দানিশ সিদ্দিকী: একজন সাংবাদিক, আর কিছু ছবি

কখনও রাজনীতি, কখনও খেলা, কখনও বা অর্থ-বাণিজ্য, খবর যেখানে আছে, সেখানেই ক্যামেরা হাতে হাজির হয়েছেন ভারতে রয়টার্সের প্রধান আলোকচিত্র সাংবাদিক দানিশ সিদ্দিকী। তার নিজের কাছে সবচেয়ে প্রিয় ছিল খবরের জন্ম নেওয়ার মুহূর্তে মানুষের মুখচ্ছবি ফ্রেমবন্দি করার কাজটি। আফগানিস্তানের কান্দাহারে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে তালেবান ও আফগান বাহিনীর সংঘর্ষের মধ্যে নিহত এই পুলিৎজারজয়ী ভারতীয় আলোকচিত্রী আর কখনও ছবি তুলবেন না। তবে তার ক্যামেরায় বন্দি হয়ে থাকা মুখচ্ছবিগুলো ঠিকই বলে যাবে খবরের ইতিহাস।
  • কান্দাহারের যুদ্ধক্ষেত্র থেকে আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর উদ্ধার করা এক পুলিশ সদস্যের এ ছবিটি মৃত্যুর মাত্র দুদিন আগে তুলেছিলেন দানিশ সিদ্দিকী।

    কান্দাহারের যুদ্ধক্ষেত্র থেকে আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর উদ্ধার করা এক পুলিশ সদস্যের এ ছবিটি মৃত্যুর মাত্র দুদিন আগে তুলেছিলেন দানিশ সিদ্দিকী।

  • করোনাভাইরাস মহামারীতে ধুঁকতে থাকা ভারতের যে ছবিগুলো পুরো বিশ্বকে নাড়া দিয়ে গেছে, তার অনেকগুলো দানিশ সিদ্দিকীর তোলা। দিল্লীর একটি শ্মশানে কোভিডে মৃতদের দাহ করার এই ছবি তারই একটি।

    করোনাভাইরাস মহামারীতে ধুঁকতে থাকা ভারতের যে ছবিগুলো পুরো বিশ্বকে নাড়া দিয়ে গেছে, তার অনেকগুলো দানিশ সিদ্দিকীর তোলা। দিল্লীর একটি শ্মশানে কোভিডে মৃতদের দাহ করার এই ছবি তারই একটি।

  • কোভিডে মারা গেছেন মা। দিল্লীর শ্মশানে তাকে দাহ করার আগে শোকে স্তব্ধ সন্তানের কান্না। দানিশ সিদ্দিকীর তোলা এই ছবি করোনাভাইরাস মহামারীর ভয়াবহতার সাক্ষ্য দেবে ইতিহাসে।

    কোভিডে মারা গেছেন মা। দিল্লীর শ্মশানে তাকে দাহ করার আগে শোকে স্তব্ধ সন্তানের কান্না। দানিশ সিদ্দিকীর তোলা এই ছবি করোনাভাইরাস মহামারীর ভয়াবহতার সাক্ষ্য দেবে ইতিহাসে।

  • কবর দেওয়ার জায়গারও যেন অভাব পড়েছিল তখন। দিল্লির এই কবরস্থানে কোভিডে মৃতদের সমাহিত করছিলেন স্বজনরা। ওপর থেকে সেই ছবি ক্যামেরবন্দি করেন দানিশ সিদ্দিকী।

    কবর দেওয়ার জায়গারও যেন অভাব পড়েছিল তখন। দিল্লির এই কবরস্থানে কোভিডে মৃতদের সমাহিত করছিলেন স্বজনরা। ওপর থেকে সেই ছবি ক্যামেরবন্দি করেন দানিশ সিদ্দিকী।

  • ভারতে তখন অক্সিজেনের অভাবে মরছে মানুষ, হাসপাতালগুলোও পড়েছে অসহায় অবস্থায়। উত্তর প্রদেশের গাজিয়াবাদে এক গুরুদুয়ারার সামনে গাড়িতে বসে বিনামূল্যে দেওয়া অক্সিজেন নিচ্ছেন এক কোভিড রোগী।

    ভারতে তখন অক্সিজেনের অভাবে মরছে মানুষ, হাসপাতালগুলোও পড়েছে অসহায় অবস্থায়। উত্তর প্রদেশের গাজিয়াবাদে এক গুরুদুয়ারার সামনে গাড়িতে বসে বিনামূল্যে দেওয়া অক্সিজেন নিচ্ছেন এক কোভিড রোগী।

  • ভারতের বিতর্কিত কৃষি বিলের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে তখন কৃষক বিক্ষোভ চলছে। রাজধানী দিল্লির রাস্তায় অবস্থান নেওয়া কৃষকদের একজন এভাবেই ক্যামেরাবন্দি হয়েছে দানিশ সিদ্দিকীর ক্যামেরায়।

    ভারতের বিতর্কিত কৃষি বিলের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে তখন কৃষক বিক্ষোভ চলছে। রাজধানী দিল্লির রাস্তায় অবস্থান নেওয়া কৃষকদের একজন এভাবেই ক্যামেরাবন্দি হয়েছে দানিশ সিদ্দিকীর ক্যামেরায়।

  • দিল্লীর জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে নতুন নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ চলছে তখন। তারই মধ্যে অস্ত্র হাতে দানিশ সিদ্দিকীর ক্যামেরায় ধরা পড়েছেন এক ব্যক্তি।

    দিল্লীর জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে নতুন নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ চলছে তখন। তারই মধ্যে অস্ত্র হাতে দানিশ সিদ্দিকীর ক্যামেরায় ধরা পড়েছেন এক ব্যক্তি।

  • ২০১৭ সালের অগাস্টে মিয়ানমার থেকে নাফ নদী পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশের শাহ পরীর দ্বীপে পৌঁছেছেন ক্লান্ত এক রোহিঙ্গা শরণার্থী। বিশ্বকে নাড়িয়ে দেওয়া এ ছবির জন্য ২০১৮ সালে পুলিৎজার পান দানিশ সিদ্দিকী।

    ২০১৭ সালের অগাস্টে মিয়ানমার থেকে নাফ নদী পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশের শাহ পরীর দ্বীপে পৌঁছেছেন ক্লান্ত এক রোহিঙ্গা শরণার্থী। বিশ্বকে নাড়িয়ে দেওয়া এ ছবির জন্য ২০১৮ সালে পুলিৎজার পান দানিশ সিদ্দিকী।

  • টেকনাফের শরণার্থী শিবিরে ত্রাণের জন্য মরিয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীরা। ২০১৭ সালে দানিশ সিদ্দিকীর তোলা এই ছবিও সাড়া ফেলেছিল সে সময়।

    টেকনাফের শরণার্থী শিবিরে ত্রাণের জন্য মরিয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীরা। ২০১৭ সালে দানিশ সিদ্দিকীর তোলা এই ছবিও সাড়া ফেলেছিল সে সময়।

  • দিল্লীতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার মধ্যে এক ব্যক্তিকে মারধর করার এই ছবি ক্যামেরাবন্দি করেন দানিশ সিদ্দিকী।

    দিল্লীতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার মধ্যে এক ব্যক্তিকে মারধর করার এই ছবি ক্যামেরাবন্দি করেন দানিশ সিদ্দিকী।

  • দশ বছরের বেশি সময় ধরে রয়টার্সের হয়ে এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপের অনেক ঘটনার ছবি তুলে গেছেন দানিশ সিদ্দিকী। পিয়ংইয়াংয়ে তিনি উত্তর কোরিয়ার ৭০তম বার্ষিকী উদযাপনের সামরিক কুচকাওয়াজের এই ছবিটি তোলেন।

    দশ বছরের বেশি সময় ধরে রয়টার্সের হয়ে এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপের অনেক ঘটনার ছবি তুলে গেছেন দানিশ সিদ্দিকী। পিয়ংইয়াংয়ে তিনি উত্তর কোরিয়ার ৭০তম বার্ষিকী উদযাপনের সামরিক কুচকাওয়াজের এই ছবিটি তোলেন।

  • ভয়াবহ আগুনে পুড়ে গেছে মুম্বাইয়ের গরীবনগর বস্তি। ধ্বংসস্তুপের পাশে খোলা আকাশের নিচে পরিবারের সদস্যদের সাথে বসে রুবিনা আলী, যিনি অস্কারজয়ী চলচ্ছিল ‘স্লামডগ মিলেনিয়ার’ এ লতিকার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন।

    ভয়াবহ আগুনে পুড়ে গেছে মুম্বাইয়ের গরীবনগর বস্তি। ধ্বংসস্তুপের পাশে খোলা আকাশের নিচে পরিবারের সদস্যদের সাথে বসে রুবিনা আলী, যিনি অস্কারজয়ী চলচ্ছিল ‘স্লামডগ মিলেনিয়ার’ এ লতিকার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন।

  • মুম্বইয়ের মারাঠা মন্দির প্রেক্ষাগৃহে বলিউডের সিনেমা ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে’ দেখছেন দর্শকরা। আর দানিশ সিদ্দিকীর ক্যামেরা দেখছে দর্শকদের মুখ। মানুষের মুখে খেলে যাওয়া আবেগের রঙ ক্যামেরায় ধরতে ভালোবাসতেন দানিশ সিদ্দিকী।

    মুম্বইয়ের মারাঠা মন্দির প্রেক্ষাগৃহে বলিউডের সিনেমা ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে’ দেখছেন দর্শকরা। আর দানিশ সিদ্দিকীর ক্যামেরা দেখছে দর্শকদের মুখ। মানুষের মুখে খেলে যাওয়া আবেগের রঙ ক্যামেরায় ধরতে ভালোবাসতেন দানিশ সিদ্দিকী।

  • আলোকচিত্রী দানিশ সিদ্দিকী নিজেই এখানে ছবি। মুম্বাই উপকূলে আরব সাগরে ডুবতে বসা একটি মালবাহী জাহাজের ছবি তোলায় ব্যস্ত দেখা যাচ্ছে তাকে।

    আলোকচিত্রী দানিশ সিদ্দিকী নিজেই এখানে ছবি। মুম্বাই উপকূলে আরব সাগরে ডুবতে বসা একটি মালবাহী জাহাজের ছবি তোলায় ব্যস্ত দেখা যাচ্ছে তাকে।

  • মুম্বাইয়ের ছেলে দানিশ সিদ্দিকী জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়ে ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন টেলিভিশন সাংবাদিক হিসেবে। পরে ২০১০ সালে তিনি রয়টার্সে যোগ দেন শিক্ষানবীশ আলোকচিত্র সাংবাদিক হিসেবে। তারপর ১১টি বছর তিনি ক্যামেরা হাতে ঘুরে বেরিয়েছেন নানা দেশে, বিশ্বকে দিয়েছেন খবরের ছবি। ৪০ বছর বয়সে তার সেই অভিযাত্রা থেমে গেল আফগানিস্তানের কান্দাহারে।

    মুম্বাইয়ের ছেলে দানিশ সিদ্দিকী জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়ে ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন টেলিভিশন সাংবাদিক হিসেবে। পরে ২০১০ সালে তিনি রয়টার্সে যোগ দেন শিক্ষানবীশ আলোকচিত্র সাংবাদিক হিসেবে। তারপর ১১টি বছর তিনি ক্যামেরা হাতে ঘুরে বেরিয়েছেন নানা দেশে, বিশ্বকে দিয়েছেন খবরের ছবি। ৪০ বছর বয়সে তার সেই অভিযাত্রা থেমে গেল আফগানিস্তানের কান্দাহারে।

Print Friendly and PDF