাই এখানে দক্ষতার সাথে প্রশিক্ষণ নিয়ে দেশে-বিদেশে কাজ করে নিজের, সমাজের ও দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখতে পারে।"

মন্ত্রী মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের শ্রমবাজার খুব শিগগির কার্যকর ভাবে চালু হবে বলে জানান।

জেলা শহরের কুখাপাড়ায় ২১ কোটি ৬৯ লাখ ৪৬ হাজার টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়েছে এই কারিগরী প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। এতে নিয়মিত ও স্বনির্ভর কোর্সের ১২টি ট্রেডে প্রতি বছর ৪৮০ জনের প্রশিক্ষণ নেওয়ার ব্যব্স্থা করা হয়েছে।

সাধারণ শিক্ষার চেয়ে যারা কারিগরি শিক্ষায় দক্ষতা অর্জন করে তাদের 'ভবিষ্যৎ উজ্জল' বলে উদ্বোধনীতে মন্তব্য করেন নীলফামারীর সংসদ সদস্য সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

তিনি বলেন, "আমাদের বিএ-এমএ পাস করার একটি প্রবণতা আছে, পৃথিবীর কোনো দেশে এই প্রবণতা নেই। যারা বিএ-এমএ পাস না করে যে কোনো কারিগরি প্রশিক্ষণ নিয়ে কাজে যোগ দেয়, তারা একজন বিএস-এমএ পাস মানুষের থেকে বেশি অর্থ উপার্জন করেন। "

তাই নিজের জন্য ও দেশের জন্য সাধারণ লেখাপড়ার পাশাপাশি কারিগরি প্রশিক্ষণ গ্রহণ করার জন্য নীলফামারীবাসীর প্রতি আহ্বান জানান সংস্কৃতিমন্ত্রী।

আসাদুজ্জামান নূর বলেন, "প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই জেলাবাসীকে নিয়ে উপলব্ধি করেছিলেন-এই জেলার মানুষ শুধু চাষাবাদের ওপড় নির্ভরশীল ছিল। এই চাষাবাদ করে নিজের অর্থনৈতিক সমাধান করতে পারছেনা।

"তাই তাদের অর্থনৈতিক সমাধানের জন্য ২০০১ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই জেলায় ইপিজেড প্রতিষ্ঠা করেন। আজ আবার প্রধানমন্ত্রী কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করলেন।"

কেন্দ্র থেকে নীলফামারীবাসী প্রশিক্ষণ নিয়ে দেশে বিদেশে চাকরি করে নিজের অর্থনীতির সমাধান করতে পারবে বলে মন্তব্য করেন নাট্যকর্মী নূর।

জেলা প্রশাসক মো. জাকীর হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা পর্বে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব খন্দকার মো. ইফতেখার হায়দার, জনশক্তি-কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালক কেগম শামছুন নাহার, জেলা পরিষদের প্রশাসক মমতাজুল হক, পুলিশ সুপার জাকির হোসেন খান ও নীলফামারী পৌরসভার মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভার আগে দুই মন্ত্রী প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের বিভিন্ন ট্রেড পরিদর্শন করেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক