বঙ্গবন্ধু ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড ২০২০ অনুষ্ঠিত

সম্প্রতি ভার্চুয়াল ভাবে আয়োজিত হল এই পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠান।

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 Dec 2020, 02:58 PM
Updated : 31 Dec 2020, 02:58 PM

প্রতি বছরের মতো বাংলাদেশ ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন ফোরামের উদ্যেগে মুজিব বর্ষকে সম্মান জানিয়ে বঙ্গবন্ধু’র নামকরণে অনলাইনে আয়োজিত হলো বঙ্গবন্ধু ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড ২০২০।

এবারের আয়োজনে ডিজিটাল সোস্যালের ধারাবাহিক বিভাগে কোভিড-১৯’য়ের জন্য ভিন্নতা আনা হয়েছে বলে ফোরামের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

সোস্যাল ইনকুলেইশন ও ইন্ট্রিগ্রিয়েটেড কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট এই দুই বিভাগে যথাক্রমে একক ও দলীয় বিভাগে মোট ৮শ’র অধিক আবেদন থেকে ৪৭ জনকে প্রাথমিকভাবে মননয়ন দিয়ে ১০জনকে চূড়ান্ত ভাবে বিজয়ী করা হয়েছে।

প্রযুক্তিগত সামাজিক উদ্ভাবনা ছিল মূল প্রাধন্য বিষয়।

বঙ্গবন্ধু ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড ২০২০’য়ের বিজয়ীরা হলেন:

ইন্টিগ্রেইটেড কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট বিভাগে- মোহাম্মাদ মহসিন, উপমা আহমেদ, মেহেদী হাসান, নাজওয়া তাহসিন, আনিকা রোকাইয়া রওশন রেশমী, ঐশ্বরীয়া সানজুক্তা রয় প্রোমা।

সোস্যাল ইনকুলেশন বিভাগে- মুমতাহিনা আনিকা, ফাহাদ বিন বেলায়েত, সাজ্জাদ হোসেন, ডাঃ মোঃ রিফাত আল মাজিদ।

বিজয়ীদের প্রজেক্টগুলো কার্যকর করে ২০২১ সালের মার্চ মাসে জাতিসংঘের এসডিজি গ্লোবাল ফেস্টে অর্পন করা হবে।

যেখানে আন্তর্জাতিকভাবে তুলে ধরা হবে তরুণদের সামাজিক উদ্ভাবনামূলক এই কর্মকাণ্ডগুলো।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মো. আলী আকবর বিজ্ঞপ্তিতে আশা করে বলেন, “আমরা প্রতি বছর বাংলাদেশ ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন সামিট করে থাকি। সেই সম্মেলনে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য মাত্রা উন্নয়নে দিক নির্দেশনা ও প্রযুক্তিগত উদ্ভাবনা প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে সামাজিক পরিবর্তন নিশ্চিত করণের গুরত্ব ও সচেতনতা তুলে ধরা হয়। আর এই সম্মেলনেই দেশের সমাজিক উন্নয়নে অবদানের স্বীকৃতি স্বরুপ ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও সংস্থাকে সম্মাননা প্রদান করা হয় তরুণদের উদ্বুদ্ধ করার জন্য।”

এবার মহামারীর জন্য ধারাবাহিক সম্মেলনটি সম্পূর্ণ অনলাইনে আয়োজন করা হয়। যেখানে ৮টি সেশনে সকল শ্রেণির প্রায় ১০ লক্ষ মানুষ সকাল ১১টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত অনলাইনে যোগদান করেন।

সময় স্বল্পতার কারণে সেদিন অ্যাওয়ার্ড আয়োজনটি করা সম্ভব হয়ইনি। কভিড-১৯’য়ের গুরুত্বপূর্ণ অবদান এবারের আয়োজনে মূল বিবেচনার বিষয় ছিল।

২০১৯ সালে এই একই অ্যাওয়ার্ড আয়োজনে নড়াইলের সাদাত বিজয়ী হয়েছিলেন। এই বছরে তিনি আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরষ্কার পেয়েছেন।

আলী আকবর আরও বলেন, “আমরা জাতিসংঘের এসডিজি গ্লোবাল নেটওয়ার্কে পার্টানার প্লাটফর্ম। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বহু সংস্থা থেকে স্বীকৃতি প্রাপ্ত। বাংলাদেশে ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন নিয়ে সচেতনতামূলক কাজ করা একমাত্র সংস্থা বাংলাদেশ ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন ফোরাম। ফেব্রুয়ারিতে আমাদের ধারাবাহিক আয়োজন বাংলাদেশ ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন সামিট ২০২১ আয়োজন করবো বলে আমরা আশা করছি।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক