ঠোঁট থাকুক কোমল

মুখের অন্যান্য অংশের তুলনায় ঠোঁটের ত্বক অনেক সংবেদনশীল ও পাতলা। তাই দ্রুত শুষ্ক হয়ে যায়। চামড়া উঠতে পারে এবং কালচে হওয়ার সমস্যাও থাকতে পরে। তাই প্রয়োজন বাড়তি যত্ন।

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 Sept 2016, 12:56 PM
Updated : 27 Sept 2016, 12:57 PM

সূর্যের তাপ, ধূমপান, অতিরিক্তক্যাফেইন গ্রহণ, হরমোনের অসামঞ্জস্যতা ইত্যাদি কারণে ঠোঁট কালচে হয়ে যেতে পারে। রূপচর্চাবিষয়কএকটি ওয়েবসাইটে ঠোঁট কোমল ও গোলাপি করার কিছু টিপস উল্লেখ করা হয়।

রূপচর্চাবিষয়ক একটি ওয়েবসাইট অবলম্বনেসহজলভ্য ও ঘরোয়া উপাদানে ঠোঁটের যত্ন নেওয়ার কিছু পন্থা এখানে দেওয়া হল।

গোলাপ: আর্দ্রতাএনে ত্বকের সাধারণ সমস্যা উপশমের মাধ্যমে শীতলতা জোগায় গোলাপ। তাছাড়া ঠোঁটে গোলাপিআভাযুক্ত করে এই ফুল। তাই গোলাপ দিয়ে ঘরেই লিপবাম তৈরি করা যায়।

কয়েক ফোঁটা মধুর সঙ্গে এক ফোঁটাগোলাপ জল মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করতে হবে। এটি দিনে তিন বার ব্যবহার করা যাবে। এতেঠোঁট কোমল থাকবে এবং নিয়মিত ব্যবহারে গোলাপি আভা আসবে।

বিট: প্রাকৃতিকব্লিচিং উপাদানে ভরপুর। তাই ঠোঁটের কালচেভাব দূর করতে এটি বেশ উপকারী।

রাতে ঘুমানোর আগে ঠোঁটে খানিকটাতাজা বিটের রস লাগিয়ে নিন। সকালে ধুয়ে ফেলুন। বিটের লালচে রং ঠোঁটের কালচেভাব দূর করেআলাদা গোলাপিভাব যুক্ত করবে।

বেদানা: শুষ্কও মলিন ঠোঁটে পুষ্টি জুগিয়ে আর্দ্রতার মাত্রা বজায় রাখতে সাহায্য করে বেদানা। পাশাপাশিঠোঁটে গোলাপি আভা যুক্ত করে।

এক টেবিল-চামচ বেদানার দানা থেঁতলেখানিকটা ক্রিম ও গোলাপ জলের সঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিতে হবে। এই মিশ্রণ স্ক্রাবহিসেবে ব্যবহার করা যাবে। আলতো করে ঘষে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

শসা: ত্বকেরযত্নে শসা কতটা উপকারী তা নতুন করে বলার কিছু নেই। চোখের কালচে দাগ বা কালি দূর করতেএটি দারুণ উপকারী। তেমনি ঠোঁটের যত্নেও এটি সমানভাবে ব্যবহার উপযোগী।

এক টুকরা শসা ঠোঁটের উপর হালকাকরে ঘষতে হবে। রস পুরোপুরি ত্বক শুষে নেওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। প্রতিদিন পাঁচমিনিট সময় ব্যয় করুন এই কাজে, উপকার পাবেন।

কাঠবাদামেরতেল: প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার হিসেবে ব্যবহারের পাশাপাশি ঠোঁটের কালচেদাগ দূর করতেও এই তেল বেশ উপকারী।

পাঁচ থেকে ছয় ফোঁটা কাঠবাদামেরতেলের সঙ্গে এক টেবিল-চামচ মধু মিশিয়ে যখনই ঠোঁট শুষ্ক মনে হবে ত্বকে লাগিয়ে নিন। কয়েকদিন নিয়ম করে ব্যবহারে নিজেই পার্থক্য লক্ষ্য করতে পারবেন।

মডেল: আলিশা/ ছবি ই স্টুডিও।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক