কান্নায় ভিজছে কবরস্থানের মাটি

  • রায়েরবাজার কবরস্থানে শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে স্বজনের কবরের সামনে দাঁড়িয়ে প্রার্থনা। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    রায়েরবাজার কবরস্থানে শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে স্বজনের কবরের সামনে দাঁড়িয়ে প্রার্থনা। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

  • রায়েরবাজার কবরস্থানে শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে স্বজনের কবরের সামনে দাঁড়িয়ে প্রার্থনা। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    রায়েরবাজার কবরস্থানে শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে স্বজনের কবরের সামনে দাঁড়িয়ে প্রার্থনা। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

  • শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে রায়েরবাজার কবরস্থানে জিয়ারত করতে এসে স্বজনদের দেখা যায় কবরের পরিচর্যা করতে। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে রায়েরবাজার কবরস্থানে জিয়ারত করতে এসে স্বজনদের দেখা যায় কবরের পরিচর্যা করতে। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

  • শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে রায়েরবাজার কবরস্থানে জিয়ারত করতে এসে স্বজনদের দেখা যায় কবরের পরিচর্যা করতে। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে রায়েরবাজার কবরস্থানে জিয়ারত করতে এসে স্বজনদের দেখা যায় কবরের পরিচর্যা করতে। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

  • শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে রায়েরবাজার কবরস্থানে জিয়ারত করতে এসে কুরআন তিলাওয়াত করতে দেখা যায় একজনকে। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে রায়েরবাজার কবরস্থানে জিয়ারত করতে এসে কুরআন তিলাওয়াত করতে দেখা যায় একজনকে। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

  • করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ১৬ মার্চ ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ৭০ বছরের রহিমা বেগম। শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে রায়েরবাজার কবরস্থানে কবর জিয়ারত করতে আসেন স্বজনরা। মায়ের কবর জিয়ারত করতে এসে কান্নায় ভেঙে পড়েন নুরজাহান বেগম। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ১৬ মার্চ ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ৭০ বছরের রহিমা বেগম। শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে রায়েরবাজার কবরস্থানে কবর জিয়ারত করতে আসেন স্বজনরা। মায়ের কবর জিয়ারত করতে এসে কান্নায় ভেঙে পড়েন নুরজাহান বেগম। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

  • শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে রায়েরবাজার কবরস্থানে জিয়ারতে বাবার সঙ্গে দেখা যায় ছোট শিশুটিকে। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে রায়েরবাজার কবরস্থানে জিয়ারতে বাবার সঙ্গে দেখা যায় ছোট শিশুটিকে। ছবি: মাহমুদ জামান অভি