বিপর্যয়ে ঘুরে দাঁড়ানো

  • রীনা বেগম দীর্ঘ দিন বাসা-বাড়িতে কাজ করে সংসার চালিয়েছেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণে বন্ধ হয়েছে তার আয়ের সেই উৎস। টিকে থাকতে লালবাগের শহীদনগরের ঘোড়াপট্টি এলাকায় প্লাস্টিক বোতলের লেবেল আলাদার কাজ নিয়েছেন তিনি। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    রীনা বেগম দীর্ঘ দিন বাসা-বাড়িতে কাজ করে সংসার চালিয়েছেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণে বন্ধ হয়েছে তার আয়ের সেই উৎস। টিকে থাকতে লালবাগের শহীদনগরের ঘোড়াপট্টি এলাকায় প্লাস্টিক বোতলের লেবেল আলাদার কাজ নিয়েছেন তিনি। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

  • রাজধানীর লালবাগের শহীদনগরের ঘোড়াপট্টি এলাকায় রাস্তার পাশে প্লাস্টিক বোতলের লেবেল আলাদার কাজ করেন বহু নারী, যাদের অনেকেই মহামারীর আগে বাসা-বাড়িতে কাজ করে সংসার চালাতেন। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    রাজধানীর লালবাগের শহীদনগরের ঘোড়াপট্টি এলাকায় রাস্তার পাশে প্লাস্টিক বোতলের লেবেল আলাদার কাজ করেন বহু নারী, যাদের অনেকেই মহামারীর আগে বাসা-বাড়িতে কাজ করে সংসার চালাতেন। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

  • সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত প্লাস্টিক বোতলের লেবেল আলাদা করেন এই নারী। মোড়ক খুলে একেক রংয়ের বোতল বড় বড় আলাদা ব্যাগে ভরা হয়। প্রায় এক হাজার বোতলের একটি ব্যাগ ভরতে পারলে দেওয়া হয় ৫০ টাকা। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত প্লাস্টিক বোতলের লেবেল আলাদা করেন এই নারী। মোড়ক খুলে একেক রংয়ের বোতল বড় বড় আলাদা ব্যাগে ভরা হয়। প্রায় এক হাজার বোতলের একটি ব্যাগ ভরতে পারলে দেওয়া হয় ৫০ টাকা। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

  • কল্পনা রানী দাশ মহামারীর শুরুতে ঢাকা ছেড়ে গিয়েছিলেন গ্রামের বাড়িতে। কিন্তু সেখানে কোনো কাজ না থাকায় সংসার চালাতে আবার ফিরতে হয়েছে ঢাকা শহরে। এক মাস হল রাজধানীর লালবাগের শহীদনগরের ঘোড়াপট্টি এলাকায় রাস্তার পাশে প্লাস্টিক বোতলের লেবেল আলাদা করছেন তিনি । ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    কল্পনা রানী দাশ মহামারীর শুরুতে ঢাকা ছেড়ে গিয়েছিলেন গ্রামের বাড়িতে। কিন্তু সেখানে কোনো কাজ না থাকায় সংসার চালাতে আবার ফিরতে হয়েছে ঢাকা শহরে। এক মাস হল রাজধানীর লালবাগের শহীদনগরের ঘোড়াপট্টি এলাকায় রাস্তার পাশে প্লাস্টিক বোতলের লেবেল আলাদা করছেন তিনি । ছবি: মাহমুদ জামান অভি