হাসপাতালের বাইরে রাত কাটে

  • ঢাকা শিশু হাসপাতালে নতুন ভবনের সামনের খালি জায়গায় সারিবদ্ধভাবে মশারি টানিয়ে ঘুমিয়ে আছে রোগীর স্বজনরা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

    ঢাকা শিশু হাসপাতালে নতুন ভবনের সামনের খালি জায়গায় সারিবদ্ধভাবে মশারি টানিয়ে ঘুমিয়ে আছে রোগীর স্বজনরা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

  • ঢাকা শিশু হাসপাতালে নতুন ভবনের সামনের খালি জায়গায় সারিবদ্ধভাবে মশারি টানিয়ে ঘুমিয়ে আছে রোগীর স্বজনরা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

    ঢাকা শিশু হাসপাতালে নতুন ভবনের সামনের খালি জায়গায় সারিবদ্ধভাবে মশারি টানিয়ে ঘুমিয়ে আছে রোগীর স্বজনরা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

  • আগারগাঁওয়ে শিশু হাসপাতালের বাইরে বাগানের মাঝের সড়কে মশারি টানিয়ে ঘুমিয়ে আছে একজন। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

    আগারগাঁওয়ে শিশু হাসপাতালের বাইরে বাগানের মাঝের সড়কে মশারি টানিয়ে ঘুমিয়ে আছে একজন। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

  • ঢাকা শিশু হাসপাতালে নতুন ভবনে আন্ডারগ্রাউন্ডে প্রবেশের রাস্তাতেও মশারি টানিয়ে ঘুমিয়ে আছে অনেক রোগীর স্বজন। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

    ঢাকা শিশু হাসপাতালে নতুন ভবনে আন্ডারগ্রাউন্ডে প্রবেশের রাস্তাতেও মশারি টানিয়ে ঘুমিয়ে আছে অনেক রোগীর স্বজন। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

  • আগারগাঁও শিশু হাসপাতালে বাগানের খালি জায়গায় ঘুমিয়ে আছে অনেক রোগীর স্বজন। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

    আগারগাঁও শিশু হাসপাতালে বাগানের খালি জায়গায় ঘুমিয়ে আছে অনেক রোগীর স্বজন। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

  • ঢাকা শিশু হাসপাতালের একটি ভবনে প্রবেশ পথের সামনে গামছা বিছিয়ে ঘুমিয়েছেন একজন। নিজের পরনের লুঙ্গিকে করেছেন গায়ের আচ্ছাদন। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

    ঢাকা শিশু হাসপাতালের একটি ভবনে প্রবেশ পথের সামনে গামছা বিছিয়ে ঘুমিয়েছেন একজন। নিজের পরনের লুঙ্গিকে করেছেন গায়ের আচ্ছাদন। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

  • মশা থেকে বাঁচতে ঢাকা শিশু হাসপাতালের ছাউনির নিচে মশারি টানিয়ে ঘুমিয়ে আছে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীর স্বজনরা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

    মশা থেকে বাঁচতে ঢাকা শিশু হাসপাতালের ছাউনির নিচে মশারি টানিয়ে ঘুমিয়ে আছে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীর স্বজনরা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

  • মশা থেকে বাঁচতে ঢাকা শিশু হাসপাতালের ছাউনির নিচে মশারি টানিয়ে ঘুমিয়ে আছে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীর স্বজনরা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

    মশা থেকে বাঁচতে ঢাকা শিশু হাসপাতালের ছাউনির নিচে মশারি টানিয়ে ঘুমিয়ে আছে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীর স্বজনরা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

সাম্প্রতিক ছবিঘর