কর্মক্ষেত্রে পেতে পারেন ভালোবাসা

সম্প্রতি এক জরিপে দেখা গেছে, একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে সহকর্মীরা একে অপরের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে থাকেন।

লাইফস্টাইল ডেস্কআইএএনএস/বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Feb 2015, 11:28 AM
Updated : 12 Feb 2015, 11:30 AM

ভ্যালেনটাইন’স ডে সামনে রেখে জব সাইটক্যারিয়ারবিল্ডার ডটইনে’য়ের আয়োজনে অফিসে রোমন্স বিষয়ক এই জরিপের ফলাফলে দেখা যায়,৩৬ শতাংশ ভারতীয় কর্মজীবি তাদেরই সহকর্মীর সঙ্গে ডেইট করেছেন। আর এদের মধ্যে ৩৭শতাংশের সম্পর্ক বিয়ে পর্যন্ত গড়িয়েছে।

চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে অনলাইনেএই জরিপ করা হয়। যেখানে প্রতিষ্ঠান ও কারখানার আকারের ভিত্তিতে এক হাজার ‘ফুল-টাইম’কর্মজীবি প্রতিনিধির নমুনা যুক্ত করা হয়।

এদের মধ্যে ৫৬ শতাংশ কর্মজীবিজানান, তারা একই অফিসে একই ধরনের কাজ করেন এমন সহকর্মীর প্রতি আকর্ষণ অনুভব করেন।তবে অনেকেই মনে করেন অফিস রোমান্স ক্যারিয়ারের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ।

জরিপে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে যারাঅফিস রোমান্সে জড়িয়েছেন তাদের মধ্যে ৫৫ শতাংশ বসের সঙ্গে প্রেম করেছেন। আর প্রায়৬৮ শতাংশের বেশি কর্মী তাদের উর্ধ্বতনের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছেন।

বর্তমান যুগে সোশাল নেটওয়ার্কিংয়ের জনপ্রিয়তারপরও ৭১ শতাংশ জানান, তাদের কর্মস্থলে প্রেমের সম্পর্ক গোপন রাখার চেষ্টা করতেহয়েছে।

তবে অফিসে এ ধরনের সম্পর্কে জরানোর ক্ষেত্রেকিছুটা সচেতন হতেই হয়। এ বিষয়ে কিছু টিপসও উল্লেখ করা হয়।

- প্রথমেই অফিসের নিয়ম সম্পর্কেজেনে নেওয়া উচিত। কিছু কিছু অফিসে এ বিষয়ে কঠোর নির্দেশ থাকে। তাই অফিসের সহকর্মীরসঙ্গে সম্পর্কে জরানোর আগে অবশ্যই অফিসের নিয়ম সম্পর্কে জেনে নেওয়া উচিত।

- কিছু কিছু সম্পর্কের ইতি মধুরহলেও অনেক সময়ই সম্পর্কের তিক্ততা কর্মক্ষেত্রেও সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে। তাই এবিষয়ে সচেতন হওয়া দরকার। ৭ শতাংশ কর্মজীবী জানান প্রেমের সম্পর্কে সমস্যার কারণেতাদের চাকরি ছেড়ে দিতে হয়েছে।

- ব্যক্তিগত জীবন এবং অফিসের কর্মজীবনআলাদা রাখার অভ্যাস করতে হবে। অফিসে সকলের সামনে নিজেদের ‘অ্যাফেকশন’গুলো এড়িয়েচলুন। আর ব্যক্তিগত মতভেদের মধ্যে সহকর্মীদের জড়াবেন না।

- সোশাল মিডিয়াতে নিজেদের সম্পর্কেকোনো ‘পোস্ট’ দেওয়ার আগে সতর্ক হোন। কোনো বিষয় নিয়ে আলোচনা করার আগে তৈরি না হয়েইকিছু করলে ছোটখাট বিষয় থেকেই সম্পর্কের ইতি ঘটতে পারে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক