বয়স বাড়ানোর খাবার

ত্বকে ক্লান্তির ছাপ পড়ে। অথবা ত্বক দেখলে মনে হয় হুট করেই বেড়ে গিয়েছে বয়স। এমন ঘটতে পারে আগের দিনের খাবারের তালিকায় থাকা খাবারের কারণে।

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 Sept 2014, 12:32 PM
Updated : 18 Sept 2014, 01:28 PM

শুনতে অদ্ভুত লাগলেও সত্যি যে, কিছু কিছু খাবার ত্বকে বয়সের ছাপ ফেলতে পারে।

স্বাস্থ্য বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে আমেরিকান একাডেমি অফ ডার্মটলজির চিকিৎসক আরিয়েল ওস্ট্যাড এমনই কিছু খাবারের নাম উল্লেখ করেন।

মিষ্টি

অতিরিক্ত মিষ্টি বা চিনি গ্রহণ করার ফলে চিনির অণুর সঙ্গে প্রোটিনের মিশ্রণে একটি বিশেষ প্রক্রিয়া শুরু হয়, যাকে বলা হয় গ্লাইকেশন। আর এই প্রক্রিয়া ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। এজন্য অতিরিক্ত মিষ্টি খাওয়ার অভ্যাসের কারণে ত্বকে বয়সের ছাপ পড়তে পারে।

শুধু ত্বক নয়, দাঁতের জন্যও মিষ্টি ক্ষতিকর। চিনির কণা দাঁতের সঙ্গে আটকে থাকে, আর সেখান থেকে ব্যাকটেরিয়া জন্মায়, দাঁত ক্ষয় করে আর বিবর্ণ করে দেয়। তাই মিষ্টিজাতীয় খাবার খাওয়ার পর পানি দিয়ে মুখের ভেতর ভালোভাবে পরিষ্কার করুন।

অ্যালকোহল

সুন্দর ত্বকের জন্য চাই সুস্থ যকৃত বা লিভার। শরীরের বিষাক্ত পদার্থ বের করে দিতে কাজ করে সুস্থ লিভার। যদি লিভারে বিষাক্ত পদার্থ জমতে থাকে আর ঠিক মতো শরীর থেকে বের করতে না পারে তখন তকে ব্রণ, ফুষ্কুড়ি দেখা দেয়। আর অ্যালকোহল লিভারের কার্যক্রমে বাধা দেয়।

তাছাড়া অ্যালকোহল ঘুমের ব্যঘাত ঘটায়। আর অপর্যাপ্ত ঘুমের কারণেও ত্বকের উপর বয়সের ছাপ পড়তে পারে।

পোড়া মাংস

বার্গারে পোড়া মাংসের প্যাটিটা খেতে বেশ লাগে। তবে এই পোড়া কালো মাংস শরীরে হাইড্রোকার্বন তৈরির মাধ্যমে প্রদাহ সৃষ্টি করতে পারে। আর প্রদাহের সময় ত্বকের কোলাজেন ভাঙতে থাকে। কোলজেন হচ্ছে ত্বক গঠণের প্রধান উপাদান।

তাই বলে বিবিকিউ করা মাছ-মাংস বা বার্গার খাওয়া বাদ দেওয়ার দরকার নাই। শুধু পোড়ানো খাবার খাওয়ার আগে পোড়া কালো অংশটুকু বাদ দিয়ে খাওয়ার চেষ্টা করুন।

লবণাক্ত খাবার

লবণ দিয়ে প্রতিটি খাবারই রান্না করা হয়। তবে খাবারে অতিরিক্ত লবণ ত্বকের উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে। কিছু কিছু টিনজাত খাবার সংরক্ষণ করতে সোডিয়াম ব্যবহার করা হয়। যা শরীরে অতিরিক্ত পানি ধরে রাখাতে সাহায্য করে। ফলে ত্বকে কিছুটা ফোলাভাব দেখা দিতে পারে।

প্রক্রিয়াজাত মাংস

সসেজ, বেকন, প্যাটি ইত্যাদি প্রক্রিয়াজাত মাংস খেতে দারুণ মজা। তবে এই মাংসগুলো প্রক্রিয়জাত করতে ব্যবহার করা হয় সালফাইট এবং অন্যান্য প্রিজারভেটিভ। আর ওই উপাদানগুলো ত্বকের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

এসব খাবারকে বিদায় জানাতে না পারলে, অন্তত কম খান। পাশাপাশি বেশি করে সবজি খাওয়ার চেষ্টা করুন।

ঝাল খাবার

ঝালমসলা দেওয়া খাবার খেতে তো ভালোই লাগে। ধারণা করা হয় অতিরিক্ত ঝাল ত্বকের ধমনী আরও সক্রিয় করে, রক্তচলাচল বাড়িয়ে দেয়। যা ত্বকের উপর প্রভাব ফেলে। বিশেষ করে মেনোপজ বা রজোনিবৃত্তিতে যাওয়া কোনো মহিলার ত্বক বিবর্ণ ও মলিন লাগতে পারে।

তাই সবসময় হালকা ঝালমসলা দেওয়া খাবার খাওয়ার অভ্যাস তৈরি করতে হবে।

রেড মিট

চর্বিযুক্ত মাংস বেশি খাওয়া খারাপ। এ কথা আমরা সবাই জানি। কারণ রেড মিট বেশি খেলে বা প্রতিদিন গরুর মাংস খাওয়ার অভ্যাস থাকলে কোষ গঠণে বাধা প্রাপ্ত হয়। যা ত্বকের উপরেও প্রভাব ফেলে।

এনার্জি ড্রিংকস

দ্রুত শরীর সতেজ করার জন্য রয়েছে এনার্জি ড্রিংকস। তবে এই পানীয় দাঁতের সাংঘাতিক ক্ষতি করে থাকে। সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে এই ধরনের পানীয়তে যে পরিমাণ অ্যাসিডিক বা ক্ষার থাকে তা এনামেল নষ্ট করার পাশাপাশি দাঁত বিবর্ণ করে দেয়।

কফি

সারাদিনের অবসাদ দূর করতে কফির জুড়ি নেই। তবে ত্বকে বয়সের ছাপ ফেলতে পারে কফির ক্যাফেইন। তাছাড়া দাঁতের জন্যও ক্ষতিকর কফি। তবে কফির অনেক উপকারও আছে। এরমধ্যে অন্যতম হল কফি স্কিন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়।

তাই এই ধরনের পানীয় গ্রহণের কিছুক্ষণ পর পানি পান করার অভ্যেস করুন। ক্যাফেইন ধরনের পানীয়তে যে ক্ষার থাকে তা ধুয়ে দিবে পানি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক