ব্যয় সঙ্কোচন: ‘কম গুরুত্বের’ প্রকল্পে অর্থ ছাড় বন্ধ

ব্যয় সঙ্কোচন উদ্যোগের অংশ হিসাবে কম প্রয়োজনীয় পরিচালন খরচ কমানোর পাশাপাশি বার্ষিক উন্নয়ন প্রকল্পগুলোতে বরাদ্দ অর্থেও কাটছাঁট করছে সরকার।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 July 2022, 07:05 AM
Updated : 4 July 2022, 08:45 AM

গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা বিবেচনায় সরকারের হাতে থাকা প্রকল্পগুলোকে তিন পর্যায়ে ভাগ করে তৃতীয় ধাপের (সি ক্যাটাগরি) প্রকল্পে অর্থ ছাড় অপাতত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

রোববার মন্ত্রণালয়ের বাজেট শাখা থেকে জারি করা এক পরিপত্রে এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়। একই দিনে আলাদা পরিপত্রে সব ধরনের সরকারি প্রতিষ্ঠানের জন্য নতুন করে গাড়ি কেনা এবং সভার সম্মানি ভাতা স্থগিত করা হয়। 

‘২০২২-২৩ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিভুক্ত প্রকল্পগুলোর অগ্রাধিকার নির্ধারণ এবং সুষ্ঠু বাস্তবায়ন’ শীর্ষক পরিপত্রে বলা হয়, বর্তমান বৈশ্বিক অর্থনৈতিক অবস্থার প্রেক্ষাপটে সরকারি ব্যয়ে কৃচ্ছ্রসাধনের লক্ষ্যে, সীমিত সম্পদের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিতকল্পে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিভুক্ত প্রকল্পগুলোকে এ/বি/সি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে।

মন্ত্রণালয়/বিভাগ/অন্যান্য প্রতিষ্ঠান এবং অধীনস্ত দপ্তর/সংস্থার 'এ' ক্যাটাগরিভুক্ত প্রকল্পগুলো ‘যথানিয়মে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে’ বাস্তবায়নের কাজ অব্যাহত থাকবে।

'বি' ক্যাটাগরির ক্ষেত্রে সরকারি অর্থায়নের ২৫ শতাংশ সংরক্ষিত রেখে অনূর্ধ্ব ৭৫ শতাংশ ব্যয় করা যাবে।

“আর 'সি' ক্যাটাগরির প্রকল্পগুলোর অর্থ ছাড় আপাতত স্থগিত থাকবে। তবে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠান প্রয়োজন অনুসারে 'সি' ক্যাটাগরির প্রকল্পগুলোর বরাদ্দ করা অর্থ পুনঃউপযোজনের মাধ্যমে (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে পরিকল্পনা কমিশন ও অর্থ বিভাগের পূর্বানুমতি নিয়ে) 'এ' ক্যাটাগরি চিহ্নিত প্রকল্পসমূহে ব্যয় করতে পারবে।”

যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন নিয়ে এ পরিপত্র অবিলম্বে কার্যকর হবে বলে মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।

কোভিড মহামারীর প্রভাব কিছুটা কমে যাওয়ার পর গত ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেইনের ওপর রাশিয়ার আগ্রাসনকে কেন্দ্র করে বৈশ্বিক অর্থনীতিতে মন্দা দেখা দেয়। দেশে দেশে মুদ্রার দরপতন, আমদানি খরচ বেড়ে যাওয়া, কাঁচামালের মূল্য বাড়াসহ বিভিন্ন কারণে জীবনযাত্রার ব্যয় বেড়ে যায়।

এর প্রভাব দেখা যায় বাংলাদেশের আমদানির ক্ষেত্রেও। চাহিদার বিপরীতে সরবরাহ সংকট তৈরি হওয়ায় ডলারের দামে রেকর্ড হয়। ফলে ডলারের বিনিময়ে টাকার মান নিয়মিতভাবে কমছে।

এমন পরিস্থিতিতে গত জুন মাস থেকে খরচ কমানোর জন্য বিভিন্ন সিদ্ধান্ত দিচ্ছে সরকার। খুব গুরুত্বপূর্ণ নয় এমন সব প্রকল্পের ব্যয় স্থগিত করা, বিদেশ সফর স্থগিত করা, বিলাসপণ্য আমদানি নিরুৎসাহিত করা, আমদানির ক্ষেত্রে এলসি মার্জিন বাড়িয়ে দেওয়া, বিদেশে পাচার হওয়া টাকা ফেরত আনাসহ আরও কিছু সিদ্ধান্ত ইতোমধ্যে এসেছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক