সম্পর্ক নষ্ট করছেন না তো!

বাইরের কেউ নয় বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সম্পর্ক নষ্টের গোড়া হতে পারেন নিজেই।

নিলয়বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 March 2016, 11:08 AM
Updated : 18 July 2016, 10:02 AM

একে অপরের সঙ্গে কীভাবে কথা বলছেন বা কীভাবে যোগাযোগ করছেন সেই বিষয়গুলো সম্পর্ক মধুর করতে এবং তিক্ততা বাড়াতেও প্রভাব ফেলে। তাই সম্পর্ক মধুর রাখতে এবং অযথা সমস্যা এড়াতে কিছু বিষয় মাথায় রেখে সুধরে নেওয়া উচিত।

সম্পর্কবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে সম্পর্কের জন্য ক্ষতিকর কিছু অভ্যাসের বিষয় তুলে ধরা হয়। সুন্দর সম্পর্কের ক্ষেত্রে এই বিষয়গুলো অবশ্যই মেনে চলা দরকার।

কথা বলার সময় এদিকওদিক তাকানো: সঙ্গীর কথা শোনার সময় চোখ এদিক ওদিক ফিরিয়ে নেওয়ার বদভ্যাসটি সম্পর্ক নষ্ট করে দিতে পারে। সম্পর্কের মধ্যে দূরত্ব কমিয়ে এনে ঘনিষ্ঠতা বাড়াতে চাইলে, এই অভ্যাস ত্যাগ করার কোনো বিকল্প নেই। কারণ একে অপরের সঙ্গে কথা বলার সময় চোখে চোখ রেখে কথা না বললে অপরের কাছে মনে হতে পারে, আপনি তার কথার গুরুত্ব দিচ্ছেন না। তাই যখন কথা বলবেন তখন মনোযোগ দিয়ে শুনুন।

ঝগড়ার মাঝে হঠাৎ চুপ হয়ে যাওয়া: সম্পর্কের মধ্যে উত্তপ্ত কথা কাটাকাটি, বাকবিতণ্ডা এসব হতেই পারে। এরকম ঝগড়ার মাঝখানে হঠাৎ চুপ হয়ে যাওয়া সঙ্গীর প্রতি উদাসীন ও নেতিবাচক মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ। এমন কি মতের মিল না হলেও কথোপকথন এড়িয়ে যাওয়া কোনো সমাধান এনে দেবে না। বরং একটি সুন্দর সমাধান না আসা পর্যন্ত কথাবার্তা চালিয়ে যান।

ক্ষমা না চাওয়া: কোনো ভুল করে থাকলে সেটা স্বীকার করে ক্ষমা চেয়ে নিন। অধিক আত্মোভিমান যেন আপনাকে নিজের ভুল স্বীকার করতে বাধা না দেয়। কারণ ভুল মেনে নিয়ে যদি ক্ষমা না চান তাহলে একে অপরের থেকে দুরে সরে যেতে থাকবেন। তাই ভালোবাসার মানুষের কাছে জেদ ধরে না রেখে বরং ভুল মেনে নিন।

বিদ্রূপ: বিদ্রূপ বলতে এখানে বোঝানো হচ্ছে, তিক্ততায় ভরা তীক্ষ্ণ রসিকতা। ঝগড়ার সময় এরকম তীব্র বিদ্রূপের বাণে সঙ্গীকে জর্জরিত করবেন না, বরং সমস্যা সমাধানের দিকে মনোযোগী হোন। বিদ্রূপ অনেক মজারও হতে পারে। তবে কিছু কিছু সময় বিদ্রূপ করা অসঙ্গত। আাবার ঝগড়া ছাড়াও যে কোনো ক্ষেত্রে খোঁচা দিয়ে কথা বলার অভ্যাসও সম্পর্কের ক্ষেত্রে কাল হয়ে দাঁড়াতে পারে।

তুচ্ছ বিষয়ে কলহ: তিলকে তাল করে ঝগড়াঝাটি করা সুস্থ সম্পর্কের জন্য ক্ষতিকর। একটা কথা অতীতে কে বলেছে, কখন বলেছে তা বর্তমানে টেনে এনে সমস্যাকে আরও ঘোলাটে করার কোনো মানে হয় না। বরং পুরাতন বিষয়গুলো ভুলে সামনের দিকে এগিয়ে চলাই সম্পর্ককে মধুর করে তুলবে। আর যে কোনো সমস্যা হলেই কেবল সঙ্গীকে দোষারোপ করবেন না। সম্পর্ক তৈরি এবং এগিয়ে নেওয়া দুজনেরই দায়িত্ব।

ঘর থেকে বের হয়ে যাওয়া: এই অভ্যাস হঠাৎ কথা থামিয়ে দেওয়ার চেয়েও ক্ষতিকর। হয়ত কোনো অপ্রিয় বা অস্বস্তিকর প্রসঙ্গে আপনার সঙ্গী কথা বলছে। তবে সেটা এড়ানোর জন্য ঘর থেকে বের হয়ে যাওয়া মোটেও কার্যকর সমাধান নয়। ধৈর্য ধরে সেখানে থাকুন এবং বোঝার চেষ্টা করুন আপনার সঙ্গী আসলে কী বলতে চাইছে! হয়ত তার কথার শক্ত ভিত্তি আছে, হতে পারে সে ঠিক কথাই বলছে। আর যদি ভুল হয়ে থাকে তাহলে বুঝিয়ে বলুন। কখনই সামনে থেকে উঠে যাবেন না।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক