বয়স্বীদের নিঃসঙ্গতা কমাতে ফেইসবুক

পরিণত-বয়স্কদের অনেকেই ভোগেন একাকিত্বে। তাদের এই নিঃসঙ্গভাব কাটাতে পারে ফেইসবুক।

লাইফস্টাইল ডেস্কআইএএনএস/বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 May 2018, 09:58 AM
Updated : 8 May 2018, 09:58 AM

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসালভানিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটি’রএক গবেষণায় এমনই তথ্য পাওয়া গিয়েছে।

‘নিউ মিডিয়া অ্যান্ড সোসাইটি’ শীর্ষকজার্নালে প্রকাশিত এই গবেষণায় বলা হয়, “ফেইসবুক ও অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোএকাকিত্ব দূর করতে অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা পালন করতে পারে। তাদের একটি বড় সামাজিক দলেরঅন্তর্ভুক্ত হওয়ার অনুভুতি দিতে পারে।”

গবেষণার সহ-লেখক পেনসিলভেনিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটিরঅধ্যাপক এস শ্যাম সুন্দর বলেন, “এই অনুভুতিটা জরুরি, বিশেষ করে পরিণত-বয়সি বা বয়োবৃদ্ধদের।কারণ হাঁটাচলার স্বাধীনতা কমে যাওয়ায় হয়ত তারা শেষ দিনগুলো পার করছেন চার দেয়ালে আবদ্ধঅবস্থায়।”

এই গবেষণার জন্য ৬০ এবং তারও বেশি বয়সের২শ’জন অংশগ্রহণকারীকে বাছাই করেন। এবং তাদেরকে ফেইসবুক ব্যবহার করান এক বছর ধরে।

অংশগ্রহণকারীদের ফেইসবুকে গবেষকরাও বন্ধুহন। ফলে অংশগ্রহণকারীদের ফেইসবুক ব্যবহারের মাত্রা এবং ধরন পর্যবেক্ষণ করা সম্ভব হয়।

ফেইসবুক ব্যবহার সম্পর্কে তাদের অভিমতজানতে এ বিষয়ক বিভিন্ন প্রশ্নও করা হয় অংশগ্রহণকারীদের।

সুন্দর বলেন, “যারা ফেইসবুকে তাদের পুরানোস্মৃতিগুলো তুলে ধরেছেন বেশি, তারাই একটি বড় সামাজিক জনগোষ্ঠীর অংশ হওয়ার তৃপ্তিটাঅনুভব করেছেন বেশি। আবার যারা যত বেশি ‘প্রোফাইল পিকচার’ পরিবর্তন করেছেন, তারা ততবেশি নিয়ন্ত্রক হওয়ার তৃপ্তি অনুভব করেছেন।”

তিনি আরও বলেন, “ফেইসবুকের বিভিন্ন্ পোস্টেকমেন্ট করা এবং সেই কমেন্টের জবাব দেওয়ার মাধ্যমে তারা সামাজিক আলাপচারিতার রেশ পেয়েছেন।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অভিজ্ঞতা আসলে একেবারে ভালো কিংবা একেবারে খারাপ নয়। বরংএটি বিভিন্ন ধরনের ব্যবহারকারীর হাতে বিভিন্ন ধরনের সুযোগ তুলে দেয়।”

সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’রয়ুন হোয়া এই গবেষণায় কাজ করেন সুন্দরের সঙ্গে। তিনি বলেন, “ফেইসবুকে বয়স্ক ব্যবহারকারীরসংখ্যা বর্তমানে ক্রমেই বাড়ছে। এবং ব্যবহারকারীর একটি উল্লেখযোগ্য অংশ দখল করে আছেনতারা।”

গবেষকরা বলেন, “বয়স্কদের মধ্যে সবচাইতেগুরুত্বপূর্ণ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক। তাই এই প্ল্যাটফর্মগুলোর ‘ডেভেলপার’দেরউচিত বয়স্কদের কথা মাথায় রেখে বিশেষ কিছু ফিচার নিয়ে আসা।”

ছবি: রয়টার্স।

আরও পড়ুন

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক