‘৩৫ টাকায়’ মাছ-ভাত

  • বুড়িগঙ্গার তীরের আদি পাইকারি বাজার গিয়ে বাবুবাজার ব্রিজের নিচে অস্থায়ী রেস্তোরাঁর ভোক্তাদের বেশিরভাগই দিনমজুর।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    বুড়িগঙ্গার তীরের আদি পাইকারি বাজার গিয়ে বাবুবাজার ব্রিজের নিচে অস্থায়ী রেস্তোরাঁর ভোক্তাদের বেশিরভাগই দিনমজুর।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • পুরান ঢাকার বাবুবাজার ব্রিজের নিচে অস্থায়ী রেস্তোরাঁয় ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকায় দুপুরে ‘পেটপুরে’ খান দিনমজুররা।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    পুরান ঢাকার বাবুবাজার ব্রিজের নিচে অস্থায়ী রেস্তোরাঁয় ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকায় দুপুরে ‘পেটপুরে’ খান দিনমজুররা।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • পুরান ঢাকার বাবুবাজার ব্রীজের নিচে অস্থায়ী রেস্তোরাঁয় ৩৫ টাকার তরকারিতে থাকে পাঙ্গাস, রুই, কাতলা ও ছোট মাছের কোনো একটি।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    পুরান ঢাকার বাবুবাজার ব্রীজের নিচে অস্থায়ী রেস্তোরাঁয় ৩৫ টাকার তরকারিতে থাকে পাঙ্গাস, রুই, কাতলা ও ছোট মাছের কোনো একটি।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • পুরান ঢাকার বাবুবাজার ব্রীজের নিচে অস্থায়ী রেস্তোরাঁয় ৩৫ টাকার তরকারিতে থাকে পাঙ্গাস, রুই, কাতলা ও ছোট মাছের কোনো একটি।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    পুরান ঢাকার বাবুবাজার ব্রীজের নিচে অস্থায়ী রেস্তোরাঁয় ৩৫ টাকার তরকারিতে থাকে পাঙ্গাস, রুই, কাতলা ও ছোট মাছের কোনো একটি।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • পুরান ঢাকার বাবুবাজার ব্রিজের নিচে ৩০ টাকায় মুরগির মাংস আর ৩৫ টাকায় পাওয়া যায় মাছের তরকারি; সঙ্গে থাকে ভাত, ডাল।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    পুরান ঢাকার বাবুবাজার ব্রিজের নিচে ৩০ টাকায় মুরগির মাংস আর ৩৫ টাকায় পাওয়া যায় মাছের তরকারি; সঙ্গে থাকে ভাত, ডাল।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • পুরান ঢাকার বাবুবাজার ব্রিজের নিচে ৩০ টাকায় মুরগির মাংস আর ৩৫ টাকায় পাওয়া যায় মাছের তরকারি; সঙ্গে থাকে ভাত, ডাল।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    পুরান ঢাকার বাবুবাজার ব্রিজের নিচে ৩০ টাকায় মুরগির মাংস আর ৩৫ টাকায় পাওয়া যায় মাছের তরকারি; সঙ্গে থাকে ভাত, ডাল।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

  • বুড়িগঙ্গার তীরের আদি পাইকারি বাজার গিয়ে বাবুবাজার ব্রিজের নিচে অস্থায়ী রেস্তোরাঁর ভোক্তাদের বেশিরভাগই দিনমজুর।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

    বুড়িগঙ্গার তীরের আদি পাইকারি বাজার গিয়ে বাবুবাজার ব্রিজের নিচে অস্থায়ী রেস্তোরাঁর ভোক্তাদের বেশিরভাগই দিনমজুর।ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু