ঈদে ঘর থাকুক টিপটপ

ঈদের দিনের কাজের চাপ থাকে অনেক বেশি। তাই ঘর গোছানোর অংশটা আগেই শেষ করে নেওয়া ভালো।

তৃপ্তি গমেজবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 July 2022, 08:59 AM
Updated : 7 July 2022, 08:59 AM

ব্যস্ত দিনে সহজেই ঘর অগোছালো হয়ে যায়। তাই ঝটপট তা গুছিয়ে নেওয়ার কৌশল জানা থাকলে সময় মতো কাজে লাগে।

বাংলাদেশ গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের ‘রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড এন্টোপ্রনরশিপ’ বিভাগের সহকারী  অধ্যাপক ইফফাত জাহান এই বিষয়ে পরামর্শ দেন যে, “ঈদের কয়েকদিন আগেই ঘর ঝাড়া-মোছার কাজ শেষ করে রাখা ভালো আর সুযোগ না হয়ে উঠলে অন্তত আগের দিন তা করতে হবে।”

“কোথায়, কীভাবে অতিথি আপ্যায়ন করা হবে তা আগে থেকে ঠিক করে রাখতে হবে। আর ঈদের দিন কোন থালা-বাসনে খাবার পরিবেশন করবেন সেটাও আগে থেকে ঠিক করে রাখুন এবং ধুছে মুছে হাতের নাগালে রাখতে হবে।”

ঈদের দিন সকালে শোবার ঘর গোছানোর জন্য বিছানার চাদরের ওপরে নতুন চাদর বিছিয়ে দিতে পারেন। আর সঙ্গে রাখুন কিছু কাঁচাফুল। ঘরে সুবাস ছড়ানোর পাশাপাশি মনও প্রশান্তিতে ভরিয়ে দেবে।

বসার ঘরের সোফা, চেয়ার, টেবিল ইত্যাদি ঠিকঠাক ভাবে সাজিয়ে রাখুন। সোফার পাশ বালিশের কুশন পরিবর্তন করে নিন। বসার ঘরে দুয়েকটা শোপিস রাখা যেতে পারে। দেখতে ভালো লাগবে।

ঈদে অতিথির আনাগোনা বেশি হয়। তাই ঘর ময়লাও হয় বেশি। তাই সুযোগ মতো ঝাড়ু দিয়ে দিয়ে নিতে হবে।

এয়ারফ্রেশনার হাতের কাছেই রাখুন। সুযোগ মতো স্প্রে করে নেবেন। এছাড়াও তাজা ফুল এবং আকর্ষণীয় সামগ্রী বসার ঘর সাজানোর জন্য রাখতে পারেন।

খাবার পরিবেশন করা হবে এমন পাত্রগুলো যে কোনো একপাশে সাজিয়ে রাখুন। এটা ভিন্ন ‘ইম্প্রেশন’ তৈরি করবে বলে মনে করেন ইফফাত জাহান।

ঈদের দিনে রান্না ঘরের কাজ বেশি। বার বার অনেক প্লেট, গ্লাস বাটি ইত্যাদি ধুতে হয়। এই কাজগুলো দ্রুত করার জন্য একটি পাত্রে সাবান পানি গুলিয়ে রাখুন। এতে করে দ্রুত পাত্র মেজে ধুয়ে নেওয়া যাবে।

বারান্দা বা গোসলখানায় অযথা কাপড় ঝুলিয়ে না রেখে অতিথি আসার আগেই তা সরিয়ে ফেলুন।

আর যদি ভেজা কাপড় থাকে তাহলে ছাদে অথবা যেদিকে গোসলখানা কম ব্যবহার হয় যেমন শোবার ঘরের কাছের গোসল খানায় রাখা ভালো বলে জানান তিনি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক