বুড়িগঙ্গার পাড়ের ধোপা

  • আজকাল ক্যামেরা দেখলেই ক্ষিপ্ত হন এদের মতো ধোপারা। কারণ টেলিভিশন কিংবা সংবাদপত্রে তাদের ছবি প্রকাশ পেলে আর কাজ মিলবে না। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    আজকাল ক্যামেরা দেখলেই ক্ষিপ্ত হন এদের মতো ধোপারা। কারণ টেলিভিশন কিংবা সংবাদপত্রে তাদের ছবি প্রকাশ পেলে আর কাজ মিলবে না। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • আজকাল ক্যামেরা দেখলেই ক্ষিপ্ত হন এদের মতো ধোপারা। কারণ টেলিভিশন কিংবা সংবাদপত্রে তাদের ছবি প্রকাশ পেলে আর কাজ মিলবে না। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    আজকাল ক্যামেরা দেখলেই ক্ষিপ্ত হন এদের মতো ধোপারা। কারণ টেলিভিশন কিংবা সংবাদপত্রে তাদের ছবি প্রকাশ পেলে আর কাজ মিলবে না। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • নদীর পানি নষ্ট করার জন্য দায়ী কে, সেই প্রশ্ন তুলে ধোপা গোবিন্দ পাল বলেন, বিকল্প নেই বলে জীবিকার তাগিদে বাধ্য হয়েই নোংরা পানিতেই কাপড় কাচতে হয় তাকে। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    নদীর পানি নষ্ট করার জন্য দায়ী কে, সেই প্রশ্ন তুলে ধোপা গোবিন্দ পাল বলেন, বিকল্প নেই বলে জীবিকার তাগিদে বাধ্য হয়েই নোংরা পানিতেই কাপড় কাচতে হয় তাকে। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • নদীর পানি নষ্ট করার জন্য দায়ী কে, সেই প্রশ্ন তুলে ধোপা গোবিন্দ পাল বলেন, বিকল্প নেই বলে জীবিকার তাগিদে বাধ্য হয়েই নোংরা পানিতেই কাপড় কাচতে হয় তাকে। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    নদীর পানি নষ্ট করার জন্য দায়ী কে, সেই প্রশ্ন তুলে ধোপা গোবিন্দ পাল বলেন, বিকল্প নেই বলে জীবিকার তাগিদে বাধ্য হয়েই নোংরা পানিতেই কাপড় কাচতে হয় তাকে। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • মোহাম্মদ আলী হোসাইন জানান, বুড়িগঙ্গার পানি দূষিত হওয়ায় সঙ্গে সঙ্গে তাদের কাজের পরিমাণও কমেছে। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    মোহাম্মদ আলী হোসাইন জানান, বুড়িগঙ্গার পানি দূষিত হওয়ায় সঙ্গে সঙ্গে তাদের কাজের পরিমাণও কমেছে। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • বুড়িগঙ্গার জল গড়িয়েছে অনেক দূর, এই নদী ঘিরে মানুষের জীবন-জীবিকা বদলায়নি। দুই দশকের বেশি সময় ধরে মোহাম্মদ আলী হোসাইন, গোবিন্দ পাল ও রাখাল কর্মকার এ নদীর পাড়ে ধোপার কাজ করছেন। তফাৎ এটুকুই- যখন তারা ধোপার কাজ শুরু করেন, তখন বুড়িগঙ্গার পানি ছিল স্বচ্ছ, এখন সেই পানি ধারণ করেছে কয়লার বর্ণ। মারাত্মক দূষিত পানিতে চলছে কাপড় ধোয়া। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    বুড়িগঙ্গার জল গড়িয়েছে অনেক দূর, এই নদী ঘিরে মানুষের জীবন-জীবিকা বদলায়নি। দুই দশকের বেশি সময় ধরে মোহাম্মদ আলী হোসাইন, গোবিন্দ পাল ও রাখাল কর্মকার এ নদীর পাড়ে ধোপার কাজ করছেন। তফাৎ এটুকুই- যখন তারা ধোপার কাজ শুরু করেন, তখন বুড়িগঙ্গার পানি ছিল স্বচ্ছ, এখন সেই পানি ধারণ করেছে কয়লার বর্ণ। মারাত্মক দূষিত পানিতে চলছে কাপড় ধোয়া। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • মোহাম্মদ আলী হোসাইন জানান, বুড়িগঙ্গার পানি দূষিত হওয়ায় সঙ্গে সঙ্গে তাদের কাজের পরিমাণও কমেছে। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    মোহাম্মদ আলী হোসাইন জানান, বুড়িগঙ্গার পানি দূষিত হওয়ায় সঙ্গে সঙ্গে তাদের কাজের পরিমাণও কমেছে। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • এক সময় হাসপাতাল, লন্ড্রি ও ডেকোরেটরদের কাছ থেকে কাপড় আসত বুড়িগঙ্গা পাড়ে। নদীর পানি নোংরা হওয়ায় এখন শুধু ডেকোরেটরদের কাছ থেকে কাপড় পান ধোপারা। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    এক সময় হাসপাতাল, লন্ড্রি ও ডেকোরেটরদের কাছ থেকে কাপড় আসত বুড়িগঙ্গা পাড়ে। নদীর পানি নোংরা হওয়ায় এখন শুধু ডেকোরেটরদের কাছ থেকে কাপড় পান ধোপারা। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • এক সময় হাসপাতাল, লন্ড্রি ও ডেকোরেটরদের কাছ থেকে কাপড় আসত বুড়িগঙ্গা পাড়ে। নদীর পানি নোংরা হওয়ায় এখন শুধু ডেকোরেটরদের কাছ থেকে কাপড় পান ধোপারা। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    এক সময় হাসপাতাল, লন্ড্রি ও ডেকোরেটরদের কাছ থেকে কাপড় আসত বুড়িগঙ্গা পাড়ে। নদীর পানি নোংরা হওয়ায় এখন শুধু ডেকোরেটরদের কাছ থেকে কাপড় পান ধোপারা। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • দিনে যত কাপড় ধুয়ে শুকাতে পারেন ধোপারা, তাতে প্রত্যেকে কমবেশি ৭০০ টাকার মতো পান। তাও এখন প্রতিদিন তারা কাজ পান না। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    দিনে যত কাপড় ধুয়ে শুকাতে পারেন ধোপারা, তাতে প্রত্যেকে কমবেশি ৭০০ টাকার মতো পান। তাও এখন প্রতিদিন তারা কাজ পান না। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • ঢাকার কামরাঙ্গীরচরে বুড়িগঙ্গা পাড়ে কাপড় ধোয়া শেষে শুকাতে দিচ্ছেন একজন। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    ঢাকার কামরাঙ্গীরচরে বুড়িগঙ্গা পাড়ে কাপড় ধোয়া শেষে শুকাতে দিচ্ছেন একজন। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • ঢাকার কামরাঙ্গীরচরে বুড়িগঙ্গা পাড়ে কাপড় ধোয়া শেষে শুকাতে দিচ্ছেন একজন। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    ঢাকার কামরাঙ্গীরচরে বুড়িগঙ্গা পাড়ে কাপড় ধোয়া শেষে শুকাতে দিচ্ছেন একজন। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু