'আমি এখন তোমাদেরই লোক'

গেল ঈদেই মুক্তি পেয়েছে টালিগঞ্জের নবাগত নায়ক ওম প্রকাশ সাহানিয়ার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় বাজেটের সিনেমা ‘অগ্নি-২’। যৌথ প্রযোজনার সিনেমাটির রেশ কাটতে না কাটতেই আরও একটি যৌথ প্রযোজনার সিনেমা ‘অঙ্গার’ এর শুটিং শুরু করে দিয়েছেন। 

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 Sept 2015, 06:51 AM
Updated : 9 Sept 2015, 06:51 AM

এফডিসিতে শুটিং চলাকালে গ্লিটজের সঙ্গে আলাপে ওম বললেন, “আমি তো এখন তোমাদেরই লোক। ঢাকার ইন্ডাস্ট্রি, বাংলাদেশের মানুষ, এখানকার সবকিছু খুব ভালো লেগে গেছে। আমি বারবার আসতে চাই এখানে।”

‘অগ্নি-২’ সিনেমায় নায়িকা মাহিই ছিলেন সর্বে সর্বা। ওম বলছেন, ওয়াজেদ আলী সুমনের ‘অঙ্গার’ এ তিনি দেখাবেন অভিনয়ের দ্যুতি।

“এখানে আমার চরিত্রটি ভীষণ চ্যালেঞ্জিং। খুব বেশি কিছু বলতে পারব না। তবে বলবো, অনেক নতুনত্ব আছে, চমক আছে। আমারও অভিনয় দেখানোর সুযোগ আছে।”

আরও বললেন, “আমি শুধু অ্যাকশন ধাঁচের সিনেমাতেই নয়, অভিনয় করতে পারি রোমান্টিক বা থ্রিলারধর্মী সিনেমাতেও। আমি সব ধরনের সিনেমাতেই কাজ করতে চাই।”

ওম জানালেন, ‘অঙ্গার’ সিনেমার শুটিংয়ের আগে তাকে দীর্ঘ একটি কর্মশালাতেও অংশ নিতে হয়েছে।  সেখানেই সহ-অভিনেত্রী ফাল্গুনী রহমান জলির সঙ্গে গড়ে উঠেছে বন্ধুত্ব।

ওম নিয়মিত বাংলাদেশের টিভি নাটক দেখেন, পছন্দের শিল্পীদের ব্যাপারে জানতে শুরু করেছেন।

“আমি এদেশে আসার আগে বাংলাদেশের টিভি নাটক দেখেছি নিয়মিতভাবে। চঞ্চল চৌধুরীর কথা বলতে হবে বিশেষভাবে। তার অভিনয় আমার খুব ভালো লাগে। আর আরেফিন শুভ তো আমার বন্ধু। শুভই আমাকে বাংলাদেশের ব্যাপারে বলত। শুভ কলকাতা গেলে আমাকে যখন বাংলাদেশের কথা বলতো, আমি ভাবতাম কবে যাব বাংলাদেশে।”

টালিগঞ্জের সিনেমার বাজারের কথা উঠতেই, বললেন বিকল্প ধারার সিনেমাই ভালো চলছে। মূল ধারার সিনেমাগুলো তামিল বা হিন্দি সিনেমার অনুকরণের জোরে দর্শক টানতে পারছে না।

“অযথাই নকল হচ্ছে সিনেমাগুলো। কোনো দরকার নেই। নকল করার তো একটা ধাত আছে। এভাবে অন্ধ অনুকরণ করলে সেগুলোতে কী আর নতুনত্ব থাকে?  তামিল-তেলেগু নকল করলে দর্শকের কাছে তা একঘেঁয়ে লাগবে।”

দুই বাংলার সিনেমার বাজার চাঙ্গা করতে যৌথ প্রযোজনার সিনেমাই ভরসা বলে মনে করছেন ওম।

“বাংলাদেশ ও ভারত মিলে সিনেমা করলে সত্যিই একটা বড় পরিবর্তন আসবে। দুই বাংলার দর্শক দুই বাংলার শিল্পীদের চিনবে, জানবে। দুদেশের সাংস্কৃতিক আদান-প্রদান বাড়বে। সিনেমার নানা কারিগরি দিক থেকেও আমরা জানবো। কোনো বাধা ছাড়া এখন যৌথ প্রযোজনার সিনেমা নির্মাণ সংখ্যা বাড়লে তা ইতিবাচকই হবে।”
 

ছবি— ফাইল ফটো

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক