আপনারাই আমার স্বজন: অশ্রুনয়নে খালেদা

জিয়া এতিমখানা দুর্নীতির মামলায় রায়ের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে এসে অশ্রুনয়নে নিজের সংগ্রামমুখর রাজনৈতিক জীবনে সমর্থন দেওয়ার জন্য জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন খালেদা জিয়া।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 Feb 2018, 02:26 PM
Updated : 7 Feb 2018, 03:06 PM

সরকারের ‘চাপে’ আদালতে ন্যায়বিচার পাওয়া নিয়ে সংশয়ী খালেদা কারাগারে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন। সেজন্য শান্তিপূর্ণ ও নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনের নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি।

স্বামী রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান নিহত হওয়ার গৃহবধূ থেকে রাজনীতির জটিল পথে নামা খালেদা জিয়া দুই বারে ১০ বছর প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলে এখন দুর্নীতির মামলায় রায় শোনার অপেক্ষায়।

ঢাকার আদালতে এই রায়ের আগের দিন বুধবার গুলশানে নিজের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসে তিনি নিজের স্বজনদের হারানোর কথা বলার সময় আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন।

খালেদা বলেন, “আমি কম বয়সে স্বামী হারিয়েছি। দেশের জন্য জিয়াউর রহমান জীবন দিয়েছেন। কারাগারে থাকতে আমি আমার মাকে (তৈয়বা মজুমদার) হারিয়েছি। অফিসে অবরুদ্ধ থাকা অবস্থায় আমি একটি সন্তান (ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকা) হারিয়েছি।”

এই পর্যায়ে কান্নার ভারে কণ্ঠ রুদ্ধ হয়ে আসে তার। এরপর তিনি বলেন, “আরেকটি সন্তান নির্যাতনে পঙ্গু হয়ে দূর দেশে এখনও চিকিৎসাধীন।”

স্বামী জিয়াউর রহমানের সঙ্গে খালেদা জিয়া

এরপর কিছুটা সামলে নিয়ে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার আন্দোলনে নিজের সম্পৃক্ততার কথা বলেন খালেদা।

তিনি বলেন, “দলের নেতা-কর্মীদের দাবিতে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় রাজনীতির বিপদসঙ্কুল পথে আমি পা বাড়িয়েছি। আরাম-আয়েশ, সুখ-শান্তি ও নিস্তরঙ্গ জীবন বিসর্জন দিয়েছি।”

রাজনীতির অঙ্গনে পা রাখার পর দুই সন্তান ও পরিবারকে সেভাবে সময় দিতে না পারার কথাও বলেন খালেদা।

তিনি বলেন, “আমার এই স্বজনহীন জীবনে দেশবাসীই আমার স্বজন। আল্লাহ আমার একমাত্র ভরসা। আমি যেমন থাকি, যেখানেই থাকি, যতক্ষণ বেঁচে থাকব, দেশবাসীকে ছেড়ে যাব না।”

খালেদা জিয়া সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন তার ঝঞ্ঝামুখ রাজনৈতিক জীবনের কথা

জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বিএনপিনেত্রী বলেন, “আমার প্রিয় দেশবাসী আমাকে তার প্রতিদান দিয়েছে অপরিমেয় ভালাবাসায়। প্রতিবারের নির্বাচনে পাঁচটি করে আসনে পর্যন্ত তারা আমাকে নির্বাচিত করেছেন। কোনো নির্বাচনে প্রার্থী হয়ে আমি আজ পর্যন্ত পরাজিত হইনি।

“জনগণের সমর্থনে দেশের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার গৌরব আমি অর্জন করেছি। তিন-তিনবার তারা আমাকে প্রধানমন্ত্রী করেছেন। এখনও আমি দেশের যে প্রান্তেই যাই, উচ্ছ্বসিত জনজোয়ারে আমি তাদের ভালোবাসায় সিক্ত হই। তাদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।”

সংবাদ সম্মেলনে ৩৬ মিনিটের বক্তব্যে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে খালেদা জিয়া বলেন, “আপনাদের খালেদা জিয়া কোনো অন্যায় করেনি। কোনো দুর্নীতি আমি করিনি। ন্যায়বিচার হলে আমার কিছু হবে না, আমি বেকসুর খালাস পাব।”

খালেদা জিয়া সাংবাদিকদের বলেছেন, আবার দেখা হবে

তবে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার ‘চাপের মুখে’ পদত্যাগের প্রেক্ষাপটে তার সন্দেহ, আদালত চাপ উপেক্ষা করে হয়ত রায় দিতে পারবে না।

তিনি আরও বলেন, “আদালত রায় দেওয়ার বহু আগেই শাসক মহল চিৎকার করে বলে বেড়াচ্ছে, ‘আমার জেল হবে’। যেন বিচারক নয়, শাসক মহলই রায় ঠিক করে দিচ্ছে।”

সংবাদ সম্মেলনে নিজের বক্তব্য দেওয়ার পর সাংবাদিকরা প্রশ্ন করতে চাইলে খালেদা জিয়া বলেন, “আজকে প্রশ্ন নিচ্ছি না, প্রশ্ন আরেকদিন। পরে আপনাদের সঙ্গে খোলামেলা কথা বলব, প্রশ্ন শুনব। এখন না।”

এরপর নিজের আসন থেকে উঠে সাংবাদিকদের হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি বলেন, “ইনশাল্লাহ, আবার দেখা হবে। আপনারা ভালো থাকবেন।”

কোনো দুর্নীতি আমি করিনি: খালেদা জিয়া

কোনো দুর্নীতি আমি করিনি: খালেদা জিয়া

 
তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক