আর নয় ঘামে ভেজা পোশাক

গরমে ঘাম হওয়া স্বাভাবিক। তবে ঘামের জন্য জামাকাপড় নষ্ট হওয়া বা ত্বকের ক্ষতি থেকে বাঁচার রয়েছে উপায়।

তৃপ্তি গমেজবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 May 2017, 11:11 AM
Updated : 31 May 2017, 11:14 AM

ঘামের কথা চিন্তা করে অনেকে পোশাকের নিচে 'ইনার' (গেঞ্জি, শেমিজ) ব্যবহার করেন। অনেকে আবার গরম বেশি লাগবে বলে এগুলো এড়িয়ে চলেন।

এই গরমে পোশাকের সঙ্গে ইনার ব্যবহার করা ঠিক না ভুল সেই প্রসঙ্গে কথা বলেন বাংলাদেশ গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের 'বস্ত্রপরিচ্ছদ ও বয়নশিল্প' বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শাহ্‌মিনা রহমান।

তিনি বলেন, “যারা সারাদিন বাইরে থাকেন তাদের জন্য অনবরত ঘাম হওয়া ও শুকানো খুবই বিরক্তিকর। চাইলেই হয়ত এই ঘাম এড়ানো যাবে না। তবে ঘামের কারণে হওয়া নানান অসুবিধা এড়ানো সম্ভব।”

পোশাকের নিচে 'ইনার' ব্যবহার করার পরামর্শ দেন শাহ্‌মিনা।

তিনি বলেন, “কেবল পানি নয়, ঘামের মাধ্যমে শরীর থেকে লবণ ও অন্যান্য খনিজ উপাদান বেড়িয়ে আসে। যা কাপড় ও ত্বকের ক্ষতি করে। পুরুষরা গরমে পোশাকের নিচে ‘গেঞ্জি’ ও মেয়েরা ‘সেমিজ’ ব্যবহার করলে তা দ্রুত ঘাম শুষে নেয় বলে অস্বস্তি কম হয়। তবে ‘ইনার’ হিসেবে অবশ্যই সুতি কাপড় বেছে নিতে হবে।”

অনবরত ঘাম হওয়া ও তা শরীরে শুকিয়ে যাওয়া- পোশাক ও ত্বকের জন্য ভালো নয়। সুতি কাপড় খুব সহজে ঘাম শুষে নেয় বলে তা ব্যবহারে আরাম ও নিরাপদ। পোশাকের নিচে সুতির পাতলা সাদা রংয়ের ইনার ব্যবহার করার পরামর্শ দেন এই অধ্যাপক।

তিনি আরও বলেন, “যারা গরমের জন্য ইনার ব্যবহারে উৎসাহিত নয় তারা সাদা রংয়ের ইনার ব্যবহার করে উপকৃত হবেন। পাতলা, সাদা ও নরম রংয়ের 'ইনার' ব্যবহার করলে তাতে গরম কম লাগে এবং ঘাম দ্রুত শোষিত হয়। অন্যান্য তন্তুর শোষণ ক্ষমতা সুতির চেয়ে কম। 'ইনার' ব্যবহার না করলে ঘাম অনেকক্ষণ শরীরে স্থায়ী হয় যা ত্বকে সংক্রমণের সৃষ্টি করতে পারে। তাছাড়া ঘামের জন্য শরীর ভিজে থাকার কারণে ঠাণ্ডা লেগে যাওয়ার সম্ভাবনাও থাকে।”

“বাইরের গরম ও ঘাম থেকে বাঁচতে নিয়মিত ইনার ব্যবহার করা উচিত তাই বলে একই 'ইনার' নয়। প্রতিদিনের ব্যবহৃত ‘ইনার’ প্রতিদিন পরিষ্কার করতে হবে। তানা হলে হীতে বিপরীত হবে। শরীরে নানা রকমের সংক্রমণজনিত সমস্যা দেখা দিতে পারে।” বললেন শাহ্‌মিনা।

তাই ঘামের অস্বস্তি কাটাতে এবং পোশাক ঠিক রাখতে সুতির পাতলা ‘ইনার’ ব্যবহার করাই হবে সঠিক পন্থা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক