গরমে ঠাণ্ডা মাস্ক

গ্রীষ্মে সতেজ থাকার পাশাপাশি ত্বককে আরাম দিতে ব্যবহার করতে পারেন প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে তৈরি শীতল মাস্ক।

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 April 2017, 11:53 AM
Updated : 20 April 2017, 11:53 AM

রূপচর্চাবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে জানানো হয়, ‘ফেইস মাস্ক’ ত্বকের নানান সমস্যার সমাধানে বেশ সহায়ক। তেমনি ত্বকে পুষ্টি যোগানোর পাশাপাশি এই গরমে শীতল রাখতেও ‘ফেইস মাস্ক’ ব্যবহার করা যেতে পারে।

দই ও তরমুজের মাস্ক: টক দই ত্বকের জন্য বেশ উপকারী। অন্যদিকে তরমুজ দেবে শীতল পরশ। রোদপোড়া ত্বকের যত্নে এই দুই উপাদানে তৈরি মাস্ক দারুণ সহায়ক। প্রয়োজন বুঝে কয়েক টুকরা তরমুজ এবং দই ভালোভাবে ব্লেন্ড করে নিন। ব্রাশের সাহায্যে মিশ্রণটি ত্বকে লাগান। ২০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।

অ্যালোভেরা এবং লেবু: ত্বকের অতিরিক্ত তেল দূর করে এবং রং উজ্জ্বল করতে সহায়তা করে লেবু। অন্যদিকে অ্যালোভেরা ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখে। দুই টেবিল-চামচ অ্যালোভেরা জেলের সঙ্গে দুই টেবিল-চামচ তাজা লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ মুখে ও গলায় ব্যবহার করুন। ২০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন। লেবু ব্যবহারের পরপরই রোদে বের হওয়া ঠিক নয় তাই এই মাস্ক রাতে ব্যবহার করা ভালো।

পুদিনা ও মুলতানি মাটি: পুদিনার শীতলকারী উপাদান গরমের কারণে হওয়া জ্বালাভাব ও র‌্যাশ উপশমে সহায়ক। অন্যদিতে ত্বকের যত্নে মুলতানি মাটির জনপ্রিয়তা দীর্ঘদিনের। এই মাটি ত্বকের কোমলতা ধরে রেখে অতিরিক্ত তেল দূর করে এবং ত্বক উজ্জ্বল করে তোলে। এক মুঠ পুদিনা-পাতা ভালোভাবে ধুয়ে ব্লেন্ড করে নিন। এবার মুলতানি মাটির সঙ্গে মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। মুখে ও গলায় লাগিয়ে শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।

শসা ও মধু: ত্বক শীতল করে শসা এবং মধু ত্বকের আর্দ্রতা যোগায়। একটি শসার খানিকটা অংশ নিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে ব্লেন্ড করে নিন। এবার শসার পেস্টের সঙ্গে এক টেবিল-চামচ মধু মিশিয়ে নিন। পুরো ত্বকে লাগিয়ে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

গোলাপ জল এবং চন্দন: চন্দন ত্বকের উজ্জ্বলতা ধরে রাখার পাশাপাশি শীতল রাখতেও সাহায্য করে। গোলাপ জলও গরমে স্বস্তি আনে। দুই টেবিল-চামচ চন্দনগুঁড়ার সঙ্গে পরিমাণ মতো গোলাপ জল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। গরমে ক্লান্ত ও প্রাণহীন ত্বকের যত্নে এই মাস্ক দারুণ উপকারী।

ছবির প্রতীকী মডেল: মৌ। ছবি: প্রামানিক।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক