পায়ের যত্নে ভিনিগার

পায়ে দুর্গন্ধ হয়! তবে ব্যবহার করতে পারেন ভিনিগার।

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Nov 2021, 12:03 PM
Updated : 15 Nov 2021, 12:03 PM

ভিনিগার গোলানো পানিতে পা ভিজিয়ে রেখে নানান সমস্যা দূর করা যায়।

টিপস অ্যান্ড ট্রিক্স ডটকম’য়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে পায়ের যত্নে ‘ভিনিগার’ ব্যবহারের  প্রচলিত ও কার্যকর কিছু পন্থা এখানে দেওয়া হল।

একজিমা কমায়: পায়ের সাধারণ ফাঙ্গাসের মধ্যে একজিমা একটি এবং এটা পায়ের তালু ও গোড়ালিতে বেশি দেখা যায়।

খালি পায়ে হাঁটা, সুমিং পুলে নামা ইত্যাদি নানান কারণে এই সংক্রমণ দেখা যায়। এর ফলে পায়ের শুষ্কতা, চুলকানি, প্রদাহ ও ফোস্কা দেখা দেয়।

ভিনিগারের ফাঙ্গাস বিরোধী উপাদান। কড়া ঘ্রাণ ও সংক্রমণ কমাতে সহায়তা করে।

পা নিয়মিত ভিনিগারের পানিতে ডুবিয়ে রাখলে এক্ষেত্রে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়। 

পায়ের দুর্গন্ধময় ঘাম: পা ও জুতায় ঘাম ও ব্যাক্টেরিয়ার কারণে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়।

ভিনিগার ফাঙ্গাস ও ব্যাক্টেরিয়ার বিরুদ্ধে কাজ করে। ঘামের দুর্গন্ধ দূর করতে পা ভিনিগারের পানিতে ডুবিয়ে রাখলে উপকার পাওয়া যায়।

নিয়মিত ব্যবহারের এই সমস্যা দ্রুত দূর হয়। অনেকেই ভিনিগারের গন্ধ পছন্দ করেন না। তাই ভিনিগার ব্যবহারের পরে তা ভালো মতো ধুয়ে নিতে হবে।

পায়ের শুষ্কতা ও পা ফাটার সমস্যা: ভিনিগার পায়ের শুষ্কতা কমায়। এতে পা ফাটার ব্যথা ও অস্বস্তি দূর হয়। এর অম্লতা পায়ের শুষ্কতা কমায় এবং আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। ফলে পা কোমল ও মসৃণ হয়।

পায়ের জন্য ভিনিগার বাথ

পায়ের আরামের জন্য ভিনিগার বাথ বেশ জনপ্রিয়।

বড় এক গ্লাস পরিমাণ ভিনিগার পাত্রে ঢেলে বা দুই গ্লাস ভিনিগার এক বালতি পানিতে ঢেলে পা ডুবিয়ে রাখতে হবে।

১০ থেকে ২০ মিনিট পা ডুবিয়ে রেখে শুকানোর জন্য কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে হবে। এতে আরাম পাওয়া যাবে।

প্রতিদিন ব্যবহারে পায়ের নানাবিধ সমস্যা দূর হয়।

আরও পড়ুন

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক