ভারতীয় চলচ্চিত্র আমদানীর পক্ষে ফেরদৌস

ভারতীয় চলচ্চিত্র আমদানি, যৌথ প্রযোজনার সিনেমা নিয়ে যখন ঢাকার সিনেপাড়ায় বিতর্কের ঝড় উঠেছে, নায়ক ফেরদৌস আহমেদ বলছেন, আমদানিতে দোষ কোথায়।

জয়ন্ত সাহাবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 Sept 2014, 09:33 AM
Updated : 22 Sept 2014, 04:41 AM

তার মতে, বাংলাদেশের হলগুলোতে ভারতীয় সিনেমা প্রদর্শিত হলে হলগুলোর আধুনিকায়ন হবে। তবে একইসঙ্গে বাংলাদেশি সিনেমাগুলো ভারতের হলে প্রদর্শনেরও পদক্ষেপ নেওয়া উচিত বলে মনে করেন তিনি।

“ভারতীয় সিনেমা আনতে দেব না, আর ঘরে বসে ভারতীয় চ্যানেল দেখব সারাদিন- এমন দ্বৈতনীতিতে বিশ্বাসী নই আমি। আমি মুক্তবাজারে বিশ্বাসী। ভারতীয় সিনেমাগুলো আমাদের হলে প্রদর্শিত হলে হলমালিকরা বাধ্য হয়েই আধুনিকায়ন করবে। প্রতিযোগিতা বাড়বে। তবে একইসঙ্গে আমাদের চলচ্চিত্রগুলোও ভারতের হলে প্রদর্শনের উদ্যোগ নিতে হবে।”

ঢাকাই সিনেমা আর টালিগঞ্জে এক সময় সমান পদচারণা ছিল ফেরদৌসের। কিছুদিনের বিরতির পর আবার ওপার বাংলায় সিনেমা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন।

এখন মুক্তির অপেক্ষায় ফেরদৌস অভিনীত টালিগঞ্জের চারটি সিনেমা। তিনটিতেই তার বিপরীতে রয়েছেন ঋতুপর্ণা। গেল মুক্তি পেয়েছে ত্রিভুজ প্রেমের গল্প নিয়ে নির্মিত ‘আকর্ষণ’ সিনেমাটি। ফেরদৌস জানালেন, ‘আকর্ষণ’ সিনেমাটি পশ্চিমবঙ্গের ৬০টি হলে মুক্তি পেয়েছে।

ক’দিন পরই দুর্গাপূজা। টালিগঞ্জের দুই সুপারস্টার দেব ও জিৎ অভিনীত বিগ বাজেটের সিনেমা ‘যোদ্ধা’ ও ‘বচ্চন’ মুক্তি পাবে। দেব ও জিৎ-এর সঙ্গে প্রতিযোগিতায় ‘আকর্ষণ’ ব্যবসা করতে পারবে কি না এ বিষয়টি নিয়ে মোটেই চিন্তিত নন ফেরদৌস।

“আমি কখনও দেব ও জিৎ এর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করি না। আমার সিনেমা তথাকথিত বাণিজ্যিক ধাঁচের নয়। এখন যেসব সিনেমাতে অভিনয় করছি, সেগুলো খুব জীবনঘনিষ্ঠ। সত্য কাহিনি নিয়ে নির্মিত হচ্ছে সিনেমাগুলো। সত্যি বলতে, আমি এখন আর বাণিজ্যিক সিনেমাতে আগ্রহী নই।”

তিনবার সেরা অভিনেতা হিসেবে বাংলাদেশে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী ফেরদৌসের শুরুটা প্রিয়াংকা ত্রিবেদীর সঙ্গে বাসু চ্যাটার্জির সিনেমা ‘হঠাৎ বৃষ্টি’র মধ্য দিয়ে। পরে ঋতুপর্ণা ও রচনা ব্যানার্জির সঙ্গে জুটি বেঁধে বেশ কয়েকটি ব্যবসাসফল চলচ্চিত্র উপহার দেন তিনি। 

ফেরদৌস জানালেন, বন্ধু ঋতুপর্ণার প্রযোজনায় তিনি ‘পটাদার কীর্তি’, ‘ঝড়ো হাওয়া’, ‘তুমি যদি আমার হতে’ সিনেমাতে অভিনয় করেছেন। সিনেমাগুলো এখন মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে।

ঋতুপর্ণাকে প্রযোজক হিসেবে কেমন দেখছেন- এ প্রশ্নের জবাবে ফেরদৌস বলেন, “ঋতুপর্ণা আমার চেয়েও খারাপ প্রযোজক। এর আগে ২০০২ সালে ‘ওস্তাদ’ নামে একটি সিনেমা করেছিলাম। শেষ মুহূর্তে প্রযোজকের সঙ্গে গোল বাঁধাল। সিনেমাটিই মুক্তি পেল না। তবে এবার সে ভয় নেই।”

ফেরদৌস জানিয়েছেন, ‘পটাদার কীর্তি’ সিনেমাতে ফেরদৌস ও ঋতুপর্ণা চলচ্চিত্র তারকার ভূমিকাতেই অভিনয় করেছেন। এ সিনেমাতে নায়িকা ঋতুপর্ণার পাগল ভক্তের চরিত্রে অভিনয় করেছেন হিন্দি সিনেমার অভিনেতা প্রিয়াংশু।

ফেরদৌস এখন অভিনয় করছেন মৌসুমী পরিচালিত ‘শূন্য হৃদয়’, দিলশাদুল হক শিমুলের ‘লিডার’, অরূপ রতন চৌধুরীর ‘স্বর্গ থেকে নরক’ সিনেমাতে। মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে ফেরদৌস প্রযোজিত প্রথম সিনেমা ‘এক কাপ চা’। নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল পরিচালিত সিনেমাটিতে তার বিপরীতে রয়েছেন মৌসুমী। সিনেমাটি ইতোমধ্যে আনকাট সেন্সর পেয়েছে বলে জানালেন ফেরদৌস।তবে এখনও মুক্তির দিনক্ষণ ঠিক করতে পারেননি তিনি।

‘এক কাপ চা’ মুক্তির পরই নিজের প্রযোজনায় দ্বিতীয় সিনেমাটির কাজ শুরু করবেন ফেরদৌস। এর গল্প ও চিত্রনাট্য লিখছেন ‘হঠাৎ বৃষ্টি’ খ্যাত পরিচালক বাসু চ্যাটার্জি। রোববার তিনি ভারতে যাচ্ছেন। সেখানেই সিদ্ধান্ত হবে এ বিষয়ে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক