আলালকে ‘নিঃশর্ত ক্ষমা’ চাইতে হবে: কাদের

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে ‘কটূক্তি করায়’ বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 Dec 2021, 01:07 PM
Updated : 9 Dec 2021, 02:41 PM

হুঁশিয়ার করে তিনি বলেছেন, “তা না হলে ধরে নেব, এটা বিএনপির দলীয় বক্তব্য। সেক্ষেত্রে আওয়ামী লীগ তা রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করবে।”

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বৃহস্পতিবার ওবায়দুল কাদেরের এই হুঁশিয়ারি আসে ।

আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠন ছাত্রলীগ এদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিএনপি নেতা আলালের কুশপুতুল পুড়িয়ে বিক্ষোভ দেখায়। এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী শাহবাগ থানায় লিখিত অভিযোগ করেন আলালের বিরুদ্ধে।

হাই কোর্ট ইতোমধ্যে আলালের ওই ‘কটূক্তিপূর্ণ বক্তব্য’ ইন্টারনেট থেকে সরিয়ে নিতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন- বিটিআরসিকে নির্দেশ দিয়েছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, “দেশবাসী বিস্মিত, ক্ষুব্ধ এবং লজ্জিত। বিএনপি নেতারা রাজনৈতিক শিষ্টাচারকে ভুলণ্ঠিত করেছেন। বিএনপি লালন করে প্রতিহিংসা, ষড়যন্ত্র আর পরশ্রীকাতরতা। তাদের মাঝে কৃতজ্ঞতাবোধ নেই, তারা কৃতঘ্ন। তারা জন্মলগ্ন থেকে রাজনীতির সুষ্ঠু ধারা এবং পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধের পরিবেশকে কলুষিত করে আসছে।

“আমি অশ্লীল বক্তব্য প্রদানকারী অভিযুক্ত বিএনপি নেতাকে জাতির কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।”

বিবৃতিতে বলা হয়, “বিএনপি এমনই এক দল যাদের কৃতজ্ঞতাবোধ কখনো ছিল না, এখনও নেই। দলগতভাবে তারা শিষ্টাচার বর্জিত দল। তা না হলে শোকসন্তপ্ত মাকে সান্তনা দিতে গিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যাকে তারা দরজা বন্ধ করে অসম্মানজনকভাবে ফিরিয়ে দিত না।

“গণভবনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চায়ের আমন্ত্রণের বিপরীতে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার সেদিনের অশালীন বক্তব্য সেসময় দেশবাসী শুনেছিল।”

বিএনপি নেতারা ‘অন্ধ এবং ফরমায়েশনির্ভর’ হয়ে গেছেন মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, “দলের একজন নেতা মিথ্যাচার করল, অশালীন কথা বলল অথচ সিনিয়র নেতারা তার পক্ষেই সাফাই গাইলেন।”

তিনি প্রশ্ন রাখেন, “আলালের এমন অরাজনৈতিক কুরুচিপূর্ণভাষাকে কীভাবে রাজনীতিতে সজ্জন বলে বিবেচিত মির্জা ফখরুল সাহেবরা ‘যৌক্তিকতা আছে’ বলে পাবলিকলি সার্টিফিকেট দেন? তাহলে জনগণ ধরে নিচ্ছে, তাদের সব অপপ্রচার আর বিষোদগারের মত লোক দেখানো ভদ্রতাও এক ধরনের মুখোশ।”

রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত কিছুতে আওয়ামী লীগ ‘সমর্থন দেয় না’ মন্তব্য করে কাদের বলেন, “দেশবাসী দেখেছে, একজন প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বহীন বক্তব্য এবং অসদাচরণের জন্য দেশরত্ন শেখ হাসিনা ছাড় দেননি।

“আর তার বিপরীতে দেশবাসী দেখল বিএনপি মহাসচিব জনাব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তার দলের একজন নেতার অশালীন বক্তব্যকে নির্লজ্জভাবে কীভাবে দলীয়ভাবে সমর্থন দিল।”

আরও পড়ুন

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক