হোটেল–রেস্তোরাঁয় ‘সার্ভিস চার্জ’ নিষিদ্ধ করল ভারত

ভারতের ভোক্তা সুরক্ষা কর্তৃপক্ষ হোটেল–রেস্তোরাঁয় খাবারের বিলের ওপর অতিরিক্ত অর্থ হিসাবে ‘সার্ভিস চার্জ’ বা পরিষেবা মূল্য আদায় নিষিদ্ধ করেছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 July 2022, 01:25 PM
Updated : 5 July 2022, 01:25 PM

সার্ভিস চার্জ দিতে গ্রাহকদের বাধ্য করা নিয়ে একের পর এক অভিযোগ আসতে থাকায় এ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

সার্ভিস চার্জের নামে ভারতীয় রেস্তোরাঁগুলো প্রায়ই গ্রাহকের বিলে ৫%-১৫% টিপ (বকশিশ) যোগ করে থাকে। কিন্তু নতুন নিয়মে রেস্তোরাঁগুলো আর বিলের সঙ্গে 'স্বয়ংক্রিয়ভাবে' সার্ভিস চার্জ যোগ করতে পারবে না।

তাছাড়া, নতুন নির্দেশনায় রেস্তোরাঁগুলোতে ক্রেতাদের কাছ থেকে ‘অন্য কোনও নামে’ বাড়তি বকশিশ নেওয়া নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং বলা হয়েছে, যারা বকশিশ দিতে চাইবেন না, তাদেরকে রেস্তোরাঁয় আসতে বাধাও দেওয়া যাবে না।

ভারতে কয়েকবছর ধরেই বাড়তি সার্ভিস চার্জ দেওয়া নিয়ে গ্রাহকেরা যারপরনাই বিরক্ত ছিলেন। একের পর এক অভিযোগ জানিয়ে তারা বলে আসছিলেন, তাদের কাছ থেকে যে বাড়তি অর্থ আদায় করা হবে, তা আগে থেকে জানানো হয় না।

২০১৭ সালে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের ভোক্তা অধিকার বিভাগ একটি নির্দেশনা জারি করে জানিয়েছিল, গ্রাহকদেরকে শুধুমাত্র সরকারি করের সঙ্গে মেনু কার্ডে প্রদর্শিত মূল্য পরিশোধ করতে হবে।

ভোক্তা অধিকার বিভাগের বক্তব্য ছিল, গ্রাহক বকশিশ দেবেন কি না, সেটি একান্তই তার ইচ্ছা–অনিচ্ছার বিষয়। অনুমতি ছাড়া বাড়তি মূল্য দিতে গ্রাহককে বাধ্য করা ‘বেআইনি ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডের শামিল।’

তাই এসব না করে রেস্তোরাঁ মালিকদেরকে তাদের কর্মীদের ন্যায্য মজুরি দেওয়া এবং খরচ মেটাতে পণ্যের দাম বাড়াতে বলেছিল ভোক্তা অধিকার বিভাগ। কিন্তু তারপরও রেস্তোরাঁগুলোতে খাবারের বিলের সঙ্গে টিপ হিসাবে বাড়তি অর্থ নেওয়া বন্ধ হয়নি।

এমন পরিস্থিতিতে গত মাসে সরকার ‘ন্যাশনাল রেস্টুরেন্ট অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়া’ (এনআরএআই)- এর সঙ্গে আলোচনায় বসার পর জানায়, তারা গ্রাহকদের কাছ থেকে অনেক বেশি মাত্রায় অভিযোগ পাচ্ছে।

গ্রাহকদের অভিযোগ, তারা উচ্চ হারে সার্ভিস চার্জ দিতে বাধ্য হচ্ছে; এমনকী বিল থেকে এই চার্জ বাদ দেওয়ার অনুরোধ করলেও তাদেরকে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে।

 তবে ভারতের অর্ধ মিলিয়নেরও বেশি রেস্তোরাঁর প্রতিনিধিত্বকারী সংস্থা ‘এনআরএআই’ এমন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, এটি একেবারেই ব্যক্তিগত নীতির বিষয় এবং এ ধরনের চার্জ নেওয়া 'অবৈধ' নয়।

উপরন্তু তারা আরও যুক্তি দেখিয়ে বলেছে, এভাবে সার্ভিস চার্জ নেওয়ায় সরকার অতিরিক্ত রাজস্ব পাচ্ছে। কারণ রেস্তোরাঁগুলো গ্রাহকদের কাছ থেকে যা আদায় করে, তার ওপর কর দেয়।

নতুন নির্দেশিকার আওতায় গ্রাহকরা এখন থেকে তাদের অভিযোগ অনলাইনে বা জাতীয় ভোক্তা হেল্পলাইনের মাধ্যমে জানাতে পারবেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক