পরিযায়ী কলতানে মুখর জাহাঙ্গীরনগর

  • গত কয়েক বছরের তুলনায় এবার ক্যাম্পাসের জলাশয়গুলোতে পাখির আগমন বেশি। প্রায় এক মাস বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকা এর একটি কারণ বলে পাখি বিশারদদের ধারণা। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

    গত কয়েক বছরের তুলনায় এবার ক্যাম্পাসের জলাশয়গুলোতে পাখির আগমন বেশি। প্রায় এক মাস বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকা এর একটি কারণ বলে পাখি বিশারদদের ধারণা। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

  • শীত পুরো আসার আগেই চলে এসেছে পরিযায়ী পাখিরা; তাদের কলতানে মুখর হয়ে উঠেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

    শীত পুরো আসার আগেই চলে এসেছে পরিযায়ী পাখিরা; তাদের কলতানে মুখর হয়ে উঠেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

  • জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে বেশ কয়েকটি জলাশয় আছে। এর মধ্যে প্রশাসনিক ভবনের সামনে ও পেছনের দুই জলাশয়ে অন্য বছর পাখির আনাগোনা থাকে বেশি। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

    জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে বেশ কয়েকটি জলাশয় আছে। এর মধ্যে প্রশাসনিক ভবনের সামনে ও পেছনের দুই জলাশয়ে অন্য বছর পাখির আনাগোনা থাকে বেশি। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

  • তবে এ বছর বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ উদ্যান সংলগ্ন দুটি জলাশয়ে পাখি দেখা গেছে সবচেয়ে বেশি। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

    তবে এ বছর বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ উদ্যান সংলগ্ন দুটি জলাশয়ে পাখি দেখা গেছে সবচেয়ে বেশি। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

  • এ দুটি জলাশয় অপেক্ষাকৃত নির্জন জায়গায় বলে দূর দেশ থেকে আশা পাখিরা জায়গা দুটিকে বেছে নিয়েছে তাদের শীতের আবাস হিসেবে। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

    এ দুটি জলাশয় অপেক্ষাকৃত নির্জন জায়গায় বলে দূর দেশ থেকে আশা পাখিরা জায়গা দুটিকে বেছে নিয়েছে তাদের শীতের আবাস হিসেবে। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

  • জাহাঙ্গীরনগর ক্যাম্পাসের জলাশয়ে আসা পরিযায়ী পাখিদের মধ্যে ‘পাতি সরালি’ বা হাঁসই সবচেয়ে বেশি। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

    জাহাঙ্গীরনগর ক্যাম্পাসের জলাশয়ে আসা পরিযায়ী পাখিদের মধ্যে ‘পাতি সরালি’ বা হাঁসই সবচেয়ে বেশি। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

  • বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ উদ্যানের পশ্চিম পাশের জলাশয়ভর্তি পাতি সরালির মাঝে দেখা গেল একটি ‘পাতি কুট’ বা ‘ইউরেশীয় কুট’ পাখিকে। শীতে টাঙ্গুয়ার হাওরে প্রচুর দেখা যায় কলো রঙের জলচর এ পাখি। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

    বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ উদ্যানের পশ্চিম পাশের জলাশয়ভর্তি পাতি সরালির মাঝে দেখা গেল একটি ‘পাতি কুট’ বা ‘ইউরেশীয় কুট’ পাখিকে। শীতে টাঙ্গুয়ার হাওরে প্রচুর দেখা যায় কলো রঙের জলচর এ পাখি। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

  • বিশ্ববিদ্যালয়ের জলাশয়গুলোতে পরিযায়ী পাখির সঙ্গে আছে লাল শাপলাও। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

    বিশ্ববিদ্যালয়ের জলাশয়গুলোতে পরিযায়ী পাখির সঙ্গে আছে লাল শাপলাও। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

  • শেষ হেমন্তের আকাশে ক্যাম্পাসের আকাশে দলে দলে উড়ছে পরিযায়ী পাখিদল। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

    শেষ হেমন্তের আকাশে ক্যাম্পাসের আকাশে দলে দলে উড়ছে পরিযায়ী পাখিদল। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

  • ক্যাম্পাসের জলাশয়ে লাল শাপলার মাঝে এই জলপিপির বিচরণ দেখা যায় সারাবছরই। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

    ক্যাম্পাসের জলাশয়ে লাল শাপলার মাঝে এই জলপিপির বিচরণ দেখা যায় সারাবছরই। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

  • জলাশয়ের পানিতে শিকারের অপেক্ষায় পানকৌড়ি। কনকনে শীতেও এরা পানিতে ডুবে শিকার করে। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

    জলাশয়ের পানিতে শিকারের অপেক্ষায় পানকৌড়ি। কনকনে শীতেও এরা পানিতে ডুবে শিকার করে। ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

  • পানিতে শিকারের সঙ্গে লুকোচুরি শেষে ডানা মেলে রোদ পোহাচ্ছে পানকৌড়ি।
এ পাখিও সারা বছর দেখা যায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে।ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

    পানিতে শিকারের সঙ্গে লুকোচুরি শেষে ডানা মেলে রোদ পোহাচ্ছে পানকৌড়ি। এ পাখিও সারা বছর দেখা যায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে।ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

সাম্প্রতিক ছবিঘর