ক্যাম্পের জীবনে ছবি আঁকার স্বাদ!

জেনেভা ক্যাম্পের নাম সম্ভবত তোমরা সবাই-ই শুনেছো। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে আটকে পরা পাকিস্তানিদের যে স্থানটিতে থাকতে দেয়া হয়েছে সেটিই জেনেভা ক্যাম্প

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 May 2013, 04:07 AM
Updated : 18 May 2013, 04:07 AM

প্রতিযোগিতার জন্য বিভিন্ন ক্যাম্প থেকে ১০ জন আঁকিয়ে বিহারি শিশুদের বাছাই করে আনা হয়েছিলো। মোটমাট ৩টি ক্যাম্প থেকে শিশুরা এসেছিলো। আর তাদের উৎসাহ দিতে এসেছিলো তাদের অনেক বন্ধু-বান্ধবীও। সব মিলে বেশ আনন্দমুখর একটা আয়োজন করা হয়েছিলো, আর প্রতিযোগিতা শেষে ওদের মধ্যে থেকে বিজয়ী ৩ জনের হাতে পুরস্কারও তুলে দেয়া হয়। কারা পুরস্কার পেলো? প্রথম হয়েছে পিংকি, দ্বিতীয়  সাবা, আর তৃতীয় লামিয়া। ভাবছো, বিচারক আবার কারা ছিলেন? বিচারক ছিলেন ২ জন; তাদের মধ্যেও বেশ মজার একটা মিল ছিলো- দু’জনের নামই রিয়াজ; একজন জাতীয় চিত্রশালায় কাজ করেন, আরেকজন আছেন একটি ডিজাইনিং ফার্মে। আর অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন মো. খোরশেদ আলম, জেনেভা স্পোর্টিং ক্লাবের সভাপতি তিনি।

ভাবছো, হঠাৎ করেই কেনো ওদের নিয়ে এমন আয়োজন করা হলো? তারও একটা কারণ আছে। এই অনুষ্ঠানের মূল আয়োজক বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতি। সহযোগিতা করেছে প্ল্যান বাংলাদেশ। আর স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করেছে মো. এরশাদ আলম নয়ন আর নাহিদা পারভিন। তাদের এই আয়োজনের মূল উদ্দেশ্য নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে সচেতনতা সৃষ্টি করা। আর ক্যাম্পের জীবন এমনিতেই খুব কঠিন, তার উপর আবার সেখানে মানুষ তুলনামূলক কম শিক্ষিত, তাই নারী নির্যাতনের হারও একটু বেশি-ই। আর সেজন্যেই সেখানে আয়োজন করা হয়েছে এই অনুষ্ঠানের। আর সেই ছোটো ছোটো ছেলেমেয়েদের মিষ্টি মিষ্টি ছবিগুলো যদি দেখতে, কী সুন্দর করেই না ওরা ওদের মনের কথাগুলো বলেছে সেখানে! কিভাবে প্রতিবাদ করেছে নারী নির্যাতনের, আর ফুটিয়ে তুলেছে নির্যাতনের শিকার হওয়া নারীদের দুঃখ। 
 

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক