‘স্টাইল আইকন’ হতে চান সুমিত

সিনেমায় নিজেদের শিক্ষিত শহুরে তরুণের ইমেজ, অনন্য উপস্থিতি আর পোশাকের ধরনের কারণে কেবল অভিনেতা হিসেবেই নয় স্টাইল আইকন হিসেবে দর্শকের সমাদর পেয়েছেন জাফর ইকবাল আর সালমান শাহের মতো নায়কেরা। এই অভিনেতাদেরই পদাঙ্ক অনুসরণ করতে চান নবাগত নায়ক সুমিত সেনগুপ্ত। 

তানজিল আহমেদ জনিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 Nov 2014, 09:54 AM
Updated : 30 Nov 2014, 09:54 AM

তিনি গ্লিটজকে বলেন, “প্রতিটি সিনেমাতেই আমি ভিন্ন গেট-আপে হাজির হব। ঢাকাই সিনেমাতে আমার নিজের একটি নতুন স্টাইল তৈরি করতে চাই। গতানুগতিক গল্প আর একই ধাঁচের চরিত্রে আমি অভিনয় করতে চাই না।”

সেই সঙ্গে কেবল কেন্দ্রীয় চরিত্রেই অভিনয় করতে চান সুমিত।

“গ্রামীণ ও শহুরে জীবনের যে কোনো গল্পেই চরিত্রের প্রয়োজনে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করতে চাই। আমি চাই, আমার অভিনীত প্রতিটি চরিত্র দর্শকের হৃদয়ে গেঁথে থাকুক।”

অনিকেত আলমের ‘শেষ নায়ক’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে আসা সুমিতের দ্বিতীয় সিনেমা শাহীন সুমন পরিচালিত ‘সেদিন বৃষ্টি ছিলো’। ভৌতিক সিনেমাটি ব্যবসায়িক সফলতা না পেলেও হতাশ নন তিনি।

এখন মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে ‘মিয়া বিবি রাজি’ ও ‘জিরো থেকে টপ হিরো’ সিনেমা দুটি। সুমিত বলছেন, “শক্তিশালী মৌলিক গল্পে নির্মিত ‘মিয়া বিবি রাজি’ সিনেমাটি নিয়ে আমি আশাবাদী।”

সহ-অভিনেত্রী রত্না, পরীমনি ও শিরিন শিলার সম্পর্কে জানালেন, সবাই ভীষণ সহযোগিতা করছে তাকে। তবে নায়ক হিসেবে পরিচিতি এনে দেওয়ায় ‘সেদিন বৃষ্টি ছিলো’র প্রযোজক, অভিনেত্রী রত্না কবীরের কাছেই কৃতজ্ঞ তিনি।

হালের তরুণ অভিনেতারা নানা প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হচ্ছে বলেও মন্তব্য করলেন। কারও নাম উল্লেখ না করে বললেন, “আমাদের সিনেমাশিল্প একজন ব্যক্তির ওপর নির্ভরশীল। ফলে আমাদের মতো নবীন যারা সিনেমাতে কাজ করতে আসছে তাদের অনেক সময় সঠিক দিক নির্দেশনা না দিয়ে ভুল পথে পরিচালিত করা হয়।”

সুমিত এখন রয়েল খানের ‘এই গল্পে ভালোবাসা নেই’ এবং রওশন আরা নীপার ‘মহুয়া সুন্দরী’ সিনেমাতে অভিনয় করছেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক