দলাদলির সময় এটা নয়: ফখরুল

দেশে উগ্রবাদ ও সন্ত্রাসী হামলার হুমকি মোকাবেলায় ‘দলীয় সংকীর্ণতার’ ঊর্ধ্বে উঠে সরকারকে ‘জাতীয় ঐক্য সৃষ্টির’ তাগিদ দিয়েছে বিএনপি।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 July 2016, 09:07 AM
Updated : 5 July 2016, 09:07 AM

মঙ্গলবার নয়া পল্টনের দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, “দেশের মানুষ ভালো নেই। এখন কাদা ছোড়াছুড়ির সময় নয়, দলাদলির সময় নয়। দলমত নির্বিশেষে দেশনেত্রী যে আহ্বান করেছেন, তাতে সাড়া দিয়ে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলাটাই এখন সবচেয়ে বড় দায়িত্ব বলে আমরা মনে করছি।”

গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে নিহতদের স্মরণে ১২ জুলাই সারা দেশে বিএনপির পক্ষ থেকে শোক পালনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন ফখরুল।

তিনি বলেন, “আমরা আশা করব, সরকার ও সরকারি দল তাদের আত্মম্ভরিতা বাদ দিয়ে দলীয় সংকীর্ণতার ঊর্ধ্বে উঠে মানুষের স্বার্থে, দেশের বৃহত্তর কল্যাণে বিএনপির আহ্বানে সাড়া দেবে, জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করার উদ্যোগ নেবে।”

শুক্রবার রাতে গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে সন্ত্রাসীরা হামলায় ২০ জন নিহত হন, যাদের ১৭ জনই বিদেশি নাগরিক। সন্ত্রাসীদের ঠেকাতে গিয়ে বোমায় নিহত হন দুই পুলিশ কর্মকর্তা।

কূটনৈতিক এলাকায় এ ধরনের হামলা ‘সমগ্র জাতিকে স্তম্ভিত ও আতঙ্কিত করেছে’ মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এই পরিস্থিতিতে ‘জাতীয় ঐক্য’ গড়ে তোলার আহ্বান জানালেও ক্ষমতাসীন দলের নেতারা তা ‘প্রত্যাখ্যান’ করায় বিএনপি হতাশ।

“আমরা আশা করেছিলাম, দেশনেত্রীর বক্তব্যের পর সরকারের কাছে থেকে একটা ইতিবাচক সাড়া পাব। কিন্তু দুঃখজনকভাবে লক্ষ্য করছি, সরকারের কিছু মন্ত্রী, উচ্চ পর্যায়ের কিছু নেতৃত্ব বিষয়টিকে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করছেন এবং কিছু শর্ত জুড়ে দিচ্ছেন।

“এখানে শর্ত জুড়ে দেওয়ার প্রশ্নই থাকতে পারে না। আজ সমগ্র জাতিকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে; এই ভয়াবহ যে দানব আজ জেগে উঠছে, সেই দানবকে পরাভূত করতে হবে জাতীয় স্বার্থে, মানুষের স্বার্থে, মানুষের কল্যাণে।”

উগ্রবাদ আর সন্ত্রাসবাদের হুমকি মোকাবেলায় জাতিকে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনায়’ ঐক্যবদ্ধ হতে হবে বলেও মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল।

“১৯৭১ সালে যে চেতনা নিয়ে সমগ্র জাতি স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল, আজ সন্ত্রাস ও উগ্রবাদ প্রতিরোধ করতে হলে ঠিক একইভাবে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ যুদ্ধে অংশগ্রহণ করতে হবে।”

‘সংকট সমাধানে’ ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগকেই উদ্যোগ নিতে হবে বলে মন্তব্য করেন ফখরুল।

“আজ যা-কিছু ঘটনা ঘটেছে, তার দায়-দায়িত্ব তাদের। ব্যর্থতা যেটা হয়েছে, যে প্রাণগুলো চলে গেছে, তার দায় তাদের নিতে হবে। তাদের ব্যর্থতার কারণে এই ভয়াবহ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে।”

বিএনপি মহাসচিব সংবাদ সম্মেলনে দেশবাসী ও সারাবিশ্বের মুসলমানদের ঈদের শুভেচ্ছা জানান।

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এসময় তার সঙ্গে ছিলেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক