ফটো স্টোরি: যখন যেমন নদী

বাংলাদেশে বছর জুড়ে নদীর অনেক রূপ। কখনও জোয়ার-ভাটা-প্লাবন, কখনও নদীর বুকে ধু ধু চর। দখল আর দূষণে নদীর সেই চেনারূপ বদলে যাচ্ছে ক্রমশ।

আইরিন সুলতানাবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 23 Sept 2019, 06:49 AM
Updated : 23 Sept 2019, 03:13 PM
 

মার্চ ২০১৬। লৌহজং নদীর তীরে টাঙ্গাইল শহর। দূষণ আর দখলে কুচকুচে কালো পানির এই ‘ডোবাটি’ যে আসলে নদী, তা ভেবে অবাক হন স্থানীয়রাই।

জুলাই ২০১৬। বঙ্গবন্ধু সেতুতে ধীর গতিতে চলা ট্রেন থেকে যমুনার স্রোতে ভাসা নৌকা দেখা।
জুলাই ২০১৬। এককালের উত্তাল নদী টাঙ্গনের তীরে গড়ে উঠেছিল ঠাকুরগাঁও শহর। মাঝ বর্ষাতেও টাঙ্গনকে দেখা গেল শীর্ণ।
অগাস্ট ২০১৬। যমুনার বিস্তীর্ণ জলরাশিও কোথাও কোথাও শুকিয়ে এসেছে। সেখানে জেগে উঠছে সাদা চর।
নভেম্বর ২০১৬। শীতের যমুনা হারিয়েছে স্রোত। সাদা চর আরও বেশি উজ্জ্বল এ সময়।
নভেম্বর ২০১৬। তেঁতুলিয়া সীমান্ত ঘেঁষে বয়ে চলছে মহানন্দা। বছরের এ সময়টায় আন্তঃসীমান্ত এ নদী এতটাই শুকিয়ে যায় যে হেঁটেও পার হওয়া যায়।
নভেম্বর ২০১৬। রাশি রাশি বালিতে যেখানটায় পা দেবে যায়, সেটাও আসলে নদীর অংশ। নদীর পাশেই দেখা যায় সীমানা পিলার। আছে সমতলের চা বাগান। উত্তরবঙ্গের বালিয়াডাঙ্গীতে নাগর নদীর এই অংশে শীতের এই সময়ে যতটুকু পানি, তাতে বড়জোর গোড়ালী ডোবানো যায়।
নভেম্বর ২০১৬। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বইছে কুলিক। রানীশংকৈলে কুলিক নদী থেকে একটু দূরেই রাজা টংকনাথের রাজবাড়ি। জনশ্রুতি আছে, এ নদীতে রাজার স্ত্রী রানি শংকরী দেবী স্নান করতেন। শীতের এ সময়ে প্রবাহ কমে আসা নদীর এ অংশে আইল তুলে ধান চাষ হতে দেখা গেল।
মার্চ ২০১৭। এখন বসন্ত, মেঘালয়ে ঝরনা গড়িয়ে পানি নেমে আসে রাঙপানি নদীতে। সাথে নিয়ে আসে নুড়ি পাথর। জৈন্তাপুরের শ্রীপুর পাথর কোয়ারি দিয়ে প্রবাহিত এ নদীর পানি কোথাও কোথাও সবুজাভ নীল।
মার্চ ২০১৭। বালুময় তলদেশের কারণে বছরের এই সময়ে সারি নদী কখনও নীলাভ, কখনও সবুজাভ। বর্ষায় ঢলের পানি এসে না মিশলে এমনিতে সারি স্ফটিক জলের নদী। সারি নদীর এই রূপের দেখা মিললো সিলেটের লালাখালে।
জুন ২০১৭। মৃদু বাতাসকে সঙ্গী করে সন্ধ্যা নেমে এসেছিল পঞ্চগড়ের ভেতর দিয়ে বয়ে চলা করতোয়ার বুকে।
অগাস্ট ২০১৭। রাণীশংকৈল উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের জগদল সীমান্ত ফাঁড়ি সংলগ্ন নাগর নদীর এই অংশের প্রবাহ আসলে নাগর আর তীরনই নদীর মিলিত স্রোত। জল দেখে বোঝার উপায় নেই, সপ্তাহ দুয়েক আগেও নদী উপচে ডুবে গিয়েছিল পুরো এলাকা। মোটা গুঁড়ির গাছের গায়ে এখনও লেগে আছে প্লাবনের সেই চিহ্ন।
অগাস্ট ২০১৭।  ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলায় সাগুনী সেতুর কাছে টাঙ্গন নদীতে দেওয়া হয়েছে রাবার ড্যাম। নদীর পাশেই শালবন। জেলেদের পাশাপাশি সাদা বকটিও আছে মাছ ধরার চেষ্টায়।
সেপ্টেম্বর ২০১৭। সেনুয়া নদীর স্রোত এসে মিলেছে টাঙ্গন নদীর সাথে। ঠাকুরগাঁও শহর ভাসিয়ে নেওয়া বন্যা শেষে আবারো শান্ত নদী।
সেপ্টেম্বর ২০১৭। দূষণে আক্রান্ত বুড়িগঙ্গায় পারাপারের ব্যস্ততা।
ফেব্রয়ারি ২০১৮। খুলনার দাকোপ উপজেলার বটবুনিয়া বাজার সংলগ্ন ঢাকি নদীতে শীতের সকালে পারাপারের ব্যস্ত। নদীতে স্রোত ছিল, তাতে ছিল আলোর খেলা। 
ফেব্রুয়ারি ২০১৮। খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার কিসমত ফুলতলা গ্রামে কৃষিকাজে লবণাক্ত পানির প্রবাহ নিয়ন্ত্রণে কাজিবাছা নদী আর কাটাখালি খালের মাঝে স্লুইস গেট।
ফেব্রুয়ারি ২০১৮। খুলনার দাকোপ উপজেলার পানখালী ইউয়নের মধ্যে দিয়ে প্রবাহিত ঝপঝপিয়া নদী। ফেরি পারাপার চালু আছে এখানে। স্থানীয়রা জানালেন, নদীর নামও পানখালী।
জুন ২০১৮। ঠাকুরগাঁওয়ে বুড়িবাঁধে বিকালে হাওয়া খেতে আসে অনেকেই।
বুড়িবাঁধ
 সেচ প্রকল্পের ব্যারেজ নির্মাণ করা হয়েছে এখানে। ব্যারেজের দুপাশে নদীর কিছু কিছু অংশ পুকুরের মত মনে হলেও এটি আসলে শুক নদী। এই অগভীর নদীতেই জাল ফেলে ছোট ছোট মাছ তুলে আনতে দেখা গেল এক জেলেকে।
সেপ্টেম্বর ২০১৮। ঢাকার পরিচয় বুড়িগঙ্গা পাড়ের শহর হিসেবে। বছরের যে কোনো সময়েই রমরমা থাকে বুড়িগঙ্গার তীরে সদরঘাট এলাকা।
মার্চ ২০১৯। চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের বাসভবন থেকে কিছুটা হেঁটে গেলেই ডাকাতিয়া নদীর পাড়। নদীতে সারি করে বাঁধা নৌকা। এরা বেদে গোষ্ঠী নয়, তবে প্রজন্মের পর প্রজন্ম এরা নদীর উপর নৌকা ভাসিয়েই জীবন কাটিয়ে দেয় বলে জানালেন স্থানীয়রা। 
মার্চ ২০১৯। চাঁদপুরের জাফরাবাদের পাশ দিয়ে এগিয়ে চলেছে মেঘনার স্রোত। রোদ আর বৃষ্টির লুকোচুরিতে মেঘনার জলরাশিতে সেদিন হঠাৎ মাথা তুলেছিল কুয়াশার চাদর।
অগাস্ট ২০১৯ । ঢাকার মোহাম্মদপুর বসিলায় তুরাগের একটি চ্যানেল ভরাট করে সেখানে আবাসন প্রকল্প গড়ে তুলেছিল আমিন অ্যান্ড মোমিন ডেভেলপমেন্টস লিমিটেড। বিআইডব্লিউটিএ’র নেতৃত্বে সেখানে দখল উচ্ছেদ এবং খনন চালানোর পর নতুন প্রবাহ ফিরে পেয়েছে তুরাগ।

পুরনো খবর

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক