সকালের নাস্তায় ভুল

দিনের শুরুতে শুধু খেলেই হবে না, দরকার সঠিক খাবার।

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Dec 2015, 11:35 AM
Updated : 17 Dec 2015, 11:35 AM

অনেকেই ওজন কম রাখতে সকালের নাস্তা বাদ দিয়ে থাকেন। তবে দিনের শুরুতে না খেলে ওজনের উপর বিরূপ প্রভাব পড়ে— জানিয়েছেন ভারতের নিবন্ধিত পুষ্টিবিদ এবং স্বাস্থ্য বিষয়ক ব্লগার আকাঙ্ক্ষা জালানি।

একটি প্রতিবেদনে সকালের নাস্তা সম্পর্কে আরও কিছু ভুল অভ্যাস, ভ্রান্ত ধারণা এবং সঠিক পদ্ধতিতে সকালের নাস্তা করার কিছু উপায়ও জানিয়েছেন তিনি।

ফলের রস: যখন ফল ব্লেন্ড করে শুধু রস বের করা হয় তখন এ প্রক্রিয়ায় ফলের কিছু ভিটামিন, মিনারেল ও ফাইবারও হারিয়ে যায়। এর চেয়ে যদি এক গ্লাস পানি এবং একটা গোটা ফল চিবিয়ে খাওয়া যায় তাহলে যেমন এর পুষ্টিগুণ রক্ষা পায় তেমনি দেহের কিছু শক্তিও বেঁচে যায়।

অনেক পরিমাণে খাওয়া: অনেকেই ভাবেন যে, রাতে দীর্ঘ সময় না খেয়ে থেকে সকালে যা খুশি খাওয়া যায় এতে ওজন বাড়ে না। আকাঙ্ক্ষা জানিয়েছেন রাতে না খাওয়ার ফলে সকালে কম ক্যালোরি শোষণ হবে এটা একটা ভ্রান্ত বিশ্বাস। যদি সকালে তেলযুক্ত পরোটা, পিঠা বা আগের রাতের ভারি খাবার- যদি সকালের নাস্তার সময় খান তবে সেগুলো একই পরিমাণ ক্যালোরি যোগ করবে।

সকালের নাস্তার দাওয়াত: লোভনীয় একটা মাফিন বা ডোনাট দেখে নিজেকে সামলে রাখা আসলেই দায়! তবে একটি ডোনাট বা মাফিনেই থাকে সম্পূর্ণ খাদ্যের সমান ক্যালরি। তাই এগুলো যখন সামনে রাখা হবে তখন বড় একটা শ্বাস নিয়ে নিজেকে বলতে হবে— আমি একটা সুস্থ জীবনের জন্য এসব বাদ দিয়েছি। এরপর খুব বিনীতভাবে এগুলোকে প্রত্যাখ্যান করতে হবে।

ক্যাফেইনের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করুন: দিনে এক কাপ চা বা কফি শরীর ও মনকে চনমনে করে তোলে। তবে এক কাপের বেশি চা-কফি না খাওয়াই ভালো। না হলে ঘুম কমে যাবে এবং শরীরের উপর বিরূপ প্রভাব পরবে।

অস্বাস্থ্যকর সকালের নাস্তা: চকলেট সিরিয়াল, প্যান কেক, মাফিন, তেল দেওয়া পরোটা, মায়োনেইজ দেওয়া স্যান্ডউইচের মতো খাবারের বদলে দিন শুরু করুন এক মুঠো বাদাম খেয়ে। অতিরিক্ত ক্যালরি ও উচ্চ চর্বিযুক্ত খাবার দেহের চিনির মাত্রা বাড়িয়ে দেবে। প্রতিনিয়ত এভাবে চিনির মাত্রা বেড়ে গেলে শরীরে উপর তার খারাপ প্রভাব পড়বে।

সকালের নাস্তাকে জরুরি মনে না করা: সকালের নাস্তা বাদ দেওয়া শরীরের জন্য ক্ষতিকর। এতে শরীরের মেটাবোলিজম ধীর হয়ে যায় এবং আপনি নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েন। তাই আগের রাতে যদি খুব বেশি খেয়েও ফেলেন অথবা খুব ব্যস্তও থাকেন, তবুও সকালের নাস্তা বাদ দেওয়া যাবে না। এক স্লাইস হোল গ্রেইন ব্রেড, একটা গোটা ফল বা এক মুঠো অঙ্কুরিত ছোলা হতে পারে আপনার দ্রুত কিন্তু পুষ্টিকর সকালের নাস্তা।

সকালের নাস্তায় ব্যুফে এড়ান: সকালের নাস্তায় ব্যুফে এবং বিস্তৃত নাস্তা দেহে প্রয়োজনের থেকে বেশি ক্যালরি যোগ করে। তাই বোকার মতো চিনি দেওয়া সিরিয়াল, ডোনাট, ফ্রুট ককটেইল ইত্যাদি খাবার না খেয়ে, বুদ্ধিমানের মতো বেছে নিন ডিম, দুধ, চর্বিহীন মাংস, ওটস, হুইট ফ্লেক্সের মতো স্বাস্থ্যকর খাবার।

সকাল শুরু করুন বিশুদ্ধ পানি দিয়ে: ফলে শরীরে পানির সমতা বজায় রাখবে। গ্যাস্ট্রিক হওয়ার সম্ভাবনা কমাবে, হজম প্রক্রিয়া সহজ করবে সব থেকে বড় কথা নিজ থেকেই সতেজ অনুভব করবেন।

সকালে স্বাস্থ্যকর খাবার খান: সকাল শুরু করতে পারেন গ্রিন টি সঙ্গে লেবুর রস, কলার সঙ্গে যব, বা একটি ডিমের সঙ্গে— যা হবে স্বাস্থ্যকর খাবার।

ছবি: রয়টার্স।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক