অন্তর্বাসে অসুবিধা

দূর করতে নারীদের জন্য টিপস।

লাইফস্টাইল ডেস্কআইএএনএস/বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Oct 2015, 10:48 AM
Updated : 1 Oct 2015, 10:48 AM

 এ বিষয়ে পরামর্শ দেন অনলাইন ল্যানজারে স্টোর ক্লোভিয়া ডটকম’য়ের প্রতিষ্ঠাতা নেহা কান্ট।

- ব্রা বা অন্তর্বাস বাছাইয়ের ক্ষেত্রে অবশ্যই নিজের সঠিক মাপ জেনে নিন। ভুল মাপের অন্তর্বাস পরিধানে সারাদিন অস্বস্থি অনুভূত হতে পারে। তাছাড়া বেখাপ্পা অন্তর্বাস দৈহিক গঠনও নষ্ট করে দেয়।

- ব্রায়ের মাপ সঠিক কিনা তা বোঝার জন্য ব্রা পরা অবস্থায় দুহাত সোজা করে মাথার উপরে তুলতে হবে। এতে যদি ব্রা উপরে উঠে আসে বুঝতে হবে মাপ ভুল আছে। যদি ব্রা ঠিক জায়গায় চেপে থাকে তাহলে বুঝতে হবে মাপ ঠিক আছে।

- সাদা বা হালকা রংয়ের পোশাকের নিচে সাদা রংয়ের ব্রা পরার ভুল করে থাকেন অনেকেই। এক্ষেত্রে সবসময় বাদামি, ঘিয়া বা শরীরের রংয়ের সঙ্গে মেলানো ব্রা বেছে নেওয়া উচিত। এতে কাপড়ের উপর দিয়ে ব্রা বোঝা যাওয়ার বিড়ম্বনায় পড়তে হবে না।

- ভিন্ন ভিন্ন পোশাকের সঙ্গে ভিন্ন স্টেইলের ব্রা বেছে নিতে হয়। যেমন হাতা কাটা বা স্বচ্ছ পোশাকের সঙ্গে সব সময় ট্রান্সপারেন্ট বেল্টের ব্রা পরলে তা খুব একটা চোখের আড়াল হয় না। এসব ক্ষেত্রে স্ট্র্যাপলেস ব্রা বেছে নেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ।

- তাছাড়া পিঠ খোলা বা পিঠের অংশে বেশি গভীর গলার পোশাকের সঙ্গেও ব্রা বাছাইয়ের ক্ষেত্রে সচেতন হওয়া উচিত। এক্ষেত্রে ‘লো ব্যাক কনভার্টার’ বা ব্রায়ের পেছনের ফিতা নামানো থাকলে বিড়ম্বনায় পড়তে হবে না।  

- হাতা কাটা পোশাকে ব্রায়ের স্ট্র্যাপ বের হয়ে যাওয়ার সমস্যা এড়াতে পেপার ক্লিপ ব্যবহার করা যেতে পারে। এক্ষেত্রে ব্রার স্ট্র্যাপ দুটি পেছনের দিকে নিয়ে একটি পেপার ক্লিপ দিয়ে আটকে রাখতে হবে।

- এখন নানা ধরনের কনভার্টেবল স্ট্র্যাপ কিনতে পাওয়া যায়। স্ট্র্যাপলেস ব্রা পড়ে যাওয়ার সমস্যা এড়াতে ওই ধরনের কনভার্টেবল স্ট্র্যাপ ব্যবহার করা যেতে পারে।

- ব্রা যদি সামনের দিকে ঝুলে যায় তবে বুঝতে হবে অন্তর্বাসের নিচের ফিতা বা ‘আন্ডার-বাস্ট ব্যান্ড’য়ের মাপ ঠিক নাই। এক্ষেত্রে সঠিক মাপের ব্যান্ড বা ফিতার ব্রা ব্যবহার করুন।

- প্রতিদিনই একই ব্রা ব্যবহারে এর এলাস্টিসিটি দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়। তাই প্রতি সপ্তাহে অন্তত ৪টি ব্রা অদল বদল করে ব্যবহার করলে ব্রা দীর্ঘদিন ভালো থাকে।

- যদি ব্রায়ের মাপে সমস্যা হয় তবে কাছাকাছি আকারের ব্রা পরে দেখা যেতে পারে। যেমন- ৩৬বি এবং ৩৪ সি’য়ের আকার প্রায় এক।

ছবি: রয়টার্স।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক