দন্ত্য বন্দনা

আজকাল আমরা বেশ ত্বক সচেতন তো বটেই, দাঁত কিংবা মুখের ভেতরের বিভিন্ন সমস্যা নিয়েও চিন্তিত থাকি।

ইশরাত মৌরিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 May 2014, 02:14 AM
Updated : 20 May 2014, 02:14 AM

দাঁতকেনো হলুদ, ছবিতুলতেগেলেদাঁতসুন্দরলাগেনাকিংবাদাঁতেসাদাপাথরেরমতো কি যেন জমছে। আবারযারাধূমপায়ীতাদেরচিন্তা—মাড়িকালো হয়ে যাচ্ছে, দাঁতে দাগ পড়ছে।

এরকমবিভিন্ন সমস্যার কারণ আর সমাধান দিয়েছেনচিল্ড্রেন্সওরালহেলথডেভেলপমেন্টফাউন্ডেশনেরনির্বাহী পরিচালক ডা. মঞ্জুরুলআলমসাগর।

হলুদ দাঁত

দাঁতহলদেহওয়ামানেইকোনোসমস্যানয়।সাধারণত দাঁতের রং দুই রকমহয়, সাদা এবং হলুদ। সত্যি বলতে পৃথিবীতে গোত্র বা মানুষ ভেদে ৩২ শেইডের দাঁত হতে পারে। জন্মগত কারণে রংয়ের তারতম্য হয়। উদাহরণ হিসেবে বলা যেতে পারে ইউরোপিয়ান শ্বেতবর্ণের চেয়ে আফ্রিকান কৃষ্ণবর্ণেরমানুষদের দাঁতসাদাহয়।

জেনেটিকবাজন্মগতকারণছাড়াআরোকিছুকারণেদাঁতেররং বিকৃতহতেপারে।যেমন: নিয়মিতবাঠিকমতোদাঁতেরযত্ন নানেওয়া। ধূমপান থেকে স্টেইন।

খাদ্যাভ্যাস:পান, চা, কফিবাঅ্যালকোহলজাতীয় দ্রব্য বেশি খেলেবা, পরিবেশগতকারণ:সাপ্লাইবাখাবারপানিতেমাত্রাতিরিক্তফ্লোরাইডদাঁতেরহলদেভাবেরঅন্যতমকারণহতেপারে।

আঘাত পেলেবামুখে কোনো কারণে ব্যথা পেলে দাঁতের রং হলদে বা লালচে হয়ে যায়। আমাদের দেশে গ্রামাঞ্চলে মেয়েদের মধ্যে এটি বেশি দেখা যায়।

কিছুঅষুধ যেমন: টেট্রাসাইক্লিনবাডক্সিসাইক্লিন-জাতীয় কিছু অ্যান্টিবায়োটিক এবং অ্যান্টিহিস্টামিন-জাতীয় কিছু অষুধদাঁতের রংপরিবর্তনেরকারণ।

অন্যান্য:কেমোথেরাপিবারেডিওথেরাপিনিচ্ছেনএমনরোগী, গর্ভবতীমা,অনেকদিনধরেমুখেডেঞ্চারব্যবহারকারী,বাবৃদ্ধদেরদাঁতের রং বিকৃতহয়েযেতেপারে।

হলদেভাব দূর করার উপায়

নিয়মিতএবংসঠিকভাবেদাঁতওমুখেরযত্ননিলে এ ধরনের যেকোনোসমস্যাকম হয়। এছাড়াধূমপান,তামাক,পানখাওয়া, অ্যালকোহলবর্জনসহখ্যাদ্যাভ্যাসপরিবর্তনঅন্যতমপ্রয়োজনীয়পদক্ষেপ।

দাঁত সাদা করার চিকিৎসা

দাঁতসাদাকরারসর্বাধুনিকপদ্ধতিকেবলাহয়ব্লিচিং।বিভিন্নপ্রকারেরব্লিচিংপদ্ধতিতে দাঁতের রং সাদা করা সম্ভব। কালের চাহিদায় এখন অনেক দন্তচিকিৎসকএইপদ্ধতিতেকাজকরছেন।

কমপোজিটফিলিংবাবন্ডিং:আপনারপছন্দেরশেইড অনুযায়ী বন্ডিং করে নেওয়া যেতে পারে। এটি এক ধরনের কম্পোজিট জিলিংম্যাটিরিয়াল। তবে সবগুলোদাঁতহলদেহয়েগেলে এই পদ্ধতিতে না যাওয়াই ভালো।

পোরসেলিনক্রাউনবাক্যাপবাভিনিয়ার:দাঁতের ক্যাপবাক্রাউনসম্পর্কে সবাইকমবেশিজানেন।

এছাড়াওকিছুভেষজউপাদানদাঁতসাদাকরতেসহায়কভূমিকারাখে। যেমন:লেবু, নিম, তুলসি, কমলারখোসা। পরিমিতপরিমাণেবেকিংসোডাবাহাইড্রজ়েনপারক্সাইডদিয়েকুলিকুচিকরেওউপকারহয়।

কালো মাড়ি

দাঁতেরমতো মাড়িররং গোত্রভেদেকালচেবাগোলাপিহতেপারে।সাধারণত গোলাপিমাড়িমানে সুস্থমাড়ি,যেখানেসঠিকভাবেরক্তচলাচলকরে।

এছাড়াকিছুকারণেমাড়িররং কালচে হতে পারে। যেমন:অটো-ইমিউনোডিজোর্ডারস্,ব্যাক্টেরিয়াঘটিতমাড়িরইনফেকশন,ধূমপান,অতিরিক্তদুশ্চিন্তা, তীব্রঅপুষ্টি, কিছুভাইরাস,ভিটামিনবি১২স্বল্পতা, কিছুএন্ডোক্রাইনডিজঅর্ডারএবংকিছুডেভেলপমেন্টালরোগযেমন-ফরবেসঅ্যালব্রাইটসিন্ড্রম।

ধূমপায়ীদের মাড়ি কালো হওয়ার কারণ

ধূমপানেরফলেমাড়িরস্বাভাবিকরক্তসঞ্চালনব্যাহতহয়।মাড়িররক্তনালীকাগুলোআস্তেআস্তেসংকুচিতহয়েআসে।রক্তসঞ্চালনেরঅভাবেমাড়িকালোবাকালচেরূপধারণকরে।ধূমপানত্যাগেমাড়িস্বাভাবিক রং ফিরেপেতেপারে।তবে সেটি খুব দ্রুত হয় না।

এছাড়াওঅতিরিক্তধূ্মপানেরফলে‘স্মোকারস্ মেলানোসিস’নামের একটি রোগ হতে পারে। যারকারণে মাড়িতেকালোকালোস্পটতৈরিহয়।

মাড়ির কালোভাব দূর করার উপায়

নিয়মিতদাঁতব্রাশ। ডেন্টালফ্লস ব্যবহার করা। ধূমপান ত্যাগ করা। ভিটামিনযুক্তখাবারখাওয়া।অতিরিক্তকালোমাড়িরজন্যসার্জারিপর্যন্তকরাযেতেপারে।সাধারণত ‘স্কালপেল সার্জিকাল টেকনিক’ অথবা ‘ক্রায়ো সার্জারি’ করা হয়ে থাকে।

দাঁতে পাথর

প্রায়ইদুইদাঁতেরমাঝেবাদাঁতওমাড়িরসংযোগস্থলেশক্তপাথরের মতো বস্তু জমতে দেখা যায়। এটা ব্রাশ করার পরেও চলে যায় না। ডাক্তারি ভাষায়একে ডেন্টালক্যালকুলাসবলা হয়। 

এটা আসলে কিছুব্যাকটেরিয়ালকলনিরক্যালসিফাইডরূপ।

পাথর পড়ার কারণ

রাতে দাঁতব্রাশ না করে ঘুমানোর ফলে জমে থাকা খাদ্যকণাগুলোতে ব্যাকেটেরিয়া কলনি তৈরি করে। প্রায় ১২ ঘন্টা পর্যন্ত যদি ব্রাশ না করা হয় তাহলে প্লাক তৈরি হয়। যাদের দাঁত ব্রাশ করারপদ্ধতি ঠিকমতোহয়না, বাসবজায়গায়ব্রাশপৌঁছায়না,তাদেরক্ষেত্রেএইপ্লাকআস্তেআস্তেক্যালসিফাইডহয়েমোটামুটি৯থেকে২১দিনেরমধ্যেশক্তখোলসের মতোপাথুরেরূপনেয়।

পাথর দূর করার উপায়

দাঁতের পাথর দূর করার জন্য ‘স্কেলিং’ করতে হয়। বছরে অন্তত একবার স্কেলিং করা উচিত। কারণ এই পাথর বা ক্যালকুলাস মাড়ির ইনফেকশনের অন্যতম কারণ।

মাড়ি থেকে রক্ত পড়ারকারণ

দাঁতব্রাশ করার সময় রক্তপড়ার আসল কারণ মাড়ির ইনফেকশন। এটি দূর্বল মাড়ির লক্ষণ। দাঁতে জমে থাকা পাথর থেকে প্লাক জমাট বাঁধতে সাহায্য করে। জমেথাকাপ্লাকসিআইপিডি বা ক্রনিক ইনফ্লাম্যাটোরি পিরিয়োডোন্টাল ডিজিজ-এর জন্ম দেয়। এই অবস্থায় দাঁত পরিবেস্টিত করে রাখা মাড়ি থেকে রক্ত পরে।

এছাড়াকিছুশারীরিকরোগযেমন: হেমোফিলিয়া, এপ্লাস্টিকএনেমিয়া, লিউকেমিয়াবাস্কার্ভিহলেওমাড়িথেকেরক্তপড়তেপারে।

রক্তপড়া বন্ধের উপায়

আগেরোগসম্পর্কেনিশ্চিতহতেহবে।নিয়মিতওসঠিকনিয়মেদাঁতব্রাশএবংমুখেরযত্ননিতেহবে।বছরেঅন্ততএকবারস্কেলিংকরাতেহবে।ভিটামিনবিওসিমাড়িরক্ষায়সহায়ক।

মডেল: সালমিন

ছবি: ই স্টুডিও

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক