নারিকেলদুধ দিয়ে মাছের ডিম ভুনা

রান্না করে তাক লাগিয়ে দিন।

ইশরাত মৌরিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 March 2015, 12:06 PM
Updated : 8 March 2015, 12:06 PM

রেসিপি দিয়েছেন ফারাহ তানজীন সুবর্ণা।

পদ্ধতি

বড়ার জন্য: মাছের ডিম (রুই বা যে কোনো বড় মাছের) ২৫০ গ্রাম। পেঁয়াজকুচি ২ টেবিল-চামচ। কাঁচামরিচ-কুচি ১ টেবিল-চামচ। রসুনবাটা ১/৩ চা-চামচ। হলুদগুঁড়া সামান্য। জিরাগুঁড়া ১/৩ চা-চামচ। লবণস্বাদমতো। তেল ভাজার জন্য।

বড়া তৈরি: তেল বাদে বাকি সব উপকরণ হাত দিয়ে ভালোভাবে চোটকে মণ্ড তৈরি করে নিন। তারপর প্যানে তেল গরম করে টেবিল চামচে করে এক চামচ করে দিয়ে হালকা করে ভেজে তুলে নিন।

গ্রেভি বা ঝোলের জন্য

পেঁয়াজবাটা ১ টেবিল-চামচ। জিরাগুঁড়া আধা চা-চামচ। মরিচগুঁড়া সামান্য। হলুদগুঁড়া সামান্য। রসুনবাটা ১/৪ চা-চামচ। নারিকেলদুধ ১ কাপ। গরমমসলার গুঁড়া ১ চিমটি। আস্ত কাঁচামরিচ ৪-৫টি। চিনি ১/৪ চা-চামচ। লবণ স্বাদমতো। তেল ১ টেবিল-চামচ।

পদ্ধতি

যে প্যানে বড়া ভাজলেন, সেই প্ল্যানের তেল কমিয়ে নিয়ে পেঁয়াজবাটা দিয়ে একটু কষিয়ে তারপর একে একে মরিচ, হলুদগুঁড়া, রসুনবাটা, জিরাগুঁড়া আর লবণ দিয়ে অল্প পানির ছিটা দিয়ে কষাণ।

কষাণো হয়ে গেলে নারিকেলদুধ দিয়ে দিন। চুলার আঁচ বাড়িয়ে রাখবেন। ঝোল ফুটে উঠলেই ভেজে রাখা মাছের ডিমের বড়াগুলো দিয়ে দিন।

এবার গরমমসলা আর আস্ত কাঁচামরিচ এবং চিনি দিন। গা-মাখা ঝোল থাকতেই নামিয়ে নিন।

একটা কথা মনে রাখবেন, মাছের ডিম বেশিক্ষণ চুলায় রাখলে চিংড়ি মাছের মতোই শক্ত হয়ে যায়। তখন খেতে ভালোলাগে না।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক