গ্রীষ্মে যেসব মসলা কম খাওয়া ভালো

খাবারের স্বাদ বাড়ায় ঠিকই তবে কিছু মসলা দেহের তাপও বাড়ায়।

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 June 2022, 11:08 AM
Updated : 1 June 2022, 11:08 AM

আর গরমকালে কিছু মসলা অতিরিক্ত খাওয়া দেহে বাড়তি তাপ সৃষ্টি করে। ফলে দেখা দেয় হজমজনিত সমস্যা।

টাইমসঅফইন্ডিয়া ডটকম’য়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে ভারতীয় স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ এবং পুষ্টিবিদ সুরভি আগরওয়ালের মতে, “ভারতীয় খাবারের স্বাদ ও গন্ধে যে বৈশিষ্ঠ্য রয়েছে তা যে কোনো পরিবেশ মহোনীয় করে তুলতে পারে। আর এটা নির্ভর করে বিভিন্ন মসলার ব্যবহার।”

“তবে ঋতুর কথা মাথায় রেখে এদের ব্যবহার করতে হয়। আজওয়াইন, লাল মরিচ, হলুদ, আদা বা রসুনের মতো মসলাগুলোর রয়েছে উষ্ণতা বাড়ানোর ক্ষমতা৷”

তিনি আরও বলেন, “গরমকালে এসব মসলাযুক্ত খাবার খাওয়া দেহের তাপ বাড়ায়, ব্রণ, ফুস্কুড়ি ও জ্বলুনি সৃষ্টি করতে পারে। অনেক বিশেষজ্ঞ মনে করেন মৌরি, মেথি ও ধনিয়া দেহের তাপ নিয়ন্ত্রণ করে এবং শীতলভাব আনতে সহায়তা করে।”

আদা: আদাতে আছে ঔষুধি উপাদান ‘জিঞ্জারল’ যা পেট ফাপা কমায়, হজম উন্নত করে। তবে অতিরিক্ত খাওয়া পেট খারাপের কারণ হতে পারে।

সামান্য পরিমাণে আদা চিবানো হজম ক্রিয়া উন্নত করতে সহায়তা করে।

রসুন: পুষ্টি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে সমৃদ্ধ। তবে গ্রীষ্মের সময় অতিরিক্ত রসুন খাওয়া শরীরে তাপ বাড়ায় এবং ঘাম তৈরি করতে পারে।

পরিমিত রসুন গ্রহণ ‘এলডিএল’য়ের মাত্রা কমাতে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এবং বিপাক বাড়াতে সাহায্য করে।

লাল মরিচ: লালসহ অন্যান্য মরিচ-জাতীয় মসলা ক্যাপসাইসিন সমৃদ্ধ। যা একটি রাসায়নিক উপাদান এবং খাবারে স্বাদ ও গন্ধ যোগ করতে ভূমিকা রাখে।

এর উপস্থিতি সংবেদনশীল নিউরনগুলোকে উদ্দীপিত করে। ফলে ঘাম এবং শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পায়।

আজওয়াইন: এই মসলা ভারতীয় রন্ধণপদ্ধতিতে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। তবে উষ্ণতাবর্ধক এই মসলা অতিরিক্ত খাওয়া শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি করে।

আবার অতিরিক্ত আজওয়াইন খাওয়া চর্বি পোড়াতে সাহায্য করে ঠিকই, অন্যদিকে পেট খারাপও সৃষ্টি করে।

হলুদ: অতিরিক্ত হলুদ গ্রহণ করলে দেহের তাপ বাড়ে। ফলে হজমে সমস্যা, পেট ফোলা, কোষ্ঠকাঠিন্য বা ডায়রিয়া দেখা দেয়।

দেহের বাড়তি তাপ ব্রণ এবং র‍্যাশও সৃষ্টি করে।

আরও পড়ুন

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক