ঐক্য চাই, তবে খালেদাকে নিয়ে নয়: হানিফ

গুলশানে জঙ্গি হামলার প্রেক্ষাপটে দল-মত নির্বিশেষে সন্ত্রাসবিরোধী ঐক্য গড়ে তুলতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আহ্বান প্রত্যাখ্যান করেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 July 2016, 04:53 PM
Updated : 3 July 2016, 04:53 PM

দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব-উল আলম হানিফ বলেছেন, “অবশ্যই জাতীয় ঐক্যের প্রয়োজন আছে। কিন্তু জাতীয় ঐক্য হবে কার সাথে? যিনি জঙ্গি লালন করছেন, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের পৃষ্ঠপোষকতা করছেন, তার সাথে?”

খালেদা জিয়ার বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানাতে সন্ধ্যায় রোববার রাজধানীর ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন তিনি।

তার ঘণ্টাখানেক আগে  এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসন সন্ত্রাসবিরোধী জাতীয় ঐক্য গড়ার ডাক দিয়ে সরকারের উদ্দেশে বলেন, বাস্তবতাকে অস্বীকার করে পরিস্থিতিকে আরও অবনতির দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশে গত দেড় বছরের জঙ্গি তৎপরতার জন্য বিএনপিকে দায়ী করে আসছে আওয়ামী লীগ। অন্যদিকে বিএনপি বলছে, তাদের দায়ী করার মধ্যদিয়ে সরকার প্রকৃত ঘটনাকে আড়াল করছে।   

খালেদার বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় হানিফ বলেন, “উনি আগে যুদ্ধাপরাধীদের সঙ্গ ত্যাগ করুক। অতীত ভুলের জন্য অনুশোচনার বহিঃপ্রকাশ করুক। তাহলে উনার সাথে জনগণের ঐক্য হতে পারে।”

খালেদার আহ্বান প্রত্যাখ্যানের সিদ্ধান্তের পক্ষে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের সরকারবিরোধী আন্দোলনের নাশকতার বিষয়টি উল্লেখ করেন আওয়ামী লীগ নেতা।

“উনি এখন মনে করেন, মানুষ হত্যা কোনো বিবেকবান মানুষের কর্মকাণ্ড নয়। তাহলে তখন উনি মানুষ হত্যা করেছিলেন কিসের উপর ভিত্তি করে?”

খালেদা জিয়ার শাসনামলে জেএমবির উত্থান, একুশে অগাস্টের গ্রেনেড হামলা, সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া, আহসানউল্লাহ মাস্টার হত্যাকাণ্ডের কথাও বলেন হানিফ।

‘জঙ্গিদের সংস্রব’ না ছেড়ে খালেদা জিয়া ঐক্যের বক্তব্য ‘বিভ্রান্তিকর’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

গুলশান হামলাকারীদের বিষয়ে ক্ষমতাসীন দলের নেতা হানিফ বলেন, “বাংলাদেশে আইএস ও আল কায়দা বলে কিছু নেই। এদের সাথে আইএস বা আল কায়দার সম্পর্কও নাই। এরা সকলে জামায়াতের বিভিন্ন সংগঠনের নামে সরকারকে বিব্রত করা এবং বাংলাদেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্র বানানোর ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে।”

সংবাদ সম্মেলনে হানিফের সঙ্গে ছিলেন আহমদ হোসেন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ফরিদুন্নাহার লাইলী, আবদুস সোবহান গোলাপ,বদিউজ্জামান ভুঁইয়া ডাবলু, আবদুস সাত্তার, এস এম কামাল।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক