অনিমেষ আইচের নতুন ধারাবাহিক ‘জোছনাময়ী’

দীর্ঘদিন পর ধারাবাহিক নাটক নির্মাণ করলেন অনিমেষ আইচ। নাগরিক টিভিতে শুরু হচ্ছে নাটকটির প্রচার।

গ্লিটজ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 March 2019, 11:40 AM
Updated : 17 March 2019, 11:40 AM

লাল বেনারসি শাড়ি পড়ে মাওয়া ঘাটে অসহায় মেয়েটি নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজ করছে। পেছনে হায়েনারা। মেয়েটি বাঁচাও বাঁচাও চিৎকার করছে। একটি গাড়ির দরজা খোলা। মেয়েটি সেই গাড়ির পেছনের আসনে ঢুকে পড়েছে। গাড়ির মালিক সামনের আসনে এসে বসেছেন। তখনো খেয়াল করেন নি, গাড়ির পেছনের আসনে জোছনাময়ী। বিয়ের সাজে চোখে মুখে আতঙ্ক নিয়ে বসে আছে। ছেলেটির মাথায় যেন বাজ পড়ে। এদিকে ছেলেটির স্ত্রী তাকে ফোন করছে। ছেলেটি এখন কী করবে? জোছনাময়ী ছেলেটির প্রতি অনুরোধ করছে, ‘ভাই আমাকে বাঁচান। একটু ঢাকা শহরে নিয়ে নামায়ে দেন।’কিন্তু কোথায় নামিয়ে দেবে তাকে, মেয়েটি জানেনা। জোছনাময়ীর এমন সুন্দর মুখখানা অন্ধকারে মলিন। ছেলেটির খুবই মায় হল। জোছনাময়ীর শরীরে অনেক জ্বর। সে জ্ঞান হারিয়ে ফেললো। এখন কী হবে?

এমন অনেক প্রশ্ন নিয়েই অনিমেষ আইচ দীর্ঘদিন পরে আবারো নির্মাণ করেছেন ধারবাহিক নাটক জোছনাময়ী। ১৯ মার্চ থেকে নাগরিক টিভি’র পর্দায় প্রতি মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় এই ধারাবাহিকটি প্রচার হবে।

নির্মাতা জানান, ‘জোছনাময়ী’র কাহিনি মূলত একজন নারী ও তার আশেপাশের চরিত্রকে কেন্দ্র করে আবর্তিত হয়েছে। গ্রামের মেয়ে জোছনা বিয়ের আসর থেকে পালিয়ে নানান ঘটনার মধ্য দিয়ে এই শহরে এসে ওঠে। এরপর থেকে শুরু হয় নতুন চড়াই-উৎরাইয়ের গল্প।

নাটকে, জোছনা চরিত্রে অভিনয় করেছেন ভাবনা। আরও আছেন চঞ্চল চৌধুরী, সুমাইয়া শিমু, খায়রুল আনাম সবুজ, রুনা খান, প্রাণ রায়, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু প্রমুখ।

নাটকটি প্রসঙ্গে অনিমেষ আইচ নাটকটি প্রসঙ্গে বললেন, ‘আমরা গতানুগতিক ধারার বাইরে গিয়ে এমন একটি গল্প নিয়ে নাটকটি করেছি, যা দর্শকদের কাছে ভিন্নধারার নাটক বলে মনে হবে। চঞ্চল চৌধুরী সাধারণত যে ধরনের চরিত্রে কাজ করেন, এখানে তিনি তা থেকে একদমই আলাদা। তার সংলাপ প্রক্ষেপণের ষ্টাইল-ই আলাদা।

ফারুক আহমেদকে আমরা দেখি সাধারনত কমেডি চরিত্রে কাজ করতে। কিন্তু তিনি এখানে কাজ করেছেন, একদম সিরিয়াস একটি চরিত্রে। রওনক, রুনা খান, সুমাইয়া শিমু এরা প্রত্যেকেই তাদের নির্দিস্ট গন্ডির বাইরে গিয়ে কাজ করেছেন। এমনকী শম্পা রেজাও দারুন একটি চরিত্রে কাজ করেছেন। আমার বিশ্বাস, দর্শক নাটক উপভোগ করবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক